|

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf. Time management with Islam

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf, টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download, time management with islam bangla pdf

টাইম-ম্যানেজমেন্ট-উইথ-ইসলাম-pdf.-Time-management-with-Islam-Bangla

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম; আহমেদ ফারুক এর লেখা বই টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম এর pdf ফাইল ডাউনলোড করতে নিচে DOWNLOAD লেখার উপর ক্লিক করুন; তারপর গুগল ড্রাইভে ডাউনলোড চিহ্নের উপর ক্লিক করুন।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম – আহমেদ ফারুক

DOWNLOAD

হায়! আমাদের যদি আরেকটি সুযোগ হতো, তবে আমরা মুমিনদের অন্তর্ভুক্ত হতাম। (সূরা আশ-শুআরা, আয়াত-১০২)

জীবন অতি ক্ষুদ্র কিছু সময়ের সমষ্টি মাত্র। কায়দা কানুন না জানলে বহু কাজ করা হবে কিন্তু ফলাফল আশানুরূপ হবে না। মহান আল্লাহ তায়ালা অবশ্যই অবশ্যই জিজ্ঞেস করবেন সময়ের ব্যবহার সম্পর্কে। দুনিয়ার জীবনে অর্থ, যশ, খ্যাতি হারালে আবার ফিরে পাওয়া যায়। কিন্তু গরুর বাট থেকে দুধ বের হলে যেমন প্রবেশ করানো যায় না তেমনি হারানো সময় আর ফিরে পাওয়া যায় না।

মানুষের জীবনে টাইম ম্যানেজমেন্ট এর গুরুত্ব অনেক। এটি কাজের চাপ কমায়, অলসতা দূর করে এবং জীবনে সাফল্য এনে দেয়। আর একজন বিশ্বাসী মানুষের জীবনে টাইম ম্যানেজমেন্টের উদ্দেশ্য এতটুকুর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না। বরং সব কাজেই তার পরম লক্ষ্য থাকে ইহকালীন ও পরকালীন সাফল্য অর্জন, যা তাকে এনে দেবে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি এবং জান্নাতুল ফেরদাউসের সুউচ্চ মর্যাদা।

Table of Contents

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

সুরা আসর, আদ-দুহা, আল লাইল, আশ শামস, আল ফজরে আল্লাহ তায়ালা সময়ের কসম করেছেন। এতে প্রতীয়মান হয়, আল্লাহ তায়ালার কাছে সময় মহামূল্যবান।

অন্য সকল ব্যবসায়িক কাজের মতো টাইম ম্যানেজমেন্ট ইসলামিক পদ্ধতিতে শেখা যায়। তাই এটা শেখা জটিল কিছু নয়। আরো একটা ভালো ব্যাপার হলো টাইম ম্যানেজমেন্টের অনুশীলন এমন একটি অনুশীলন যা আপনাকে কিছু না কিছু সুফল অবশ্যই দেবে। অন্ধকারে ঢিল ছোড়ার চেয়ে টাইম ম্যানেজমেন্টের খুঁটিনাটি নিয়ে অনুশীলন করা ভালো।

সময় ব্যবস্থাপনার সুন্দর নির্দেশনা দিয়েছে ইসলাম। বিশ্বাসী মানুষের সময় নিয়ন্ত্রণের ভিত্তি মূল হলো নামাজ। পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা সফল মুমিনের আলোচনা করেছেন, সেই আলোচনার শুরুও করেছেন নামাজের কথা দিয়ে এবং শেষও করেছেন নামাজের আলোচনার মাধ্যমে।

‘মুমিনরা সফলকাম হয়ে গেছে, যারা নামাজে বিনয়-নম্রতা অবলম্বন করে।… এবং যারা নিজেদের নামাজের ব্যাপারে যত্নবান।’ (সুরা মুমিনুন, আয়াত : ১,২ ও ৯)

