You are here

দারেমী ভূমিকা ১০ম ভাগ হাদিস নং ৫৩৫ – ৬১৪

 ৫৩৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৩৫. আ’মাশ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: আমরা ইবরাহীমকে একটি স্তম্ভের নিকট বসানোর চেষ্টা করলাম কিন্তু তিনি (সেখানে বসতে) অস্বীকার করলেন।[1]

[1] এর কারণ হয়তো, তার সাথে সম্পৃক্ত করে এ খুঁটির নামকরণ করে বলা হবে, ‘সারিয়্যাতু ইবরাহীম’ তথা ইবরাহীম খুঁটি। ফলে তার নাম প্রসিদ্ধি লাভ করবে, যেটি তিনি ভয় করেছেন। (দেখুন, ফাতহুল মান্নান, হা/৫৪৬ এর ব্যাখ্যা)।

তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আবু যুর’আহ, তারীখ নং ১৯৯৭; ইবনু আবী শাইবা, ৯/১০২ নং ৬৬৮০। নিচের হাদীসটি দ্রষ্টব্য।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ الْحَجَّاجِ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ الْأَعْمَشِ قَالَ جَهَدْنَا بِإِبْرَاهِيمَ حَتَّى أَنْ نُجْلِسَهُ إِلَى سَارِيَةٍ فَأَبَى

إسناده صحيح

أخبرنا أحمد بن الحجاج حدثنا سفيان بن عيينة عن الأعمش قال جهدنا بإبراهيم حتى أن نجلسه إلى سارية فأبى إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আ‘মাশ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৩৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৩৬. মুগীরাহ হতে বর্ণিত, ইবরাহীম হতে বর্ণনা করেন, তিনি (বসার সময়) স্তম্ভের উপর ভর দিতে অপছন্দ করতেন।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ। তাখরীজ: (ইবনু সা’দ, আত তাবাকাত ৬/১৯০; পূর্ণ তাখরীজ দেখুন আগের হাদীসে।)

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا عَفَّانُ حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ إِبْرَاهِيمَ أَنَّهُ كَانَ يَكْرَهُ أَنْ يَسْتَنِدَ إِلَى السَّارِيَةِ

إسناده صحيح

أخبرنا عفان حدثنا أبو عوانة عن مغيرة عن إبراهيم أنه كان يكره أن يستند إلى السارية إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৩৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৩৭. মুগীরাহ বলেন: ইবরাহীমকে জিজ্ঞাসা না করা পর্যন্ত তিনি (নিজ থেকে) কখনো হাদীস বর্ণনা করা শুরু করতেন না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: খতীব, আল জামি’ নং ৩৬২; ইবনু সা’দ, আত তাবাকাত ৬/১৯২ হাসান সনদে। এখানে ইবরাহীমের সাথে আতা’ রাহি.-এর কথাও উল্লেখ আছে যে, তাদেরকে কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করার পূর্বে তারা কখনো কথা বলতেন না।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا الْحَكَمُ بْنُ الْمُبَارَكِ حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ مُغِيرَةَ قَالَ كَانَ إِبْرَاهِيمُ لَا يَبْتَدِئُ الْحَدِيثَ حَتَّى يُسْأَلَ

إسناده صحيح

أخبرنا الحكم بن المبارك حدثنا أبو عوانة عن مغيرة قال كان إبراهيم لا يبتدئ الحديث حتى يسأل إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৩৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৩৮. খায়ছামা বলেন: হারিস ইবনু কায়িস আল-জু’ফী আব্দুল্লাহ’ রা: এর একজন সঙ্গী ছিলেন। তারা (লোকেরা) তার (হারিসের) প্রতি মুগ্ধ/ গর্বিত ছিলেন। এক-দু’জন লোক তার নিকট বসলে তিনি সেই দু’জনের নিকট হাদীস বর্ণনা করতেন। এরপর লোকজন অনেক বেশি হয়ে গেলে তিনি উঠে পড়তেন এবং তাদেরকে পরিত্যাগ করে চলে যেতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: মিযযী, তাহযীবুল কামাল ৫/২৭৩। এধরনের বক্তব্য তাউস ও অন্যান্যদের থেকেও বর্ণিত আছে।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ سَعِيدٍ قَالَ حَدَّثَنَا يُونُسُ بْنُ بُكَيْرٍ حَدَّثَنَا الْأَعْمَشُ عَنْ خَيْثَمَةَ قَالَ كَانَ الْحَارِثُ بْنُ قَيْسٍ الْجُعْفِيُّ وَكَانَ مِنْ أَصْحَابِ عَبْدِ اللَّهِ وَكَانُوا مُعْجَبِينَ بِهِ فَكَانَ يَجْلِسُ إِلَيْهِ الرَّجُلُ وَالرَّجُلَانِ فَيُحَدِّثُهُمَا فَإِذَا كَثُرُوا قَامَ وَتَرَكَهُمْ

إسناده صحيح

أخبرنا عبد الله بن سعيد قال حدثنا يونس بن بكير حدثنا الأعمش عن خيثمة قال كان الحارث بن قيس الجعفي وكان من أصحاب عبد الله وكانوا معجبين به فكان يجلس إليه الرجل والرجلان فيحدثهما فإذا كثروا قام وتركهم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ খায়ছামা বিন আব্দুর রহমান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৩৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৩৯. আলকামাহ বলেন, যখন আব্দুল্লাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু মৃত্যুবরণ করলেন, তখন তাকে বলা হলো: আপনি যদি (লোকদের নিকট) বসতেন এবং লোকদেরকে সুন্নাত (হাদীস) শিক্ষা দিতেন, ( তবে কতই না উত্তম হতো)! তথন তিনি বললেন: তোমরা কি চাও যে, আমার গোড়ালী পদদলিত করা হোক (আমার পিছনে সবসময় লোকদের ভীড় লেগেই থাকুক)?[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু সা’দ, আত তাবাকাত ৬/৬০; দেখুন আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ২৪; হিলইয়াতুল আউলিয়া ২/১০০।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ يُونُسَ حَدَّثَنَا أَبُو شِهَابٍ عَنْ الْأَعْمَشِ عَنْ إِبْرَاهِيمَ عَنْ عَلْقَمَةَ قَالَ قِيلَ لَهُ حِينَ مَاتَ عَبْدُ اللَّهِ لَوْ قَعَدْتَ فَعَلَّمْتَ النَّاسَ السُّنَّةَ فَقَالَ أَتُرِيدُونَ أَنْ يُوطَأَ عَقِبِي

إسناده صحيح

أخبرنا أحمد بن عبد الله بن يونس حدثنا أبو شهاب عن الأعمش عن إبراهيم عن علقمة قال قيل له حين مات عبد الله لو قعدت فعلمت الناس السنة فقال أتريدون أن يوطأ عقبي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আলকামাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪০. সুলাইম ইবনু হানযালাহ বলেন: আমরা উবাই ইবনু কা’ব রা: এর নিকট আসলাম যাতে আমরা তাঁর নিকট হাদীস বর্ণনা করতে পারি। এরপর যখন তিনি উঠে দাঁড়ালেন, তখন আমরাও উঠে দাঁড়ালাম এবং তাঁর পিছে পিছে চলতে লাগলাম। এরপর উমার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু আমাদের নিকট আসলেন এবং তিনি (উবাই রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু) তাঁর অনুসরণ করলেন। এরপর উমার রা: তাঁকে বেত্রাঘাত করেন। তিনি (বর্ণনাকারী) বলেন: তিনি তাঁর দু’বাহু দ্বারা নিজেকে রক্ষা করলেন। তখন তিনি (উবাই রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু) বললেন: হে আমীরুল মু’মিনীন! আপনি এ কী আচরণ করছেন? তিনি বললেন: তুমি কি দেখছো না- অনুসৃত ব্যক্তি জন্য এটি একটি ফিতনা, আর অনুসরণকারীদের জন্য এটি একটি অবমাননাকর বিষয়?[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ জাইয়্যেদ।

তাখরীজ: নুয়াইম বিন হাম্মাদ, যাওয়াইদ আলা যুহদ লি ইবনুল ‍মুবারক নং ৪৮; ইবনু আবী শাইবা, ৯/২০ নং ৬৩৬৬; বাইহাকী, যুহদুল কাবীর নং ৩০৩; খতীব, আল জামি’ নং ৯৩১।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ الْعَلَاءِ حَدَّثَنَا ابْنُ إِدْرِيسَ قَالَ سَمِعْتُ هَارُونَ بْنَ عَنْتَرَةَ عَنْ سُلَيْمِ بْنِ حَنْظَلَةَ قَالَ أَتَيْنَا أُبَيَّ بْنَ كَعْبٍ لِنَتَحَدَّثَ إِلَيْهِ فَلَمَّا قَامَ قُمْنَا وَنَحْنُ نَمْشِي خَلْفَهُ فَرَهَقَنَا عُمَرُ فَتَبِعَهُ فَضَرَبَهُ عُمَرُ بِالدِّرَّةِ قَالَ فَاتَّقَاهُ بِذِرَاعَيْهِ فَقَالَ يَا أَمِيرَ الْمُؤْمِنِينَ مَا نَصْنَعُ قَالَ أَوَ مَا تَرَى فِتْنَةً لِلْمَتْبُوعِ مَذَلَّةً لِلتَّابِعِ

إسناده جيد

أخبرنا محمد بن العلاء حدثنا ابن إدريس قال سمعت هارون بن عنترة عن سليم بن حنظلة قال أتينا أبي بن كعب لنتحدث إليه فلما قام قمنا ونحن نمشي خلفه فرهقنا عمر فتبعه فضربه عمر بالدرة قال فاتقاه بذراعيه فقال يا أمير المؤمنين ما نصنع قال أو ما ترى فتنة للمتبوع مذلة للتابع إسناده جيد

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ সুলাইম ইবনু হানযালাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪১. ইবরাহীম হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: তাদের গোড়ালী পদদলিত করা হোক (লোকেরা দলে দলে তাদের অনুসরণ করুক) – এটাকে তারা অপছন্দ করতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ১৫৮; ইবনু আবী শাইবা, ৮/৬৪২ নং ৫৮৬৪।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا جَرِيرٌ عَنْ مَنْصُورٍ عَنْ إِبْرَاهِيمَ قَالَ كَانُوا يَكْرَهُونَ أَنْ تُوطَأَ أَعْقَابُهُمْ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا جرير عن منصور عن إبراهيم قال كانوا يكرهون أن توطأ أعقابهم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইব্রাহীম আন-নাখঈ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪২. বিসতাম ইবনু মুসলিম থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন: মুহাম্মদ ইবনু সীরীন রাহিমাহুল্লাহ’র সাথে যখন কোনো লোক হেঁটে যেতো, তিনি তখন থেমে পড়তেন এবং তাকে বলতেন: আমার নিকট তোমার কোনো প্রয়োজন আছে কি? যদি সে ব্যক্তির কোনো প্রয়োজন থাকত, তবে তিনি তা মিটিয়ে দিতেন। এরপরও যদি সে পুনরায় তাঁর সাথে হাঁটতে থাকতো, তিনি আবার থেমে গিয়ে তাকে জিজ্ঞেস করতেন: আমার নিকট তোমার কোনো প্রয়োজন আছে কি?[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا سَعِيدُ بْنُ عَامِرٍ عَنْ بِسْطَامِ بْنِ مُسْلِمٍ قَالَ كَانَ مُحَمَّدُ بْنُ سِيرِينَ إِذَا مَشَى مَعَهُ الرَّجُلُ قَامَ فَقَالَ أَلَكَ حَاجَةٌ فَإِنْ كَانَتْ لَهُ حَاجَةٌ قَضَاهَا وَإِنْ عَادَ يَمْشِي مَعَهُ قَامَ فَقَالَ أَلَكَ حَاجَةٌ