আয়াতে নামাজের প্রতি যত্নবান হওয়ার অর্থ হলো ঠিক সময়ে নামাজ আদায় করা। প্রকৃত মুমিন যেখানেই যে অবস্থায় থাকুক দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় সঠিক সময়ে আদায় করবেই।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

প্রিয়নবী (সা.) মৃত্যুশয্যায়ও ইশারায় নামাজ আদায় করেছেন। আর পুরো দিনে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সময়মতো আদায় করতে হলে তাকে সদা সময়-সচেতন হতে হবে। এভাবেই মনের অজান্তে নামাজ মুমিনের টাইম ম্যানেজমেন্টের ভিত্তিমূল হয়ে ওঠে।

টাইম ম্যানেজমেন্ট অনেকটা সাইকেলে চড়ার মতো, কি-বোর্ডে লেখার মতো অথবা কোনো একটা খেলার মতো। এটা বিভিন্ন কলাকৌশল, প্রয়োগ কৌশল ও পদ্ধতি দ্বারা গঠিত। এটা এমন এক কলাকৌশল যা আপনি দৃঢ় সংকল্প ও পুনরাবৃত্তির মাধ্যমে শিখতে পারেন, চর্চা করতে পারেন এবং টাইম ম্যানেজমেন্টের একজন গুরু হয়ে উঠতে পারেন।

তবে প্রথমে আপনাকে যে কাজ করতে হবে তা হচ্ছে, আপনার সময় আসলে যায় কোথায়? তা আগে খুঁজে বের করা। বর্তমান কাজের ধারা অনুযায়ী, আপনার সময় কোথায় এবং কীভাবে ব্যয় হয় তা খুঁজে বের করা দরকার। বেশিরভাগ লোকজন এ ব্যাপারটাই এড়িয়ে যায়। যদি তারা কখনো তা খুঁজে বের করতে না চায়, তাহলে অবশ্যই টাইম ম্যানেজমেন্টের অগ্রগতি করা কঠিন।

লেখক পিটার ড্রাকার এর লেখা বিখ্যাত বই ‘The Effective Executive’. এই বইতে টাইম ম্যানেজমেন্ট এর জন্য তিনটি ধাপ অনুসরণের কথা বলা হয়েছে। বইটির ‘নিজের সময়কে জানুন অধ্যায়ে তিনি এই বিষয়টি আলোচনা করেছেন। ধাপ তিনটি হলো-

১. আপনার সময়ের বিশ্লেষণ করুন।

২. নিরর্থক চাহিদাগুলো ছাঁটাই করুন।

৩. হাতে সময় নিয়ে আপনার কাজগুলো সম্পন্ন করার লক্ষ্য স্থির করুন।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

একজন আদর্শবান মুসলিমের প্রাত্যহিক জীবন রীতির আলোকে উপরোক্ত ধাপ তিনটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব।

১. সমরের বিশ্লেষণ করুন

আপনি আপনার বর্তমান অবস্থান খুঁজে বের করুন। তাই আগামী এক সপ্তাহ আপনার সময় কীভাবে কাটছে তা লিপিবদ্ধ করুন। আপনি এর জন্য খাতা-কলম, ডায়েরি, কম্পিউটার বা মোবাইলের প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। আপনি এক সপ্তাহ পর দেখতে পাবেন যে আপনি কতটা সময় অপচয় করেন।

এটা খুঁজে বের করার জন্য প্রথম কাজটি হচ্ছে পরিমাপ করা। অনুমান করবেন না। অনুমানে কাজ হয় না। পরিমাপ করার সহজ উপায় হচ্ছে পাই চার্টের ব্যবহার। এতে করে সহজেই শতাংশের হিসাবে সময় ও কাজের পরিধি দেখা যায়। আপনার কাজের মূল খাত গুলো লিখুন। তারপর পাই চার্ট এর বিভিন্ন অংশে খাতগুলো উল্লেখ করুন। এসব খাতে থাকতে পারে-

১. লেখালেখি

২ ফোন করা

৩ মিটিং

৪ পরিকল্পনা ইত্যাদি।

আরো ব্যক্তিগত বা ভিন্ন কিছুও থাকতে পারে। আপনি নিজের মতো করে বসিয়ে নিন।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে একটি টাইম লগ ব্যবহার করা। টাইম লগ হচ্ছে সময় ও কাজের উদ্দেশ্য লিখে রাখার একটি খাতা বা ডায়েরি। টাইম লগ ব্যবহার করে আপনি বেশ পরিচ্ছন্ন ও স্পষ্টভাবে আপনার সময় আসলে কোথায় যায় তা দেখতে পাবেন।

দিনের সবকিছু নথিভুক্ত করবেন, কমপক্ষে এক সপ্তাহ কী করেছেন তা উল্লেখ করবেন। যদি সম্ভব হয় এক মাসের সময় হিসাব নথিভুক্ত করুন। এটা করতে খুব বেশি সময় লাগে না, মাত্র দু-এক মিনিট। কিন্তু আপনাকে শৃঙ্খলার সাথে এটা পালন করতে হবে।

খুব অল্প লোকই আছে যারা নিজেদের সময়ের ভাগ-বণ্টন দেখে অবাক হয় না। অবশ্য যারা এ ডায়েরি ঠিকমতো লিখে রাখতে পারে, তারা হয়তো চিন্তা করে তারা গুরুত্বপূর্ণ কিছুতেই সময় দিচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় তারা ভিন্ন কিছুতে সময় ব্যয় করছে, যা তাদের করার কথা নয়। তাই সামনে যা আসে তাই করবেন না। আগে টাইম লগ লিখুন। ডায়েরিতে লেখা বজায় রাখুন। তারপরই আপনি বুঝতে পারবেন, কোন খাতে কত সময় যাচ্ছে এবং কত সময় দেয়া উচিত। এটা অবশ্যই আপনার জন্য মেনে নেয়া কষ্টকর হবে। তবে নিজের সাথে সত্যবাদীর মতো আচরণ করাটাই হলো প্রতিকারের প্রথম পদক্ষেপ।

‘সৎ লোক সাতবার বিপদে পড়লে আবার উঠে, কিন্তু অসৎ লোক বিপদে পড়লে একবারে অধঃপতন ঘটে।’

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

২. নিরর্থক চাহিদা গুলো বাদ দিন

হযরত সুলাইমান (আ.)

আপনার চলমান সময়ের মাত্র এক সপ্তাহ বিশ্লেষণের পর আপনার মধ্যে দুঃখবোধ হতে পারে। এই দুঃখবোধ ঝেড়ে ফেলুন এবং ভাবুন- আমরা এমন অনেক কিছুই করি যা একেবারেই ঝেড়ে ফেলা যায়।

আপনার এমন মনে হতেই পারে যে সকালবেলা চা খাওয়ার অজুহাতে চায়ের দোকানে অযথা এক ঘণ্টা আড্ডা দিয়েছি। যার কোনো ভালো দিক নেই। বরং ওই চায়ের দোকানে যেসব বেহুদা কথা বলেছি তার অধিকাংশই ছিল গীবত, অর্থাৎ অন্যের সমালোচনা। অথচ গিবত সম্পর্কে কঠোরভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

আমরা জানি ‘গীবত’ শব্দের আভিধানিক অর্থ পরনিন্দা করা, কুৎসা রটানো, পিছনে সমালোচনা করা, পরচর্চা করা, দোষারোপ করা, কারো অনুপস্থিতিতে তার দোষ অন্যের সামনে তুলে ধরা। ইসলামি শরিয়তে গীবত হারাম ও কবিরা গুনাহ। হাদিসের বর্ণনা এসেছে-

‘যারা অগ্র-পশ্চাতে অন্যের দোষ বলে বেড়ায়, তাদের জন্য রয়েছে ধ্বংসের দুঃসংবাদ।’

(মুসলিম)

পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেন-

‘আর তোমরা অন্যের দোষ খুঁজে বেড়াবে না।’

(সূরা হুজুরাত, আয়াত : ১২)