إسناده صحيح

أخبرنا سعيد بن عامر عن بسطام بن مسلم قال كان محمد بن سيرين إذا مشى معه الرجل قام فقال ألك حاجة فإن كانت له حاجة قضاها وإن عاد يمشي معه قام فقال ألك حاجة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ বিসতাম ইবনু মুসলিম (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৩. হামযা হতে বর্ণিত, ইবরাহীম বলতেন: ’সাবধান! তোমাদের গোড়ালীগুলিকে যেনো পদদলিত করা না হয়। (অর্থাৎ লোকেরা তোমার অনুসরণ করবে- এমন অবস্থা থেকে দূরে থাকো)।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। কেননা, আবী হামযাহ যয়ীফ।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَبُو نُعَيْمٍ حَدَّثَنَا حَسَنُ بْنُ صَالِحٍ عَنْ أَبِي حَمْزَةَ عَنْ إِبْرَاهِيمَ قَالَ إِيَّاكُمْ أَنْ تُوطَأَ أَعْقَابُكُمْ

إسناده ضعيف لضعف أبي حمزة ميمون الأعور

أخبرنا أبو نعيم حدثنا حسن بن صالح عن أبي حمزة عن إبراهيم قال إياكم أن توطأ أعقابكم إسناده ضعيف لضعف أبي حمزة ميمون الأعور

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৪. আসিম ইবনু যামরাহ হতে বর্ণিত, তিনি লোকদেরকে সাঈদ ইবনু জুবাইরের পেছনে পেছনে চলতে দেখলেন। তিনি বলেন: এরপর আমি তাকে (তার অনুসরণ করা থেকে) তাদেরকে নিষেধ করতে দেখলাম। আর তিনি বললেন: তোমাদের এ কর্ম কিংবা তোমাদের এ (অনুসরনে) পথচলা অনুসরণকারীর জন্য অবমাননাকর বিষয় এবং যাকে অনুসরণ করা হচ্ছে তার জন্য এটি একটি ফিতনা স্বরূপ।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান।

তাখরীজ: খতীব, আল জামি’ নং ৯৩২; আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ১২৩;ইবনু আবী শাইবা ৯/১৯ নং ৬৩৬৪; বাইহাকী, আয যুহদ নং ৩০৪।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مَخْلَدُ بْنُ مَالِكٍ حَدَّثَنَا حَجَّاجُ بْنُ مُحَمَّدٍ حَدَّثَنَا شُعْبَةُ عَنْ الْهَيْثَمِ عَنْ عَاصِمِ بْنِ ضَمْرَةَ أَنَّهُ رَأَى أُنَاسًا يَتْبَعُونَ سَعِيدَ بْنَ جُبَيْرٍ قَالَ فَأُرَاهُ قَالَ نَهَاهُمْ وَقَالَ إِنَّ صَنِيعَكُمْ هَذَا أَوْ مَشْيَكُمْ هَذَا مَذَلَّةٌ لِلتَّابِعِ وَفِتْنَةٌ لِلْمَتْبُوعِ

إسناده حسن من أجل عاصم بن ضمرة والهيثم بن حبيب الصيرفي

أخبرنا مخلد بن مالك حدثنا حجاج بن محمد حدثنا شعبة عن الهيثم عن عاصم بن ضمرة أنه رأى أناسا يتبعون سعيد بن جبير قال فأراه قال نهاهم وقال إن صنيعكم هذا أو مشيكم هذا مذلة للتابع وفتنة للمتبوع إسناده حسن من أجل عاصم بن ضمرة والهيثم بن حبيب الصيرفي

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আসিম ইবনু যামরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৫. ইবনু আউন বলেন: আমি একটি ঘর নির্মাণের ব্যাপারে মুহাম্মাদের নিকট পরামর্শ চাইলাম, আমার ইচ্ছা সেটা আমি পশুদের রক্ষনাবেক্ষণের জন্য নির্মাণ করব। তিনি (বর্ণনাকারী) বলেন: তখন তিনি আমাকে পরামর্শ দিয়ে বললেন: তুমি যখন নির্মাণকাজের ভিত্তিস্থাপন করবে, তখন আমাকে ডাকবে তাহলে আমি তোমার সাথে আসব। তিনি বলেন: তারপর আমি তার নিকট এলাম। তিনি বলেন: যখন আমরা চলতে লাগলাম তখন একটি লোক এসে তার সাথে সাথে হেঁটে চললো। তখন তিনি দাঁড়িয়ে গিয়ে লোকটিকে বললেন: আমার নিকট তোমার কি কোনো প্রয়োজন রয়েছে? লোকটি বলল: না। তিনি বললেন: যখন কোনো প্রয়োজন নেই, তাই তুমি চলে যাও। তারপর তিনি আমার নিকট এসে বললেন: তুমিও চলে যাও। তিনি বলেন: ফলে আমি অন্য রাস্তা দিয়ে চলে গেলাম।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: পূর্বের হাদীস নং ৫৪২ নং দেখুন।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا سَعِيدُ بْنُ عَامِرٍ حَدَّثَنَا حُمَيْدُ بْنُ أَسْوَدَ عَنْ ابْنِ عَوْنٍ قَالَ شَاوَرْتُ مُحَمَّدًا فِي بِنَاءٍ أَرَدْتُ أَنْ أَبْنِيَهُ فِي الْكَلَّاءِ قَالَ فَأَشَارَ عَلَيَّ وَقَالَ إِذَا أَرَدْتَ أَسَاسَ الْبِنَاءِ فَآذِنِّي حَتَّى أَجِيءَ مَعَكَ قَالَ فَأَتَيْتُهُ قَالَ فَبَيْنَمَا نَحْنُ نَمْشِي إِذْ جَاءَ رَجُلٌ فَمَشَى مَعَهُ فَقَامَ فَقَالَ أَلَكَ حَاجَةٌ قَالَ لَا قَالَ أَمَّا لَا فَاذْهَبْ ثُمَّ أَقْبَلَ عَلَيَّ فَقَالَ أَنْتَ أَيْضًا فَاذْهَبْ قَالَ فَذَهَبْتُ حَتَّى خَالَفْتُ الطَّرِيقَ

إسناده صحيح

أخبرنا سعيد بن عامر حدثنا حميد بن أسود عن ابن عون قال شاورت محمدا في بناء أردت أن أبنيه في الكلاء قال فأشار علي وقال إذا أردت أساس البناء فآذني حتى أجيء معك قال فأتيته قال فبينما نحن نمشي إذ جاء رجل فمشى معه فقام فقال ألك حاجة قال لا قال أما لا فاذهب ثم أقبل علي فقال أنت أيضا فاذهب قال فذهبت حتى خالفت الطريق إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু ‘আউন (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৬. নুসাইর হতে বর্ণিত, রবী’আ যখনই তার নিকট আসতেন, তিনি বলতেন: আমি আল্লাহর নিকট তোমাদের অকল্যাণ হতে আশ্রয় প্রার্থনা করছি। অর্থাৎ তার সাথীদের ।[1]

[1] এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ১২৯; নুয়াইম ইবনু হাম্মাদ, যাওয়াইদু আলাল যুহদ লি ইবনুল মুবারক নং ৫৫।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ الْحَجَّاجِ حَدَّثَنَا عَبْدُ الرَّحْمَنِ بْنُ مَهْدِيٍّ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ نُسَيْرٍ أَنَّ الرَّبِيعَ كَانَ إِذَا أَتَوْهُ يَقُولُ أَعُوذُ بِاللَّهِ مِنْ شَرِّكُمْ يَعْنِي أَصْحَابَهُ

إسناده صحيح

أخبرنا أحمد بن الحجاج حدثنا عبد الرحمن بن مهدي عن سفيان عن نسير أن الربيع كان إذا أتوه يقول أعوذ بالله من شركم يعني أصحابه إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ নুসাইর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৭. আব্দুর রহমান ইবনু বিশর বলেন: আমরা খাব্বাব ইবনু আরাত রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু’র নিকট ছিলাম। তখন তার নিকট তার সাথীরা একত্রিত হলে তিনি চুপ করে রইলেন। তখন তাকে বলা হলো: আপনি কি আপনার সাথীদের নিকট হাদীস বর্ণনা করবেন না? তিনি উত্তরে বলেন: আমার আশঙ্কা যে, আমি হয়তো তাদের এমন কিছু বলব, যা আমি আমল করি না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান পর্যায়ের।

তাখরীজ: আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ১৬ যয়ীফ সনদে।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مَخْلَدُ بْنُ مَالِكٍ حَدَّثَنَا يَحْيَى بْنُ سَعِيدٍ عَنْ الْأَعْمَشِ عَنْ رَجَاءٍ الْأَنْصَارِيِّ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ بِشْرٍ قَالَ كُنَّا عِنْدَ خَبَّابِ بْنِ الْأَرَتِّ فَاجْتَمَعَ إِلَيْهِ أَصْحَابُهُ وَهُوَ سَاكِتٌ فَقِيلَ لَهُ أَلَا تُحَدِّثُ أَصْحَابَكَ قَالَ أَخَافُ أَنْ أَقُولَ لَهُمْ مَا لَا أَفْعَلُ

في إسناده رجاء الأنصاري وهذا إسناد ضعيف

أخبرنا مخلد بن مالك حدثنا يحيى بن سعيد عن الأعمش عن رجاء الأنصاري عن عبد الرحمن بن بشر قال كنا عند خباب بن الأرت فاجتمع إليه أصحابه وهو ساكت فقيل له ألا تحدث أصحابك قال أخاف أن أقول لهم ما لا أفعل في إسناده رجاء الأنصاري وهذا إسناد ضعيف

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুর রহমান ইবনু বিশর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৮. সালিহ বলেন: আমি শা’বীকে বলতে শুনেছি: আমি পছন্দ করি যে, আমি আমার ইলমী জিম্মাদারী হতে মুক্ত থাকি সমানে সমানে- যেন আমার পক্ষে (সুপারিশকারী হিসেবে)ও নয়, আবার আমার বিপক্ষে (বিবাদী হিসেবে)ও নয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাহ ২/৫৯২; ইবনু আব্দুল বারর, জামি’র টীকায়।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ صَالِحٍ قَالَ سَمِعْتُ الشَّعْبِيَّ قَالَ وَدِدْتُ أَنِّي نَجَوْتُ مِنْ عَمَلِي كَفَافًا لَا لِي وَلَا عَلَيَّ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان عن صالح قال سمعت الشعبي قال وددت أني نجوت من عملي كفافا لا لي ولا علي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সালিহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৪৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৪৯. হাসান হতে বর্ণিত, ইবনু মাসউদ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু যখন হেঁটে যেতেন তখন লোকেরা তার গোড়ালী মাড়াতো (পিছে পিছে চলতো)। তখন তিনি তাদের বলেন: তোমরা আমার গোড়ালী মাড়িও না (আমার পিছে পিছে চলো না)। আল্লাহ’র কসম! তোমরা যদি জানতে আমার প্রবেশ পথের মধ্যে কতকিছু আটকে রেখেছি (অর্থাৎ অভ্যন্তরীণ পাপ), তবে তোমাদের একজন লোকও আমার অনুসরণ করতে না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর রাবীগণ নির্ভরযোগ্য। কিন্তু এটি মুনকাতি’। হাসান ইবনু মাসউদের সাক্ষাৎ পাননি।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৯/২০ নং ৬৩৬৫; হাকিম ৩/৩১৬ সকলেই মুনকাতি’ সনদে।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ حَدَّثَنَا ابْنُ عَوْنٍ عَنْ الْحَسَنِ أَنَّ ابْنَ مَسْعُودٍ كَانَ يَمْشِي وَنَاسٌ يَطَئُونَ عَقِبَهُ فَقَالَ لَا تَطَئُوا عَقِبِي فَوَاللَّهِ لَوْ تَعْلَمُونَ مَا أُغْلِقُ عَلَيْهِ بَابِي مَا تَبِعَنِي رَجُلٌ مِنْكُمْ