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

দুর্ভোগ তাদের জন্য, যারা পশ্চাতে ও সম্মুখে লোকের নিন্দা করে।… অবশ্যই তারা হুতামাতে (জাহান্নামে) নিক্ষিপ্ত হবে। তুমি কি জানো হুতামা কী? তা আল্লাহর প্রজ্বলিত অগ্নি, যা হৃদয়কে গ্রাস করবে। নিশ্চয় বেষ্টন করে রাখবে, দীর্ঘায়িত স্তম্ভসমূহে।’ (সূরা হুমাযাহ, আয়াত : ১-১)

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত-

‘রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা কি জানো গীবত কাকে বলে? সাহাবিরা বললেন, ‘আল্লাহ ও তার রাসুল (সা.) ভালো জানেন।’ তিনি বলেন, ‘তোমার কোনো ভাই সম্পর্কে এমন কথা বলা, যা সে অপছন্দ করে, তা-ই গীবত।’

সাহাবায়ে কেরাম জিজ্ঞাসা করলেন, ‘হে আল্লাহর রাসুল, আমি যে দোষের কথা বলি, সেটা যদি আমার ভাইয়ের মধ্যে থাকে, তাহলেও কি গীবত হবে?”

উত্তরে রাসুল (সা.) বলেন, ‘তুমি যে দোষের কথা বলো, তা যদি তোমার ভাইয়ের মধ্যে থাকে, তবে তুমি অবশ্যই গীবত করলে আর তুমি যা বলছ, তা যদি তার মধ্যে না থাকে, তবে তুমি তার ওপর তুহমত ও বুহতান তথা মিথ্যা অপবাদ আরোপ করেছ।’

(মুসলিম)

যদি কেউ কারো উপর মিথ্যা অপবাদ আরোপ করে, ইসলামি দণ্ডবিধিতে তাকে ৮০ দোররা (চাবুক) দেয়া হবে। এরা ফাসিক, পাপী, অপরাধী। শরিয়তের আদালতে এদের সাক্ষ্য গ্রহণযোগ্য নয়।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

গীবত সম্পর্কে আরো অনেক ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ আছে। তবে ওপরের সামান্য আলোচনা থেকেই বোঝা যায় আমরা শুধু চায়ের দোকানে নয় বরং অনেক ক্ষেত্রেই অযথা সময় নষ্ট করছি। ব্যাপারগুলো অন্যভাবেও ভাবা যেত ।

১ চায়ের দোকানে বসে এক ঘণ্টা সময় বৃথা নষ্ট না করে বাড়িতেই চা বানিয়ে কি খাওয়া যেত না?

২ বাড়িতে চা বা কফি বানিয়ে তা পান করতে করতে কি ইমেইল বা টুকিটাকি অন্য কাজগুলো করা যেত না?

৩ টিভি চ্যানেল হাতড়ে বা ফেসবুক বা অন্যান্য অ্যাপস ঘেঁটে প্রতিদিন সাত-আট ঘণ্টা সময় ব্যয় করা কি আমাদের জন্য সত্যিই জরুরি?

আমরা কি এসব থেকে সময় বাঁচাতে পারি না?

(সাধবান! আল্লাহর জন্য বরাদ্দ সময় বাঁচাতে যাবেন না! ‘সময় বাঁচানোর নামে কিছু লোক মসজিদে সালাত আদায় করতে যায় না। এই রকম সময় বাঁচানো নিষ্ফল কর্ম। মসজিদে গিয়ে সালাত আদায় করা আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক। অতএব, সময় বাঁচানোর নামে দ্বীনের কাজের সময় কমাতে যাবেন না। দ্বীনের জন্য যথেষ্ট সময় ব্যয় না করার দায়ে আমরা ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত। তাই পরিস্থিতি আরো খারাপ করতে আমরা যেন সময় বাঁচানোর অজুহাতকে ব্যবহার না করি।)

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

৩. হাতে সময় নিয়ে আপনার কাজগুলো সম্পন্ন করার লক্ষ্য স্থির করুন

যখন আপনি কঠিন কিছু নিয়ে কাজ করছেন। পুরোপুরি কাজের মধ্যে নিমগ্ন। এমন সময় একটা ফোন কল বা ইমেইল কিংবা মেসেজ অ্যালার্ট কি বিরক্তিকর নয়?

আপনাকে অবশ্যই সময় ভাগ করে নিতে হবে। এই ভাগ হতে হবে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ সময় ভাগে বিভক্ত। অনেকের মতে, একনাগাড়ে সর্বোচ্চ ৯০ মিনিট মনোযোগ ধরে রাখা সম্ভব। তবে এই ৯০ মিনিট হতে হবে বিরতিহীন। সামান্য পরিমাণ কাজ করে সর্বোচ্চ পরিমাণ ফলাফল লাভ করতে এই পদ্ধতি সহায়তা করবে।

এই সর্বোচ্চ ফলাফল লাভের কারণটা খুব সহজ। আর তা হলো, আপনি এভাবে কাজ করলে একটি কাজের প্রতি আপনার সবটুকু মনোযোগ কাজে লাগে নিবিড়ভাবে এবং নির্বিঘ্নে। এক ঘণ্টার একটি কাজ করতে আপনার চার ঘণ্টা লেগে যাবে যদি প্রতি ১০-১৫ মিনিটে আপনি বিরতি নেন বা বাধাপ্রাপ্ত হন।

সময়ের সঠিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাই প্রতিটি পদক্ষেপ গুরুত্বপূর্ণ। নইলে পরে পস্তাতে হবে। ‘জীবনভর গালিব এই ভুলটাই করে গেলো। ধুলো ছিল চেহারায়। অথচ আয়না পরিষ্কার করে গেলো।’ মির্জা গালিব

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

বিশ্বাস করুন এবং মন থেকে বিশ্বাস করুন। অবশ্যই আপনি আপনার সময়কে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারেন। এটা আপনার সামর্থ্যের ওপর নির্ভর করে। এই সামর্থ্যের কারণেই আপনার পেশাগত জীবন বা সাংসারিক জীবনে সাফল্য বা ব্যর্থতা ঘটে।

সময় ব্যবস্থাপনা করতে পারার যে সামর্থ্য তা থেকেই মূলত একজনের সাফল্য বা ব্যর্থতা নির্ধারিত হয়। যেকোনো কিছুতে কৃতিত্ব অর্জন করতে বা নিপুণতা তৈরি করতে সময় একটি অপরিহার্য ও অপূরণীয় উপাদান। এটা আপনার সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। তবে সময়কে আপনি সঞ্চয় করে রাখতে পারবেন না। ইংরেজিতে একটা প্রবাদ আছে-

Time and tide wait for none

(সময় এবং স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না)

সময় যদি একবার হারিয়ে যায় তবে আপনি এটি পুনরুদ্ধারও করতে পারবেন না। বাংলা প্রবাদটাও কিন্তু আপনাকে মনে রাখতে হবে-

সময়ের এক ফোঁড় অসময়ের দশ ফোঁড়

আপনি যাই করুন না কেন, আপনার সময়কে সুষ্ঠুভাবে কাজে লাগাতে হবে। তাই আপনি আপনার সময়কে যত ভালো করে প্রয়োগ করবেন, তত বেশি কাজ সম্পাদন করতে পারবেন এবং পুরস্কারও পাবেন তত বড়।

আল্লাহ মানবজাতিকে অসংখ্য-অগণিত নেয়ামত দান করেছেন, সেই নেয়ামতের অথৈ সাগরে আমরা ডুবে আছি। এই নেয়ামতের হিসাব করে কখনো শেষ করা যাবে না, বান্দা এই নেয়ামতের কতটুকু শুকরিয়া আদায় করে এ বিষয়টি চিন্তার বিষয়।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

এ সম্পর্কে পবিত্র কোরআনে আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সূরা আর-রহমানে অসংখ্যবার ইরশাদ করেছেন-

‘তোমরা তোমাদের রবের কোন কোন নেয়ামতকে অস্বীকার করবে?”