رجاله ثقات غير أنه منقطع الحسن لم يدرك ابن مسعود. وابن عون هو: عبد الله

أخبرنا يزيد بن هارون حدثنا ابن عون عن الحسن أن ابن مسعود كان يمشي وناس يطئون عقبه فقال لا تطئوا عقبي فوالله لو تعلمون ما أغلق عليه بابي ما تبعني رجل منكم رجاله ثقات غير أنه منقطع الحسن لم يدرك ابن مسعود. وابن عون هو: عبد الله

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫০. সাঈদ ইবনু জুবাইর বলেন: “যাকে অনুসরণ করা হচ্ছে তার জন্য এটি একটি ফিতনা স্বরূপ এবং অনুসরণকারীর জন্য অবমাননাকর বিষয়”।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। কেননা, মুহাম্মদ ইবনু হামীদ যয়ীফ।

তাখরীজ: এর তাখরীজ ৫৪৪ নং এ গত হয়েছে।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا جَرِيرٌ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ سَعِيدِ بْنِ جُبَيْرٍ قَالَ فِتْنَةٌ لِلْمَتْبُوعِ مَذَلَّةٌ لِلتَّابِعِ

إسناده ضعيف لضعف محمد بن حميد

أخبرنا محمد بن حميد حدثنا جرير عن مغيرة عن سعيد بن جبير قال فتنة للمتبوع مذلة للتابع إسناده ضعيف لضعف محمد بن حميد

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ সা‘ঈদ ইবনু যুবায়র (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫১. উমাই বলেন: তারা আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু’র পিছনে পিছনে হেঁটে যাচ্ছিল। তখন তিনি বললেন: তোমরা (আমার পিছনে) জুতা খটখট করা হতে বিরত হও, কেননা, এটি অজ্ঞ লোকদের অন্তরের জন্য একটি ধ্বংসের কারণ।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আব্দুল বারর, জামি’ নং ৮৯৯ এর পার্শ্বটীকায় উল্লেখ করেছেন।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا شِهَابُ بْنُ عَبَّادٍ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ أُمَيٍّ قَالَ مَشَوْا خَلْفَ عَلِيٍّ فَقَالَ عَنِّي خَفْقَ نِعَالِكُمْ فَإِنَّهَا مُفْسِدَةٌ لِقُلُوبِ نَوْكَى الرِّجَالِ

إسناده صحيح

أخبرنا شهاب بن عباد حدثنا سفيان عن أمي قال مشوا خلف علي فقال عني خفق نعالكم فإنها مفسدة لقلوب نوكى الرجال إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫২. হাসান রাহিমাহুল্লাহ বলতেন: লোকদের পিছনে জুতা খটখটানী কদাচিতই নির্বোধকে (জ্ঞান বৃদ্ধি করা থেকে) [1] মন্থর করে দেয়।[2]

[1] يُلَبِّثُ الْحَمْقَى অর্থ: তা নির্বোধকে তার জ্ঞান বৃদ্ধি করা হতে মন্থর করে। [মুহাক্বিক্ব]

[2] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: খতীব, আল জামি’ নং ৯৩৪; ইবনু সা’দ, আত তাবাকাত ৭/১/১২২ সহীহ সনদে; দেখুন যিয়াদাতু নুয়াইম ইবনু হাম্মাদ আলা যুহদ ইবনুল মুবারক নং ৫০।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ يَزِيدَ بْنِ حَازِمٍ قَالَ سَمِعْتُ الْحَسَنَ يَقُولُ إِنَّ خَفْقَ النِّعَالِ حَوْلَ الرِّجَالِ قَلَّ مَا يُلَبِّثُ الْحَمْقَى

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد عن يزيد بن حازم قال سمعت الحسن يقول إن خفق النعال حول الرجال قل ما يلبث الحمقى إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৩. তাউস রাহিমাহুল্লাহ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: যখন তার নিকট এক-দু’জন লোক বসত, তখন তিনি উঠে দাঁড়াতেন এবং (তাদের নিকট থেকে) দূরে সরে যেতেন।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কারণ লাইছ যয়ীফ।

তাখরীজ: (কোনো তাখরীজ মুহাক্কিক্ব দেননি। তবে একই বিষয় হারিস ইবনু কায়েস হতে হাদীস ৫৩৮ নং এ; এবং আবুল আলীয়া হতে ইবনু আবী শাইবা ৯/২০ নং ৬৩৬৭; আব্দুল্লাহ ইবনু আহমাদ, যাওয়াইদ আলা যুহদ লি আহমদ নং ১২০৮; আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ৪০ এ বর্ণিত হয়েছে।- ফাতহুল মান্নান, ৫৪৮ নং হাদীসের টীকা।);

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حَاتِمٍ الْمُكْتِبُ حَدَّثَنَا قَاسِمُ هُوَ ابْنُ مَالِكٍ حَدَّثَنَا لَيْثٌ عَنْ طَاوُسٍ قَالَ كَانَ إِذَا جَلَسَ إِلَيْهِ الرَّجُلُ أَوْ الرَّجُلَانِ قَامَ فَتَنَحَّى

إسناده ضعيف لضعف ليث وهو: ابن أبي سليم

أخبرنا محمد بن حاتم المكتب حدثنا قاسم هو ابن مالك حدثنا ليث عن طاوس قال كان إذا جلس إليه الرجل أو الرجلان قام فتنحى إسناده ضعيف لضعف ليث وهو: ابن أبي سليم

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ তাঊস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৪. আবু বারযা’ আল-আসলামী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “কিয়ামত দিবসে কোনো বান্দার পা ততক্ষণ পর্যন্ত নড়বে না, যতক্ষণ না তাকে জিজ্ঞেস করা হবে: কোন্ কাজে তার জীবন অতিবাহিত করেছে এবং ইলম অনুযায়ী কতটুকু আমল করেছে এবং তার ধন-সম্পদ কোথা হতে উপার্জন করেছে এবং তা কোথায় ব্যয় করেছে; এবং তার দেহ কোন্ কাজের মধ্য দিয়ে জীর্ণ করেছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান আবী বাকর ইবনু আয়াশ এর কারণে। তবে হাদীসটি সহীহ।

তাখরীজ: আমরা মুসনাদুল মাউসিলী নং ৭৪৩৪ এ এর শাহিদ সহ বিস্তারিত তাখরীজ করেছি। এটি আরও বর্ণিত হয়েছে, তাবারাণী, আওসাত ৩/১০৫ নং ২২১২ অভিযুক্ত সনদে। (তিরমিযী, ২৪১৯ তিনি বলেন: হাদীস হাসান সহীহ; আবু ইয়ালা ৭৪৩৪; বাইহাকী, আল মাদখাল নং ৪৯৪; মিযযী, তাহযীবুল কামাল ১০/৫১৮; খতীব, ইকতিদাউল ইলম পৃ: ১৭-১৮ নং ১; আজুরী, আখলাকুল উলামা ১৩৫পৃ:; আবু নুয়াইম, হিলইয়া ১০/২৩২।- মুহাক্কিক্বের তাহক্বীক্ব, মুসনাদুল মাউসিলী নং ৭৪৩৪ ও ফাতহুল মান্নান নং ৫৬৪ এর টীকা।); পরবর্তী হাদীসটিও দেখুন।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا أَسْوَدُ بْنُ عَامِرٍ حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ عَنْ الْأَعْمَشِ عَنْ سَعِيدِ بْنِ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ جُرَيْجٍ عَنْ أَبِي بَرْزَةَ الْأَسْلَمِيِّ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ لَا تَزُولُ قَدَمَا عَبْدٍ يَوْمَ الْقِيَامَةِ حَتَّى يُسْأَلَ عَنْ عُمُرِهِ فِيمَا أَفْنَاهُ وَعَنْ عِلْمِهِ مَا فَعَلَ بِهِ وَعَنْ مَالِهِ مِنْ أَيْنَ اكْتَسَبَهُ وَفِيمَا أَنْفَقَهُ وَعَنْ جِسْمِهِ فِيمَا أَبْلَاهُ

إسناده حسن من أجل أبي بكر بن عياش والحديث صحيح

أخبرنا أسود بن عامر حدثنا أبو بكر عن الأعمش عن سعيد بن عبد الله بن جريج عن أبي برزة الأسلمي قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم لا تزول قدما عبد يوم القيامة حتى يسأل عن عمره فيما أفناه وعن علمه ما فعل به وعن ماله من أين اكتسبه وفيما أنفقه وعن جسمه فيما أبلاه إسناده حسن من أجل أبي بكر بن عياش والحديث صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবূ বারযা আল-আসলামী (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৫. মু’য়ায ইবনু জাবাল রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: কিয়ামত দিবসে যেদিন মানুষ বিশ্ব জগতের প্রতিপালকের সম্মুখে দণ্ডায়মান হবে, সেদিন আল্লাহ বান্দাদেরকে ততক্ষণ পর্যন্ত ছাড়বেন না, যতক্ষণ না তাদেরকে চারটি ব্যাপারে জিজ্ঞেস করবেন: কোন্ কাজে তারা তাদের জীবন অতিবাহিত করেছে, তাদের দেহগুলিকে কোন্ কাজের মধ্য দিয়ে তারা জীর্ণ করেছে, তারা কী উপার্জন করেছে আর কোন্ কাজে তা ব্যয় করেছে. আর তাদের ইলম অনুযায়ী কতটুকু আমল করেছে ।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, এতে অজ্ঞাত পরিচয় রাবী রয়েছে। পরের টীকাটি দেখুন।

তাখরীজ: (মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি- অনুবাদক)

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا سَعِيدُ بْنُ مَنْصُورٍ حَدَّثَنَا عَبْدُ الْعَزِيزِ بْنُ مُحَمَّدٍ عَنْ عُمَارَةَ بْنِ غَزِيَّةَ عَنْ يَحْيَى بْنِ رَاشِدٍ حَدَّثَنِي فُلَانٌ الْعُرَنِيُّ عَنْ مُعَاذِ بْنِ جَبَلٍ قَالَ لَا يَدَعُ اللَّهُ الْعِبَادَ يَوْمَ الْقِيَامَةِ يَوْمَ يَقُومُ النَّاسُ لِرَبِّ الْعَالَمِينَ حَتَّى يَسْأَلَهُمْ عَنْ أَرْبَعٍ عَمَّا أَفْنَوْا فِيهِ أَعْمَارَهُمْ وَعَمَّا أَبْلَوْا فِيهِ أَجْسَادَهُمْ وَعَمَّا كَسَبُوا فِيمَا أَنْفَقُوا وَعَمَّا عَمِلُوا فِيمَا عَلِمُوا