অপর আয়াতে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন ইরশাদ করেন-

‘যদি তোমরা আল্লাহর নেয়ামত গণনা করো, তবে গুনে শেষ করতে পারবে না।

(সূরা ইব্রাহিম, আয়াত-৩৪)

আল্লাহপাক আমাদের যে সমস্ত নেয়ামত দান করেছেন, তার মাঝে সময় হচ্ছে অন্যতম একটি নেয়ামত, এই নেয়ামতের গুরুত্ব অনেক বেশি।

পৃথিবীর শুরুর লগ্ন থেকেই আল্লাহ রাব্বুল আলামিন, চন্দ্র, সূর্য, আকাশ, বাতাস, গ্রহ, নক্ষত্র, সব কিছুকেই একটি নির্দিষ্ট সময়ে পরিচালনা করে আসছেন। সূর্য প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে উদিত হয়, আবার নির্দিষ্ট সময়ে অস্ত যায়।

একবার ভেবে দেখুন তো, যদি মহাবিশ্বের গ্রহ নক্ষত্র ধূমকেতু ইত্যাদি নিয়মের মধ্যে না চলত, অর্থাৎ যদি সময়ের হেরফের হতো তাহলে কী অবস্থা হতো?

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

আল্লাহ পবিত্র কোরআনের একাধিক জায়গায় দিবারাত্রির কসম খেয়েছেন। কোথাও দিনের কসম, কোথাও রাতের কসম, কোথাও সকালের, আবার কোথাও সময়ের কসম খেয়েছেন। যার দ্বারা সময়ের গুরুত্ব খুব সহজেই বোঝা যায়। এছাড়া শরিয়তের হুকুম আহকামের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায়, ইসলামের প্রতিটি ইবাদতের জন্য আল্লাহ একটি নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করে দিয়েছেন। তাই সময়ের সাথে সময়ের কাজ শেষ করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। নইলে দিনশেষে কেবলই শূন্য ।

বেলা শেষে উদাস পথিক ভাবে,

সে যেন কোন অনেক দূরে যাবে- উদাস পথিক ভাবে।

(পথহারা, কাজী নজরুল ইসলাম)

মহান আল্লাহ হজ যেমন নির্দিষ্ট সময় পালন করার জন্য নির্ধারণ করেছেন, জাকাত নির্দিষ্ট পরিমাণ মাল হলে নির্দিষ্ট সময়ে আদায় করার জন্য নির্ধারণ করেছেন, ফরজ নামাজের জন্যও একটি নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করেছেন।

এভাবে শরিয়তের আরো অন্যান্য হুকুম-আহকামের মাঝে সময়ের মালা গাঁথা রয়েছে। নামাজের ব্যাপারে পবিত্র কুরআনে ইরশাদ হচ্ছে-

‘নিশ্চয়ই নামাজ মুসলমানদের ওপর ফরজ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে।’

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

(সুরা নিসা, আয়াত-১০৩)

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন-

‘আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে জিজ্ঞাসা করলাম, কোন আমল আল্লাহর কাছে সবচেয়ে প্রিয়? তিনি উত্তরে বললেন,

যথাসময়ে আদায়কৃত নামাজ।’ (বুখারি, মুসলিম, তিরমিজি, নাসাঈ)

ওই আয়াত ও হাদিস দ্বারা বোঝা গেল সময়ের গুরুত্ব অপরিসীম, তাই সময়ের কদর করতে হবে। সময়কে মূল্যায়ন করতে হবে। সময়ের সদ্ব্যবহার করতে হবে। হেলায় খেলায় সময়কে নষ্ট করা যাবে না। সময় এমন এক মূল্যবান সম্পদ ও এমন একটি রত্ন, যা একবার চলে গেলে আর কখনই ফিরে আসবে না। ধন সম্পদ তো হারিয়ে গেলে তা আবার ফিরে পাওয়ার আশা থাকে, কিন্তু সময় যদি হারিয়ে যায় তা আর দ্বিতীয়বার ফিরে আসে না।