إسناده ضعيف فيه جهالة

أخبرنا سعيد بن منصور حدثنا عبد العزيز بن محمد عن عمارة بن غزية عن يحيى بن راشد حدثني فلان العرني عن معاذ بن جبل قال لا يدع الله العباد يوم القيامة يوم يقوم الناس لرب العالمين حتى يسألهم عن أربع عما أفنوا فيه أعمارهم وعما أبلوا فيه أجسادهم وعما كسبوا فيما أنفقوا وعما عملوا فيما علموا إسناده ضعيف فيه جهالة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ মু‘আয বিন জাবাল (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৬. মু’য়ায ইবনু জাবাল রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, কিয়ামত দিবসে কোনো বান্দার পা দু’টি ততক্ষণ পর্যন্ত নড়বে না, যতক্ষণ না তাকে চারটি বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হবে: কোন্ কাজে তার জীবন অতিবাহিত করেছে এবং তার দেহ কোন্ কাজের মধ্য দিয়ে জীর্ণ করেছে, তার ধন-সম্পদ কোথা হতে উপার্জন করেছে আর তা কোথায় ব্যয় করেছে এবং ইলম অনুযায়ী কতটুকু আমল করেছে।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। আর এটি মাওকুফ।

তাখরীজ: মুরসাল হিসেবেও এটি বর্ণনা করেছেন বাযযার, কাশফুল আসতার ৪/১৫৮ নং ৩৪৩৮; খতীব, ইকতিদাউল ইলম নং ৩; এর সনদও যয়ীফ।

এছাড়া বাযযার নং ৩৪৩৭; খতীব, ইক্বতিদাউল ইলম নং ২; তারীখ বাগদাদ ১১/৪৪১-৪৪২; বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান নং ১৭৮৫; তামাম, ফাওয়াইদ নং ১৪৮০ অপর সনদে মুয়ায ইবনু জাবাল রা: হতে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন….। এ সনদ সহীহ।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ لَيْثٍ عَنْ عَدِيِّ بْنِ عَدِيٍّ عَنْ أَبِي عَبْدِ اللَّهِ الصُّنَابِحِيِّ عَنْ مُعَاذِ بْنِ جَبَلٍ قَالَ لَا تَزُولُ قَدَمَا عَبْدٍ يَوْمَ الْقِيَامَةِ حَتَّى يُسْأَلَ عَنْ أَرْبَعٍ عَنْ عُمُرِهِ فِيمَا أَفْنَاهُ وَعَنْ جَسَدِهِ فِيمَا أَبْلَاهُ وَعَنْ مَالِهِ مِنْ أَيْنَ اكْتَسَبَهُ وَفِيمَا وَضَعَهُ وَعَنْ عِلْمِهِ مَاذَا عَمِلَ فِيهِ

إسناده ضعيف وهوموقوف

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان عن ليث عن عدي بن عدي عن أبي عبد الله الصنابحي عن معاذ بن جبل قال لا تزول قدما عبد يوم القيامة حتى يسأل عن أربع عن عمره فيما أفناه وعن جسده فيما أبلاه وعن ماله من أين اكتسبه وفيما وضعه وعن علمه ماذا عمل فيه إسناده ضعيف وهوموقوف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ মু‘আয বিন জাবাল (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৭. লাইছ বলেন, আমাকে তাউস রাহিমাহুল্লাহ বলেন: তুমি যে জ্ঞানই শিক্ষা করবে, তা কেবল নিজের (আমলের) জন্যই শিক্ষা করবে। কেননা, লোকদের মাঝ থেকে আস্থা (’আমানত’) উঠে গেছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, লাইছ ইবনু আবী সালীম যয়ীফ হওয়ার কারণে।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ১৩/৫১০ নং ১৭০৮৬; রমহরমুযী নং ৭০৪; আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৪/১১; ইবনু আব্দুল বারর, জামি’ বায়ানুল ইলম নং ৮৮৪, ১১৫৫।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ لَيْثٍ قَالَ قَالَ لِي طَاوُسٌ مَا تَعَلَّمْتَ فَتَعَلَّمْ لِنَفْسِكَ فَإِنَّ النَّاسَ قَدْ ذَهَبَتْ مِنْهُمْ الْأَمَانَةُ

إسناده ضعيف لضعف ليث بن أبي سليم

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان عن ليث قال قال لي طاوس ما تعلمت فتعلم لنفسك فإن الناس قد ذهبت منهم الأمانة إسناده ضعيف لضعف ليث بن أبي سليم

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ লাইস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৫. যে ব্যক্তি প্রসিদ্ধি ও পরিচিতিকে অপছন্দ করে

৫৫৮. হাসান রাহিমাহুল্লাহ বলেন: আমি লোকদেরকে (এমন অবস্থায়) পেয়েছি, কোন ইবাদতগুজার লোক যখন ইবাদত করে, তাকে তার কথা দ্বারা চেনা যায় না; বরং তাকে চেনা যায় তার আমল দ্বারা। আর এটিই হলো উপকারী ইলম।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ مَنْ كَرِهَ الشُّهْرَةَ وَالْمَعْرِفَةَ

أَخْبَرَنَا سُلَيْمَانُ بْنُ حَرْبٍ عَنْ عُمَارَةَ بْنِ مِهْرَانَ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ أَدْرَكْتُ النَّاسَ وَالنَّاسِكُ إِذَا نَسَكَ لَمْ يُعْرَفْ مِنْ قِبَلِ مَنْطِقِهِ وَلَكِنْ يُعْرَفُ مِنْ قِبَلِ عَمَلِهِ فَذَلِكَ الْعِلْمُ النَّافِعُ

إسناده صحيح

أخبرنا سليمان بن حرب عن عمارة بن مهران عن الحسن قال أدركت الناس والناسك إذا نسك لم يعرف من قبل منطقه ولكن يعرف من قبل عمله فذلك العلم النافع إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৫৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৫৯. আব্দুল্লাহ ইবনু উমার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি, তিন বলেন: “আমার নিকট থেকে একটি শিক্ষা (আয়াত) হলেও তা তা প্রচার করবে। বনী ইসরাঈলের থেকে বর্ণনা করতে পার, এতে কোনো দোষ নেই। কিন্তু যে ব্যক্তি আমার উপর স্বেচ্ছায় মিথ্যারোপ করে, সে যেন জাহান্নামকে তার আবাস-ঠিকানা বানিয়ে নেয়।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: সহীহ বুখারী, ৩৪৯১; তিরমিযী ২৬৭১; আহমদ, ২/১৫৯, ২০২; আব্দুর রাযযাক, আল মুসান্নাফ ৬/১০৯ নং ১০১৫৭; তাহাবী, মুশকিলুল আছার ১/৪০, ১৬৯; আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ৪৫; খতীব, তারীখ বাগদাদ ১৩/১৫৭; বাগাবী, শারহুস সুন্নাহ ১/২৪৩ নং ১১৩; আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৬/৭৮; কুদায়ী, মুসনাদুশ শিহাব নং ৬৬২ সংক্ষেপে প্রথম অংশ; ইবনু আব্দুল বারর, জামি’ বায়ান নং ১৪৮৩; সহীহ ইবনু হিব্বান নং ৬২৫৬।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا أَبُو الْمُغِيرَةِ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ عَنْ حَسَّانَ عَنْ أَبِي كَبْشَةَ قَالَ سَمِعْتُ عَبْدَ اللَّهِ بْنَ عَمْرٍو قَالَ سَمِعْتُ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ بَلِّغُوا عَنِّي وَلَوْ آيَةً وَحَدِّثُوا عَنْ بَنِي إِسْرَائِيلَ وَلَا حَرَجَ وَمَنْ كَذَبَ عَلَيَّ مُتَعَمِّدًا فَلْيَتَبَوَّأْ مَقْعَدَهُ مِنْ النَّارِ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو المغيرة حدثنا الأوزاعي عن حسان عن أبي كبشة قال سمعت عبد الله بن عمرو قال سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول بلغوا عني ولو آية وحدثوا عن بني إسرائيل ولا حرج ومن كذب علي متعمدا فليتبوأ مقعده من النار إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবন উমর (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬০. আবু যার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন যে, তিনটি বিষয়ে যেন আমরা পরাভূত না হই: আমরা যেন ভাল কাজের আদেশ করি এবং অন্যায় কাজে নিষেধ করি এবং লোকদেরকে যেন সুন্নাত শিক্ষা দিতে থাকি।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, ইনকিতা’র (বিচ্ছিন্নতার) কারণে। কাসিম ইবনু আউফ আবু যার-এর সাক্ষাত লাভ করেননি।

তাখরীজ: আহমদ ৫/১৬৫; বাইহাকী, আল ই’তিকাদ পৃ: ১৫৪ অজ্ঞাত সনদে।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا عَلِيُّ بْنُ حُجْرٍ السَّعْدِيُّ أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ أَخْبَرَنَا الْعَوَّامُ بْنُ حَوْشَبٍ أَبُو عِيسَى الشَّيْبَانِيُّ حَدَّثَنَا الْقَاسِمُ بْنُ عَوْفٍ الشَّيْبَانِيُّ عَنْ أَبِي ذَرٍّ قَالَ أَمَرَنَا رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ لَا يَغْلِبُونَا عَلَى ثَلَاثٍ أَنْ نَأْمُرَ بِالْمَعْرُوفِ وَنَنْهَى عَنْ الْمُنْكَرِ وَنُعَلِّمَ النَّاسَ السُّنَنَ

إسناده ضعيف لانقطاعه القاسم بن عوف لم يدرك أبا ذر

أخبرنا علي بن حجر السعدي أخبرنا يزيد بن هارون أخبرنا العوام بن حوشب أبو عيسى الشيباني حدثنا القاسم بن عوف الشيباني عن أبي ذر قال أمرنا رسول الله صلى الله عليه وسلم أن لا يغلبونا على ثلاث أن نأمر بالمعروف وننهى عن المنكر ونعلم الناس السنن إسناده ضعيف لانقطاعه القاسم بن عوف لم يدرك أبا ذر

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আবূ যার আল-গিফারী (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬১. সুলাইম ইবনু আমির বলেন, আমরা আবু উমামাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু’র নিকট বসা অবস্থায় তিনি যখন কোনো গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ সংক্রান্ত হাদীস বর্ণনা করতেন, তখন তিনি আমাদেরকে বলতেন: তোমরা (ভাল করে) শোনো, বুঝে নাও এবং আমাদের পক্ষ হতে তোমরা যা শুন, তা প্রচার কর।

সুলাইম বলেন: সেই স্থান, যেখানে সে যা জানল, সেই ব্যাপারে সেটি সাক্ষ্য প্রদান করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাবারানী, আল কাবীর ৮/১৭৮ নং ৭৬৭৩; ইবনু আব্দুল বার, আল জামি’ নং ৭২৬; এর পূর্ণ তাখরীজ আমরা দিয়েছি মাজমাউয যাওয়াইদ নং ৬০১ এ।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا أَبُو الْمُغِيرَةِ حَدَّثَنَا صَفْوَانُ حَدَّثَنِي سُلَيْمُ بْنُ عَامِرٍ قَالَ كَانَ أَبُو أُمَامَةَ إِذَا قَعَدْنَا إِلَيْهِ يَجِيئُنَا مِنْ الْحَدِيثِ بِأَمْرٍ عَظِيمٍ وَيَقُولُ لَنَا اسْمَعُوا وَاعْقِلُوا وَبَلِّغُوا عَنَّا مَا تَسْمَعُونَ قَالَ سُلَيْمٌ بِمَنْزِلَةِ الَّذِي يُشْهِدُ عَلَى مَا عَلِمَ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو المغيرة حدثنا صفوان حدثني سليم بن عامر قال كان أبو أمامة إذا قعدنا إليه يجيئنا من الحديث بأمر عظيم ويقول لنا اسمعوا واعقلوا وبلغوا عنا ما تسمعون قال سليم بمنزلة الذي يشهد على ما علم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সুলাইম ইবনু আমির (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬২. আবু কাছীর বলেন, আমার পিতা বলেন: আমি আবু যার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুর নিকট গেলাম। তিনি মধ্য জামরার নিকট বসে ছিলেন আর তার নিকট লোকেরা এসে জড়ো হয়ে তাকে প্রশ্ন করা শুরু করেছে। তখন এক ব্যক্তি[1] এসে তার নিকট জানতে চাইলেন এবং বললেন: আপনাকে কি ফতোয়া দেয়া হতে নিষেধ করা হয়নি? তখন তিনি তাঁর দিকে মাথা তুলে তাকালেন এবং বললেন, আপনি আমার উপর (নিযুক্ত) তত্ত্বাবধায়ক নাকি? আপনারা যদি এখানে তরবারী ঝুলিয়ে রাখুন- বলে তিনি তার ঘাড়ের দিকে ইঙ্গিত করলেন- আর আমার মনে হয় যে, আপনারা আমাকে শাস্তি দেওয়ার পূর্বে আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে শোনা একটি কথাও বাস্তবায়ন করতে পারবো, তবে অবশ্যই আমি তা বাস্তবায়ন করবো।[2]

[1] তিনি ছিলেন খলীফা উসমান রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু- ফাতহুল মান্নান হা/৫৭২ এর ব্যাখ্যা দ্র:।

[2] তাহক্বীক্ব: (ইমাম দারানী (রহঃ) বলেন,) এর সনদ আমার মতে যয়ীফ। আবু কাছীর এর পিতাকে আমি চিনি না।

তাখরীজ: আবু নুয়াইম, হিলইয়া ১/১৬০।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ الْوَهَّابِ بْنُ سَعِيدٍ حَدَّثَنَا شُعَيْبٌ هُوَ ابْنُ إِسْحَقَ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ حَدَّثَنِي أَبُو كَثِيرٍ حَدَّثَنِي أَبِي قَالَ أَتَيْتُ أَبَا ذَرٍّ وَهُوَ جَالِسٌ عِنْدَ الْجَمْرَةِ الْوُسْطَى وَقَدْ اجْتَمَعَ النَّاسُ عَلَيْهِ يَسْتَفْتُونَهُ فَأَتَاهُ رَجُلٌ فَوَقَفَ عَلَيْهِ ثُمَّ قَالَ أَلَمْ تُنْهَ عَنْ الْفُتْيَا فَرَفَعَ رَأْسَهُ إِلَيْهِ فَقَالَ أَرَقِيبٌ أَنْتَ عَلَيَّ لَوْ وَضَعْتُمْ الصَّمْصَامَةَ عَلَى هَذِهِ وَأَشَارَ إِلَى قَفَاهُ ثُمَّ ظَنَنْتُ أَنِّي أُنْفِذُ كَلِمَةً سَمِعْتُهَا مِنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَبْلَ أَنْ تُجِيزُوا عَلَيَّ لَأَنْفَذْتُهَا

إسناده ضعيف

أخبرنا عبد الوهاب بن سعيد حدثنا شعيب هو ابن إسحق حدثنا الأوزاعي حدثني أبو كثير حدثني أبي قال أتيت أبا ذر وهو جالس عند الجمرة الوسطى وقد اجتمع الناس عليه يستفتونه فأتاه رجل فوقف عليه ثم قال ألم تنه عن الفتيا فرفع رأسه إليه فقال أرقيب أنت علي لو وضعتم الصمصامة على هذه وأشار إلى قفاه ثم ظننت أني أنفذ كلمة سمعتها من رسول الله صلى الله عليه وسلم قبل أن تجيزوا علي لأنفذتها إسناده ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আবু কাসীর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৩. আবুল আলীয়া বলেন: আমি ইবনু আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু আনহুমাকে কোনো একটি বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন: হে আবুল আলীয়া! তুমি কি মুফতী হতে চাও? তখন আমি বললাম, না। কিন্তু আমি এ আশংকা থেকে মুক্ত নই যে, আপনারা চলে যাবেন আর আমরা রয়ে যাব। তখন তিনি বলেন: আবুল আলীয়া সত্যই বলেছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এ হাদীসটি এখানে ব্যতীত আর কোথাও পাইনি।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا عَبَّادٌ هُوَ ابْنُ الْعَوَّامِ عَنْ عَوْفٍ عَنْ أَبِي الْعَالِيَةِ قَالَ سَأَلْتُ ابْنَ عَبَّاسٍ عَنْ شَيْءٍ فَقَالَ يَا أَبَا الْعَالِيَةِ أَتُرِيدُ أَنْ تَكُونَ مُفْتِيًا فَقُلْتُ لَا وَلَكِنْ لَا آمَنُ أَنْ تَذْهَبُوا وَنَبْقَى فَقَالَ صَدَقَ أَبُو الْعَالِيَةِ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا عباد هو ابن العوام عن عوف عن أبي العالية قال سألت ابن عباس عن شيء فقال يا أبا العالية أتريد أن تكون مفتيا فقلت لا ولكن لا آمن أن تذهبوا ونبقى فقال صدق أبو العالية إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবুল আলীয়া (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৪. ইবরাহীম হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: উবাইদুল্লাহ প্রত্যেক বৃহস্পতিবারে আব্দুল্লাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু’র নিকট আসতেন এবং অনেক অজানা বিষয়ে প্রশ্ন করতেন। তারপর উবাইদুল্লাহ যে সকল বিষয়ে আবদুল্লাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুকে প্রশ্ন করতেন, লোকেরা সেগুলো আবদুল্লাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু-এর নিকট হতে মুখস্ত রাখতে পারতো না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ৯/৪৬ নং ৬৪৬৯; ইবনু সা’দ, আত তাবাকাত ৬/১২৪ সহীহ সনদে।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا عَبَّادٌ عَنْ حُصَيْنٍ عَنْ إِبْرَاهِيمَ قَالَ كَانَ عَبِيدَةُ يَأْتِي عَبْدَ اللَّهِ كُلَّ خَمِيسٍ فَيَسْأَلُهُ عَنْ أَشْيَاءَ غَابَ عَنْهَا فَكَانَ عَامَّةُ مَا يُحْفَظُ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ مِمَّا يَسْأَلُهُ عَبِيدَةُ عَنْهُ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا عباد عن حصين عن إبراهيم قال كان عبيدة يأتي عبد الله كل خميس فيسأله عن أشياء غاب عنها فكان عامة ما يحفظ عن عبد الله مما يسأله عبيدة عنه إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইব্রাহীম আন-নাখঈ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৫. সাঈদ ইবনু ইয়াযীদ বলেন: আমি ইকরিমাহ রাহি.-কে বলতে শুনেছি: তোমাদের কী হলো যে, তোমরা আমাকে প্রশ্ন করছো না? তাহলে তো তোমরা (ইলমের দিক দিয়ে) নিঃস্ব হয়ে যাবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ৯/৪৫-৪৬ নং ১০৭০; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ান নং ৭৪৪।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا الْحَكَمُ بْنُ الْمُبَارَكِ حَدَّثَنَا غَسَّانُ هُوَ ابْنُ مُضَرَ عَنْ سَعِيدِ بْنِ يَزِيدَ قَالَ سَمِعْتُ عِكْرِمَةَ يَقُولُ مَا لَكُمْ لَا تَسْأَلُونِي أَفْلَسْتُمْ

إسناده صحيح

أخبرنا الحكم بن المبارك حدثنا غسان هو ابن مضر عن سعيد بن يزيد قال سمعت عكرمة يقول ما لكم لا تسألوني أفلستم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সাঈদ ইবনু ইয়াযীদ (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৬. ইবনু শিহাব হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: ইলম হলো বিশাল খাযানাসমূহ’ (ধনভাণ্ডার), যার প্রবেশ দ্বার হলো প্রশ্ন করা।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ আমির ইবনু সালিহ হলেন ইবনু আব্দুল্লাহ ইবনু উরওয়াহ, তিনি মাতরুকুল হাদীস বা হাদীস বর্ণনার ক্ষেত্রে পরিত্যক্ত রাবী। অন্যান্য রাবীগণ নির্ভরযোগ্য।

তাখরীজ: ফাসাওয়ী, আল মা’রেফাহ ১/৬৩৪; আবু ‍নুয়াইম, হিলইয়া ৩/৩৬২; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ান নং ৫৩৪ যয়ীফ সনদে, আর মুহাক্কিক্ব উসতায আবুল ইশবাল যুহাইরী জামি’র তাহক্বীক্বে একে হাসান বলে ভুল করেছেন।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حَاتِمٍ الْمُكْتِبُ حَدَّثَنَا عَامِرُ بْنُ صَالِحٍ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ ابْنِ شِهَابٍ قَالَ الْعِلْمُ خَزَائِنُ وَتَفْتَحُهَا الْمَسْأَلَةُ

عامر بن صالح هو ابن عبد الله بن عروة متروك الحديث

أخبرنا محمد بن حاتم المكتب حدثنا عامر بن صالح حدثنا يونس عن ابن شهاب قال العلم خزائن وتفتحها المسألة عامر بن صالح هو ابن عبد الله بن عروة متروك الحديث

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু শিহাব আয-যুহরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৭. জারীর হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইবরাহীম বলেন: যে (প্রশ্ন করতে) লজ্জা পায়, তার ইলমও কম হয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا إِبْرَاهِيمُ بْنُ إِسْحَقَ عَنْ جَرِيرٍ قَالَ قَالَ إِبْرَاهِيمُ مَنْ رَقَّ وَجْهُهُ رَقَّ عِلْمُهُ

إسناده صحيح

أخبرنا إبراهيم بن إسحق عن جرير قال قال إبراهيم من رق وجهه رق علمه إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ জারীর ইবনু আবদুল্লাহ আল বাজলী (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৮. শা’বী বলেন: যে (প্রশ্ন করতে) লজ্জা পায়, তার ইলমও কম হয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটিও আমি অন্যত্র পাইনি।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

وَوَكِيعٌ عَنْ أَبِيهِ عَنْ الشَّعْبِيِّ قَالَ مَنْ رَقَّ وَجْهُهُ رَقَّ عِلْمُهُ

إسناده صحيح

ووكيع عن أبيه عن الشعبي قال من رق وجهه رق علمه إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ শা‘বী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৬৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৬৯. হাফস ইবনু উমার বলেন, উমার ইবনুল খাত্ত্বাব রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: যে (প্রশ্ন করতে) লজ্জা পায়, তার ইলমও কম হয়। [1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, হাফস ইবনু উমার মাজহুল বা অজ্ঞাত পরিচয়। অন্যান্য রাবীগণ নির্ভরযোগ্য।