সুতরাং বোঝা গেল ধন-সম্পদ থেকেও সময় অতি মূল্যবান। এভাবেই সময় তার নিজ গতিতে চলতে থাকে, সবকিছু শুরু হয়, আবার শেষ হয়, রাত যায় দিন আসে, দিন যায় রাত আসে, শেষ হয়ে যায় সপ্তাহ, পক্ষ, মাস ও বছর। এভাবেই চলতে থাকে আমাদের জীবন প্রহর। সময়ই মানুষের জীবন, আরবিতে একটি প্রবাদ বাক্য আছে-

সময়ের নামই তো জীবন, তাকে নষ্ট করো না।

সময়ের সদ্ব্যবহার দ্বারা যেমন ব্যক্তি সফলতার উচ্চ আসনে পৌঁছে। অন্যদিকে এর অবহেলার দ্বারা সে নিক্ষিপ্ত হয় ব্যর্থতার অতল গহ্বরে। সময়কে যারা মূল্যায়ন করে, তারাই সফলকাম হয়, তাদের ভবিষ্যৎ হয় উজ্জ্বল।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

আল্লাহ আমাদের এই পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন নির্দিষ্ট হায়াত দিয়ে। মানে আপনার জন্য সময় নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। আপনি আপনার বরাদ্দকৃত সময়ের এ সেকেন্ড বেশি সময়ও পাবেন না। তাই আপনার নিজের জন্য, সৃষ্টিকর্তার জন্য, সমাজের জন্য, সর্বোপরি সৃষ্টিজগতের জন্য আপনার কিছু দায়িত্ব ও কর্তব্য আছে। তা আপনার নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই শেষ করতে হবে। ‘জীবনকে তোমার বিরুদ্ধে না রেখে বরং তোমার সঙ্গী করে নাও।’ (শামস তাবরিজি, ইরানি সুফি)

সময়কে মূল্যায়ন করে যারা সম্মানিত হয়েছেন? কীভাবে?

১. ইমাম আবু ইউসুফ (রহ.): তিনি যখন মৃত্যুশয্যায় শায়িত, জীবনের শেষ প্রান্তে উপনীত, তখনো তিনি ফিকহি একটি মাসআলা নিয়ে চিন্তিত ছিলেন।

২. হযরত দাউদ তায়ী (রহ) : তিনি রুটির পরিবর্তে ছাতু খেতেন, কারণ জিজ্ঞাসা করার পর তিনি বললেন, রুটির পরিবর্তে ছাতু খেলে ৫০ আয়াত বেশি তেলাওয়াত করা যায়।

৩. বিখ্যাত নাহুবিদ খলিল ইবনে আহমাদ (রহ.) : তিনি বলতেন, আমার কাছে সবচেয়ে অসহ্যকর লাগে ওই সময়টুকু যখন আমি খাওয়া-দাওয়া করি। (সাফহাতুম মিন সাবরিল উলামা)

এভাবে আরো অনেক অসংখ্য অগণিত জগৎ সেরা মানুষ রয়েছেন যাদের কাছে সময়ের মূল্য ছিল অপরিসীম। যার কারণে তারা হতে পেরেছেন যুগশ্রেষ্ঠ উপাধি। পেয়েছেন ইহজগতে মানুষের ভালোবাসা আর ইহলোক ও পরলোকে আল্লাহর রহমত।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

হাদিস শরিফে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, পাঁচটি জিনিসের আগে অপর পাঁচটি জিনিসকে গুরুত্ব দাও।

(১) বৃদ্ধ হওয়ার পূর্বে যৌবনকে

(২) অসুস্থ হওয়ার আগে সুস্থতাকে

(৩) দরিদ্র হওয়ার আগে স্বাবলম্বিতাকে

(৪) ব্যস্ততার আগে অবসরতাকে

(৫) মৃত্যুর আগে জীবনকে

(তিরমিজি, মিশকাত হা/৫১৭৪, ইবনে আবি শাইবা ৩৫৪৬০)