তাখরীজ: এটিও আমি অন্যত্র পাইনি।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

وَعَنْ ضَمْرَةَ عَنْ حَفْصِ بْنِ عُمَرَ قَالَ قَالَ عُمَرُ بْنُ الْخَطَّابِ مَنْ رَقَّ وَجْهُهُ رَقَّ عِلْمُهُ

اسناد ضعيف حفص ابن عمر الشامي مجهول

وعن ضمرة عن حفص بن عمر قال قال عمر بن الخطاب من رق وجهه رق علمه اسناد ضعيف حفص ابن عمر الشامي مجهول

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাফস ইবনু উমার  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭০. মুজাহিদ বলেন: যে লোক লজ্জা করে এবং অহংকার করে, সে ইলম শিক্ষা করতে পারে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, এতে জাহালত বা রাবীর পরিচয়হীনতা রয়েছে। তবে (আবূ নুয়াইম মুত্তাসিল হিসেবে বর্ণনা করেছেন, যার সনদ সহীহ। তাখরীজ দেখুন,- অনুবাদক)

তাখরীজ: আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৩/২৮৭ অপর একটি সহীহ সনদে; কাযী আয়ায আল ইলমা’ পৃ: ৫৩; বুখারী তা’লীক হিসেবে, ‘ইলমের ব্যাপারে লজ্জা করা’ অনুচ্ছেদে।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا إِبْرَاهِيمُ بْنُ إِسْحَقَ عَنْ جَرِيرٍ عَنْ رَجُلٍ عَنْ مُجَاهِدٍ قَالَ لَا يَتَعَلَّمُ مَنْ اسْتَحْيَا وَاسْتَكْبَرَ

إسناده ضعيف فيه جهالة

أخبرنا إبراهيم بن إسحق عن جرير عن رجل عن مجاهد قال لا يتعلم من استحيا واستكبر إسناده ضعيف فيه جهالة

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুজাহিদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭১. হিশাম ইবনু উরওয়াহ তার পিতা হতে বর্ণনা করেন, তিনি তার ছেলেদেরকে একত্রিত করে বলতেন: হে আমার পুত্রগণ! তোমরা ইলম শিক্ষা কর। কারণ, যদিও তোমরা এখন ক্বওমের মধ্যে ছোট আছো। কিন্তু অচিরেই তোমরা অন্যদের থেকে বড় হয়ে যাবে। একজন বয়স্ক লোকের জন্য এর চেয়ে নিকৃষ্টতর আর কিছু নেই যে, তাকে কোনো বিষয়ে জিজ্ঞাসা করা হবে কিন্তু সেই বিষয়ে তার জানা নেই।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: রমহারমুযী, আল মুহাদ্দিসুল ফাসিল নং ৬৮; ইয়া’কুব আল ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাতু ওয়াত তারীখ ১/৫৫১ সহীহ সনদে; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানুল ইলম নং ৪৮৭।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ أَحْمَدَ بْنِ أَبِي خَلَفٍ حَدَّثَنَا أَنَسُ بْنُ عِيَاضٍ عَنْ هِشَامِ بْنِ عُرْوَةَ عَنْ أَبِيهِ أَنَّهُ كَانَ يَجْمَعُ بَنِيهِ فَيَقُولُ يَا بَنِيَّ تَعَلَّمُوا فَإِنْ تَكُونُوا صِغَارَ قَوْمٍ فَعَسَى أَنْ تَكُونُوا كِبَارَ آخَرِينَ وَمَا أَقْبَحَ عَلَى شَيْخٍ يُسْأَلُ لَيْسَ عِنْدَهُ عِلْمٌ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن أحمد بن أبي خلف حدثنا أنس بن عياض عن هشام بن عروة عن أبيه أنه كان يجمع بنيه فيقول يا بني تعلموا فإن تكونوا صغار قوم فعسى أن تكونوا كبار آخرين وما أقبح على شيخ يسأل ليس عنده علم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম ইবন উরওয়াহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭২. ইকরিমাহ বলেন, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা আমার দুই পায়ে বেড়ি পরাতেন এবং (এভাবে) আমাকে কুরআন ও সুন্নাহ শিক্ষা দিতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আল ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাতু ওয়াত তারীখ ২/৫; খতীব, আল ফাকীহ ওয়াল মুতাফাককিহ নং ১৭২।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد عن الزبير بن الخريت عن عكرمة قال كان ابن عباس يضع في رجلي الكبل ويعلمني القرآن والسنن

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد عن الزبير بن الخريت عن عكرمة قال كان ابن عباس يضع في رجلي الكبل ويعلمني القرآن والسنن إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইকরিমা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৩. ইয়াহইয়া ইবনু যুরাইছ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি সুফিয়ান রাহি.-কে বলতে শুনেছি: যে ব্যক্তি দ্রুত নেতা হয়ে যায়, সে ইলমের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। আর যে নেতা না হয়, সে ইলম তালাশ করতে থাকে, এভাবে এমনকি সে (একসময় পূর্ণতায়) উপনীত হয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, মুহাম্মদ ইবনু হামীদ যয়ীফ।

তাখরীজ: আমি এ শব্দে এটি পাইনি; অনুরূপ বর্ণনা করেছেন বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান নং ১৬৭০ যার সনদও যয়ীফ।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا يَحْيَى بْنُ الضُّرَيْسِ قَالَ سَمِعْتُ سُفْيَانَ يَقُولُ مَنْ تَرَأَّسَ سَرِيعًا أَضَرَّ بِكَثِيرٍ مِنْ الْعِلْمِ وَمَنْ لَمْ يَتَرَأَّسْ طَلَبَ وَطَلَبَ حَتَّى يَبْلُغَ

إسناده ضعيف لضعف محمد بن حميد

أخبرنا محمد بن حميد حدثنا يحيى بن الضريس قال سمعت سفيان يقول من ترأس سريعا أضر بكثير من العلم ومن لم يترأس طلب وطلب حتى يبلغ إسناده ضعيف لضعف محمد بن حميد

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইয়াহইয়া ইবনু যুরাইছ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৪. সালমান রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: যে ইলম বর্ণনা করা হয় না, তা সেই পুঞ্জীভূত সম্পদের মতো যা হতে ব্যয়/দান করা হয় না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১৩/৩৩৪ নং ১৬৫১৪; আবু খায়ছামাহ, আল ইলম নং ১২ সহীহ সনদে; আর এর শাহিদ আবু হুরাইরা রা: বর্ণিত হাদীস যা পরবর্তীতে আসছে।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ الْأَعْمَشِ عَنْ صَالِحِ بْنِ خَبَّابٍ عَنْ حُصَيْنِ بْنِ عُقْبَةَ عَنْ سَلْمَانَ قَالَ عِلْمٌ لَا يُقَالُ بِهِ كَكَنْزٍ لَا يُنْفَقُ مِنْهُ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان عن الأعمش عن صالح بن خباب عن حصين بن عقبة عن سلمان قال علم لا يقال به ككنز لا ينفق منه إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সালমান ফারসী (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৫. আবু হুরাইরা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “যে ইলম দ্বারা উপকার লাভ করা হয় না, তার দৃষ্টান্ত সেই পুঞ্জীভূত সম্পদের মতো যা থেকে আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করা হয় না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা ইবরাহীম ইবনু মুসলিম আলহিজরী যয়ীফ। তবে পূর্বের আছারটি (এবং নিম্নে উল্লেখিত শাহিদ হাদীসসমূহ) একে শক্তিশালী করে। (তবে এর নিম্নলিখিত শাহিদসমূহের মধ্যে ইবনু আব্দুল বাররা কর্তৃক সংকলিত ইবনু উমারের হাদীসটির সনদ জাইয়্যেদ বা উত্তম। তাখরীজে বিস্তারিত।-অনুবাদক)

তাখরীজ: আহমাদ ২/৪৪৯; বাযযার ১/১০০ নং ১৭৬; তাবারানী, আল আওসাত নং ৬৯৩ (মাজমাউল বাহরাইন নং ২২৯); আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ১৬২; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ৭৭৪, ৭৭৭ সকলেই যয়ীফ সনদে।

(আবু আসিম বলেন: এ অনুচ্ছেদে আবু হুরাইরা, ইবনু উমার, ইবনু মাসউদ থেকে মারফু’ হিসেবে এবং ইবনু আব্বাস হতে তার বক্তব্য হিসেবে হাদীস বর্ণিত আছে।)

ইবনু উমার রা: এর হাদীসটি বর্ণনা করেছেন ইবনু আব্দুল বার, আল জামি’ ১/১৪৮ এর সনদ জাইয়্যেদ জাইয়্যেদ;

ইবনু মাসউদ রা: এর হাদীসটি বর্ণনা করেছেন কুদায়ী, মুসনাদুশ শিহাব ১/১৮০ নং ২৬৩ যয়ীফ সনদে;

ইবনু আব্বাস রা: এর হাদীসটি বর্ণনা করেছেন তার বক্তব্য হিসেবে, বাইহাকী, আল-মাদখাল /৩৪৮, নং ৫৭৮। – ফাতহুল মান্নান হা/৫৮৪ এর টীকা – অনুবাদক)

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ حَدَّثَنَا أَبُو شِهَابٍ حَدَّثَنِي إِبْرَاهِيمُ عَنْ أَبِي عِيَاضٍ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مَثَلُ عِلْمٍ لَا يُنْتَفَعُ بِهِ كَمَثَلِ كَنْزٍ لَا يُنْفَقُ مِنْهُ فِي سَبِيلِ اللَّهِ

إسناده ضعيف لضعف إبراهيم بن مسلم الهجري

أخبرنا أحمد بن عبد الله حدثنا أبو شهاب حدثني إبراهيم عن أبي عياض عن أبي هريرة قال قال رسول الله صلى الله عليه وسلم مثل علم لا ينتفع به كمثل كنز لا ينفق منه في سبيل الله إسناده ضعيف لضعف إبراهيم بن مسلم الهجري

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৬. মুসা ইবনু ইয়াছার হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: আমার নিকট এ খবর পৌঁছেছে যে, সালমান রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু আবু দারদা’আ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু’র নিকট লিখে পাঠিয়েছিলেন যে, ইলম কুপসমূহের ন্যায়, যেগুলো মানুষ ঢেকে রাখে। এরপর তা তাকে এই এইভাবে আন্দোলিত/অভিভূত করে। ফলে আল্লাহ তা’আলা এর মাধ্যমে অনেক লোককে উপকৃত করেন। আর যে হিকমাত (জ্ঞানের কথা) আলাপ-আলোচনা করা হয় না, তা প্রাণহীন দেহের মতো। যে ইলম বর্ণনা করা হয় না, তা সেই ধনভাণ্ডারের মতো যা থেকে ব্যয় করা হয় না। আলিমের উপমা হচ্ছে অন্ধকার পথে একজন আলোকবর্তিকাবাহী লোকের মতো, যে ব্যক্তিই তাকে অতিক্রম করে, সেই তার আলো পায়। আর প্রত্যেকেই তার জন্য কল্যাণের দু’আ করে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ; ইবনু ইসহাক ‘আন ’আন পদ্ধতিতে বর্ণনা করেছেন, আর তিনি মুদাল্লিস। আবার এতে মুসা ইবনু ইয়াসার ও সালমান রা: এর মাঝে ইনিকিতা’ও রয়েছে। আল্লাহই ভাল জানেন।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ১৩/৩৩৪-৩৩৪ নং ১৬৫১৫ বিচ্ছিন্ন সনদে।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا يَعْلَى حَدَّثَنَا مُحَمَّدٌ هُوَ ابْنُ إِسْحَقَ عَنْ مُوسَى بْنِ يَسَارٍ عَمِّهِ قَالَ بَلَغَنِي أَنَّ سَلْمَانَ كَتَبَ إِلَى أَبِي الدَّرْدَاءِ إِنَّ الْعِلْمَ كَالْيَنَابِيعِ يَغْشَاهُنَّ النَّاسُ فَيَخْتَلِجُهُ هَذَا وَهَذَا فَيَنْفَعُ اللَّهُ بِهِ غَيْرَ وَاحِدٍ وَإِنَّ حِكْمَةً لَا يُتَكَلَّمُ بِهَا كَجَسَدٍ لَا رُوحَ فِيهِ وَإِنَّ عِلْمًا لَا يُخْرَجُ كَكَنْزٍ لَا يُنْفَقُ مِنْهُ وَإِنَّمَا مَثَلُ الْعَالِمِ كَمَثَلِ رَجُلٍ حَمَلَ سِرَاجًا فِي طَرِيقٍ مُظْلِمٍ يَسْتَضِيءُ بِهِ مَنْ مَرَّ بِهِ وَكُلٌّ يَدْعُو لَهُ بِالْخَيْرِ

إسناده ضعيف ابن إسحاق قد عنعن وهو مدلس

أخبرنا يعلى حدثنا محمد هو ابن إسحق عن موسى بن يسار عمه قال بلغني أن سلمان كتب إلى أبي الدرداء إن العلم كالينابيع يغشاهن الناس فيختلجه هذا وهذا فينفع الله به غير واحد وإن حكمة لا يتكلم بها كجسد لا روح فيه وإن علما لا يخرج ككنز لا ينفق منه وإنما مثل العالم كمثل رجل حمل سراجا في طريق مظلم يستضيء به من مر به وكل يدعو له بالخير إسناده ضعيف ابن إسحاق قد عنعن وهو مدلس

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ মুসা ইবনু ইয়াসার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৭. ইবরাহীম রাহিমাহুল্লাহ বলেন: মানুষের মৃত্যুর পর তিনটি প্রিয় জিনিস তার অনুসরণ করে: এমন সাদকাহ যা তার (মৃত্যুর) পরেও চালু থাকে, তার জন্য তার সন্তানের দু’আ এবং যে ইলম সে বিস্তার করে গিয়েছে, যার উপর লোকেরা তার (মৃত্যুর) পরও আমল করে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ, আর তা মাওকুফ তথা ইবরাহীমের বক্তব্য।

তাখরীজ: এটি আমি অন্য কোথাও পাইনি। পরবর্তী হাদীসটি দেখুন।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ الصَّلْتِ حَدَّثَنَا مَنْصُورُ بْنُ أَبِي الْأَسْوَدِ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ الشَّيْبَانِيِّ عَنْ حَمَّادٍ عَنْ إِبْرَاهِيمَ قَالَ يَتْبَعُ الرَّجُلَ بَعْدَ مَوْتِهِ ثَلَاثُ خِلَالٍ صَدَقَةٌ تَجْرِي بَعْدَهُ وَصَلَاةُ وَلَدِهِ عَلَيْهِ وَعِلْمٌ أَفْشَاهُ يُعْمَلُ بِهِ بَعْدَهُ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن الصلت حدثنا منصور بن أبي الأسود عن أبي إسحق الشيباني عن حماد عن إبراهيم قال يتبع الرجل بعد موته ثلاث خلال صدقة تجري بعده وصلاة ولده عليه وعلم أفشاه يعمل به بعده إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইব্রাহীম আন-নাখঈ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৮. আবু হুরাইরা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: যখন মানুষ মারা যায়, তখন তার সকল আমল বন্ধ হয়ে যায়, কেবল তিনটি জিনিস বাদে: এমন জ্ঞান যা দ্বারা উপকৃত হওয়া যায়, যে সাদাকাহ (দান) তার জন্য চালু থাকে এবং নেককার সন্তান যে তার জন্য দু’আ করতে থাকে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: সহীহ মুসলিম ১৬৩১; আহমদ ২/৩৭২ নং ৮৮৩৩; তিরমিযী ১৩৭৬; নাসাঈ ৩৬৫১; আবু দাউদ ২৮৮০।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

حَدَّثَنَا مُوسَى بْنُ إِسْمَعِيلَ حَدَّثَنِي إِسْمَعِيلُ بْنُ جَعْفَرٍ الْمَدَنِيُّ عَنْ الْعَلَاءِ بْنِ عَبْدِ الرَّحْمَنِ عَنْ أَبِيهِ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ عَنْ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ إِذَا مَاتَ الْإِنْسَانُ انْقَطَعَ عَنْهُ عَمَلُهُ إِلَّا مِنْ ثَلَاثٍ عِلْمٍ يُنْتَفَعُ بِهِ أَوْ صَدَقَةٍ تَجْرِي لَهُ أَوْ وَلَدٍ صَالِحٍ يَدْعُو لَهُ

إسناده صحيح

حدثنا موسى بن إسمعيل حدثني إسمعيل بن جعفر المدني عن العلاء بن عبد الرحمن عن أبيه عن أبي هريرة عن النبي صلى الله عليه وسلم قال إذا مات الإنسان انقطع عنه عمله إلا من ثلاث علم ينتفع به أو صدقة تجري له أو ولد صالح يدعو له إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৭৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৭৯. হাসান রাহি. হতে বর্ণিত, যখন আবু মুসা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বাসরায় আগমন করেন, তখন তিনি বলেন: উমার ইবনুল খাত্তাব রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু আমাকে তোমাদের নিকট পাঠিয়েছেন যেন আমি তোমাদেরকে তোমাদের রবের কিতাব ও তোমাদের (নবী’র) সুন্নাত শিক্ষা দেই এবং তোমাদের পন্থাসমূহ পরিষ্কার-পরিশুদ্ধ করে দেই।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। কেননা, হাসান বাসরী ‘আন ‘আন পদ্ধতিতে এটি বর্ণনা করেছেন। (তবে শব্দের হেরফের সহ অনুরূপ হাদীস সহীহ সনদে সংকলন করেছেন ইমাম হাকিম, তার মুসতাদরাক ১/৫৬৭ নং ২০৮৪ তে। সেখানে বাসরার পরবর্তে ইয়ামানের কথা এসেছে।- অনুবাদক)

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৮/৬৭০ নং ৫৯৭৪ মুনকাতি’ সনদে।

(তবে এর সহীহ শাহিদ হাদীস রয়েছে যা ইমাম হাকিম মুসতাদরাক ১/৫৬৭ নং ২০৮৪ তে আবূ মূসা রা: হতে বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মুয়ায রা: এবং আবূ মূসা রা: কে ইয়ামানে পাঠান এবং লোকদেরকে কুরআন শিক্ষাদান করতে নির্দেশ দেন।” ইমাম হাকিম ও যাহাবী এটিকে বুখারী মুসলিমের শর্তানুযায়ী সহীহ বলেছেন।-অনুবাদক)

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا عُبَيْدُ بْنُ يَعِيشَ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ صَالِحِ بْنِ رُسْتُمَ الْمُزَنِيِّ عَنْ الْحَسَنِ عَنْ أَبِي مُوسَى أَنَّهُ قَالَ حِينَ قَدِمَ الْبَصْرَةَ بَعَثَنِي إِلَيْكُمْ عُمَرُ بْنُ الْخَطَّابِ أُعَلِّمُكُمْ كِتَابَ رَبِّكُمْ وَسُنَّتَكُمْ وَأُنَظِّفُ طُرُقَكُمْ

إسناده ضعيف لعنعنة الحسن البصري

أخبرنا عبيد بن يعيش حدثنا يونس عن صالح بن رستم المزني عن الحسن عن أبي موسى أنه قال حين قدم البصرة بعثني إليكم عمر بن الخطاب أعلمكم كتاب ربكم وسنتكم وأنظف طرقكم إسناده ضعيف لعنعنة الحسن البصري

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৬. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) হতে (হাদীস) প্রচার ও সুন্নাত শিক্ষা দান

৫৮০. সাখবারাহ রদ্বিয়াল্লাহু আনহু নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে বর্ণনা করেন, তিনি বলেছেন: যে ব্যক্তি ইলম অন্বেষণ করে, তা তার বিগত জীবনের (পাপের) জন্য কাফফারা হয়ে যায়।[1]

[1] এর সনদ যয়ীফ, কেননা মুহাম্মদ ইবনু হামীদ যয়ীফ। এবং অন্ধ আবী দাউদ মাতরুক বা পরিত্যক্ত রাবী, ইবনু মাঈন তাকে মিথ্যাবাদী আখ্যায়িত করেছেন। (তিরমিযী বলেন: এর সনদ যয়ীফ।)

তাখরীজ: তিরমিযী, ২৬৫০।

بَابُ الْبَلَاغِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، وَتَعْلِيمِ السُّنَنِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ الْمُعَلَّى حَدَّثَنَا زِيَادُ بْنُ خَيْثَمَةَ عَنْ أَبِي دَاوُدَ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ سَخْبَرَةَ عَنْ سَخْبَرَةَ عَنْ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ مَنْ طَلَبَ الْعِلْمَ كَانَ كَفَّارَةً لِمَا مَضَى

هذا إسناد فيه محمد بن حميد وهو ضعيف

أخبرنا محمد بن حميد حدثنا محمد بن المعلى حدثنا زياد بن خيثمة عن أبي داود عن عبد الله بن سخبرة عن سخبرة عن النبي صلى الله عليه وسلم قال من طلب العلم كان كفارة لما مضى هذا إسناد فيه محمد بن حميد وهو ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ সাখবারাহ (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮১. আবু কিলাবাহ বলেন: আমি তিনদিন যাবত মদীনায় অবস্থান করে আমার সমস্ত প্রয়োজন শেষ করলাম। কিন্তু (জানতে পারলাম) তারা একটি লোকের জন্য প্রতীক্ষায় ছিল, যে একটি হাদীস বর্ণনা করবে। ফলে সেই লোকটি না আসা পর্যন্ত আমি (সেখানে) থেকে গেলাম এবং সে এলে আমি তাকে সেটি জিজ্ঞেস করলাম।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: রমহরমুযী, আল মুহাদ্দিসুল ফাসিল নং ১১২; খতীব, আর রিহলাতু ফী তলাবিল ইলম নং ৫৩, ৫৪ এবং ‘আল জামি’ নং ১৭৫২।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ أَيُّوبَ عَنْ أَبِي قِلَابَةَ قَالَ لَقَدْ أَقَمْتُ فِي الْمَدِينَةِ ثَلَاثًا مَا لِي حَاجَةٌ إِلَّا وَقَدْ فَرَغْتُ مِنْهَا إِلَّا أَنَّ رَجُلًا كَانُوا يَتَوَقَّعُونَهُ كَانَ يَرْوِي حَدِيثًا فَأَقَمْتُ حَتَّى قَدِمَ فَسَأَلْتُهُ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا حماد بن زيد عن أيوب عن أبي قلابة قال لقد أقمت في المدينة ثلاثا ما لي حاجة إلا وقد فرغت منها إلا أن رجلا كانوا يتوقعونه كان يروي حديثا فأقمت حتى قدم فسألته إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবূ কিলাবাহ্ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮২. ইবনু জাবির বলেন: আমি বুসর ইবনু উবাইদুল্লাহকে বলতে শুনেছি: আমি শুধুমাত্র একটি হাদীস শোনার জন্য শহরের পর শহরও ভ্রমণ করতে হতো, তবুও আমি সেটি শুনতাম।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, এতে ওয়ালীদ ইবনু মুসলিম ‘আন ‘আন পদ্ধতিতে বর্ণনা করেছেন, আর সে মুদাল্লিস হিসেবে মাশহুর (খ্যাত)।