সময়কে সঠিকভাবে কাজে লাগানোটাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এটার ওপর নির্ভর করে আপনার সফলতা কিংবা ব্যর্থতা। যদিও সফলতা আর ব্যর্থতার সংজ্ঞা পেশাগত জীবনে ভিন্ন ভিন্ন অর্থ বহন করে। এমনকি সফলতার মূলমন্ত্র সম্পর্কে অধিকাংশ মানুষ অজ্ঞ। সময়ের যথাযথ ব্যবহারের ফলে মানুষ সফলতা লাভ করে এটা যেমন সত্যি, তেমনি এই সফলতা লাভের আগে আপনাকেই নির্ধারণ করতে হবে আপনি নিজেকে কোথায় দেখতে চান বা সহজভাবে বলে কোথায় গিয়ে পৌঁছলে আপনি নিজেকে সহজ ভাববেন।

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

টাইম ম্যানেজমেন্ট এমনি এক পদ্ধতিতে যে পদ্ধতিতে আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেন। তবে পুরো ব্যাপারটাই আপনার সাধ্যের ওপর নির্ভর করে। আপনাকে লক্ষ্য আগেই ঠিক করতে হবে। কারণ এমন লক্ষ্য আপনি ঠিক করলেন যা অর্জন করা মূলত আপনার সামর্থ্যের বাইরে।

ধরুন আপনি ভালো ক্রিকেটার হতে চান। সে হিসেবে আপনি সময়ের সঠিক ব্যবহার শুরু করলেন। কিন্তু সত্যিকার অর্থে যদি আপনার মধ্যে ক্রিকেট খেলার ঐশ্বরিক ক্ষমতা না থাকে তবে আপনি তা পুরোপুরি অর্জন করতে পারবেন না। কিংবা দ্রুত ব্যর্থ হবেন।

সময় ব্যবস্থাপনায় আপনি যদি দক্ষ হতে চান তবে নিজেকে প্রশ্ন করুন- আপনার বর্তমান সময়গুলো কোথায় যায়? অর্থাৎ আপনি বর্তমান সময়গুলো কীভাবে খরচ করছেন? এ প্রশ্নের ওপর ভিত্তি করেই শুরু করুন আপনার পরবর্তী পদক্ষেপ। এ কাজটা একেবারেই সহজ আবার অত্যন্ত কঠিন। কারণ একেবারে চোখের সামনে যা থাকে তা সচরাচর আমরা দেখতে পাই না । তাই নিজেকে প্রস্তুত করতে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন প্রয়োজন। খুব সহজ পদ্ধতিতে বিষয়গুলো আপনি খুঁজে বের করতে পারেন।

‘ইহকাল-পরকালে যাহা আবশ্যক তাহা যৌবনে সংগ্রহ করিও। (শেখ সাদী, ফার্সি কবি)

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download. Time management with Islam Bangla

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf, টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম pdf download, time management with islam bangla pdf, time management with islam pdf, time management with islam book

হযরত ওমর রাঃ এর জীবনী pdf. Hazrat Umar er jiboni Bangla pdf

জাল হাদিসের কবলে রাসুলের সালাত pdf download

ইসলামের দৃষ্টিতে স্বপ্নের ব্যাখ্যা ইবনে সিরিন বই pdf download

চিন্তাপরাধ pdf download আসিফ আদনান. Chintaporadh

ইহুদি জাতির ইতিহাস pdf. Ihudi jatir itihas pdf download

খুতবাতুল ইসলাম pdf. Khutbatul islam pdf download

আরবি ভাষা শিক্ষা বই pdf. আরবি ভাষা শিক্ষা কোর্স pdf

ফয়জুল কালাম pdf download. Foyjul Kalam pdf

টাইম ম্যানেজমেন্ট উইথ ইসলাম: আহমেদ ফারুক – Rokomari.com

DOWNLOAD

Similar Posts