তাখরীজ: আল ফাসাওয়ী, আল মা’রেফাতু ওয়াত তারীখ ৩/৩৮৬; খতীব, আর রিহলাতু ফী তলাবিল হাদীস নং ৫৭; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ৫৭৬।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا الْحَكَمُ بْنُ الْمُبَارَكِ حَدَّثَنَا الْوَلِيدُ عَنْ ابْنِ جَابِرٍ قَالَ سَمِعْتُ بُسْرَ بْنَ عُبَيْدِ اللَّهِ يَقُولُ إِنْ كُنْتُ لَأَرْكَبُ إِلَى مِصْرٍ مِنْ الْأَمْصَارِ فِي الْحَدِيثِ الْوَاحِدِ لِأَسْمَعَهُ

إسناده ضعيف الوليد بن مسلم قد عنعن وهو مشهور بالتدليس

أخبرنا الحكم بن المبارك حدثنا الوليد عن ابن جابر قال سمعت بسر بن عبيد الله يقول إن كنت لأركب إلى مصر من الأمصار في الحديث الواحد لأسمعه إسناده ضعيف الوليد بن مسلم قد عنعن وهو مشهور بالتدليس

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু জাবির (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৩. আবুল আলীয়া বলেন: আমরা যখন বসরায় রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবাগণের সূত্রে হাদীস শুনতাম, তখন আমরা মদীনায় সফর করে সেটি তাদের নিজেদের মুখে না শোনা পর্যন্ত তৃপ্ত হতাম না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আল ফাসাওয়ী, আল মা’রেফাতু ওয়াত তারীখ ১/৪৪১-৪৪২; খতীব, আর রিহলাতু ফী তলাবিল হাদীস নং ২১; আবু যুর’আহ, তারীখ নং ৯২৪; ইবনু আব্দুল বার, আত তামহীদ ১/৫৬ সহীহ সনদে।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا عَمْرُو بْنُ زُرَارَةَ أَخْبَرَنَا أَبُو قَطَنٍ عَمْرُو بْنُ الْهَيْثَمِ عَنْ أَبِي خَلْدَةَ عَنْ أَبِي الْعَالِيَةِ قَالَ كُنَّا نَسْمَعُ الرِّوَايَةَ بِالْبَصْرَةِ عَنْ أَصْحَابِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَلَمْ نَرْضَ حَتَّى رَكِبْنَا إِلَى الْمَدِينَةِ فَسَمِعْنَاهَا مِنْ أَفْوَاهِهِمْ

إسناده صحيح

أخبرنا عمرو بن زرارة أخبرنا أبو قطن عمرو بن الهيثم عن أبي خلدة عن أبي العالية قال كنا نسمع الرواية بالبصرة عن أصحاب رسول الله صلى الله عليه وسلم فلم نرض حتى ركبنا إلى المدينة فسمعناها من أفواههم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবুল আলীয়া (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৪. আব্দুল্লাহ ইবনু আব্দুর রহমান আল-কুশাইরী হতে, তিনি বলেন, নবী দাউদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন: ইলম শিক্ষার্থীকে বল, সে যেনো একটি লোহার লাঠি সাথে রাখে এবং একজোড়া লোহার জুতা পরিধান করে নেয় এরপর ইলম অন্বেষণ করতে থাকে যতক্ষণ না তার লাঠি ভেঙ্গে যায় এবং জুতা জোড়া ছিঁড়ে যায়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ অন্ধকারাচ্ছন্ন বা ‘মুযলিম’।

তাখরীজ: এসনদে এটি আমি আর কোথাও পাইনি।

তবে অন্য সনদে এটি বর্ণনা করেছেন ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ৫৭৭ (নবী মুসা আ: উপর অবতীর্ণ ওহীরূপে)।

দেখুন খতীব, আর রিহলাত, পৃ: ৮৬।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا نُعَيْمُ بْنُ حَمَّادٍ حَدَّثَنَا بَقِيَّةُ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ عَبْدِ الرَّحْمَنِ التُّسْتَرِيِّ قَالَ قَالَ دَاوُدُ النَّبِيُّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قُلْ لِصَاحِبِ الْعِلْمِ يَتَّخِذْ عَصًا مِنْ حَدِيدٍ وَنَعْلَيْنِ مِنْ حَدِيدٍ وَيَطْلُبْ الْعِلْمَ حَتَّى تَنْكَسِرَ الْعَصَا وَتَنْخَرِقَ النَّعْلَانِ

إسناده مظلم

أخبرنا نعيم بن حماد حدثنا بقية عن عبد الله بن عبد الرحمن التستري قال قال داود النبي صلى الله عليه وسلم قل لصاحب العلم يتخذ عصا من حديد ونعلين من حديد ويطلب العلم حتى تنكسر العصا وتنخرق النعلان إسناده مظلم

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল্লাহ ইবনু আব্দুর রহমান আল-কুশাইরী  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৫. ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা বলেন: আমি ইলম অন্বেষণ করতে থাকলাম ফলে আনসারগণের চেয়ে অধিক ইলম আর কোথাও পেলাম না। আমি (তাদের মধ্যকার) একজন লোকের নিকট আসতাম এবং তাকে প্রশ্ন করতাম। তখন উত্তরে আমাকে বলা হতো: তিনি ঘুমিয়ে আছেন। তখন আমার চাদরকে বালিশ বানিয়ে আমিও শুয়ে পড়তাম যতক্ষণ না তিনি যোহরের সময় বের হয়ে আসতেন। তারপর তিনি বলতেন: হে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের চাচার ছেলে! তুমি এখানে কতক্ষণ ধরে আছো? আমি বলতাম: অনেকক্ষণ ধরেই। তারপর তিনি বলতেন: তুমি যা করেছো তা খুবই খারাপ হয়েছে। তুমি কি আমাকে জানাতে পারো নি? তখন আমি বলতাম: আমি চেয়েছি, আপনি আপনার প্রয়োজন সেরে আমার নিকট বের হয়ে আসুন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এ সনদে হাজ্জাজ রয়েছে, তিনি হলেন: ইবনু আরতাহ’। তিনি যয়ীফ। তবে আছারটি সহীহ। দেখুন পরবর্তী ৫৮৬, ৫৯০ নং আছার দু’টি।

তাখরীজ: ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম, ৫৬৮, ৫৯২ নং এর টীকায় যয়ীফ ‍ও মুনকাতি’ সনদে; খতীব, আল জামি’ নং ২২১।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مَخْلَدُ بْنُ مَالِكٍ حَدَّثَنَا يَحْيَى بْنُ سَعِيدٍ الْأُمَوِيُّ حَدَّثَنَا الْحَجَّاجُ عَنْ حُصَيْنِ بْنِ عَبْدِ الرَّحْمَنِ مِنْ آلِ سَعْدِ بْنِ مُعَاذٍ قَالَ قَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ طَلَبْتُ الْعِلْمَ فَلَمْ أَجِدْهُ أَكْثَرَ مِنْهُ فِي الْأَنْصَارِ فَكُنْتُ آتِي الرَّجُلَ فَأَسْأَلُ عَنْهُ فَيُقَالُ لِي نَائِمٌ فَأَتَوَسَّدُ رِدَائِي ثُمَّ أَضْطَجِعُ حَتَّى يَخْرُجَ إِلَى الظُّهْرِ فَيَقُولُ مَتَى كُنْتَ هَا هُنَا يَا ابْنَ عَمِّ رَسُولِ اللَّهِ فَأَقُولُ مُنْذُ زَمَنٍ طَوِيلٍ فَيَقُولُ بِئْسَ مَا صَنَعْتَ هَلَّا أَعْلَمْتَنِي فَأَقُولُ أَرَدْتُ أَنْ تَخْرُجَ إِلَيَّ وَقَدْ قَضَيْتَ حَاجَتَكَ

في إسناده الحجاج وهو: ابن أرطاة وهو ضعيف

أخبرنا مخلد بن مالك حدثنا يحيى بن سعيد الأموي حدثنا الحجاج عن حصين بن عبد الرحمن من آل سعد بن معاذ قال قال ابن عباس طلبت العلم فلم أجده أكثر منه في الأنصار فكنت آتي الرجل فأسأل عنه فيقال لي نائم فأتوسد ردائي ثم أضطجع حتى يخرج إلى الظهر فيقول متى كنت ها هنا يا ابن عم رسول الله فأقول منذ زمن طويل فيقول بئس ما صنعت هلا أعلمتني فأقول أردت أن تخرج إلي وقد قضيت حاجتك في إسناده الحجاج وهو: ابن أرطاة وهو ضعيف

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৬. ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা বলেন: আনসারদের গোত্রের নিকট রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনেক হাদীস পাওয়া গিয়েছিলো। আল্লাহর কসম! যখনই আমি এ লোকটির নিকট আসতাম, তখনই আমাকে বলা হতো, তিনি ঘুমিয়ে আছেন। যদিও আমি চাইলে তাকে জাগাতে পারতাম, তারপরও তিনি নিজে বের না হওয়া পর্যন্ত আমি তাকে (সেই অবস্থায়) থাকতে দিতাম তার হাদীসের সম্মানার্থে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান।

তাখরীজ: আবু খাইছামা, আল ইলম নং ১৩৩; খতীব, আল জামি’ নং ২২৫; আল ফাকীহ ওয়াল মুতাফাককিহ নং ১০০১; ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাহ ১/৫৪০।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ يُونُسَ حَدَّثَنَا أَبُو بَكْرٍ عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ عَمْرٍو عَنْ أَبِي سَلَمَةَ بْنِ عَبْدِ الرَّحْمَنِ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ قَالَ وُجِدَ أَكْثَرُ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عِنْدَ هَذَا الْحَيِّ مِنْ الْأَنْصَارِ وَاللَّهِ إِنْ كُنْتُ لَآتِي الرَّجُلَ مِنْهُمْ فَيُقَالُ هُوَ نَائِمٌ فَلَوْ شِئْتُ أَنْ يُوقَظَ لِي فَأَدَعُهُ حَتَّى يَخْرُجَ لِأَسْتَطِيبَ بِذَلِكَ حَدِيثَهُ

إسناده حسن

أخبرنا أحمد بن عبد الله بن يونس حدثنا أبو بكر عن محمد بن عمرو عن أبي سلمة بن عبد الرحمن عن ابن عباس قال وجد أكثر حديث رسول الله صلى الله عليه وسلم عند هذا الحي من الأنصار والله إن كنت لآتي الرجل منهم فيقال هو نائم فلو شئت أن يوقظ لي فأدعه حتى يخرج لأستطيب بذلك حديثه إسناده حسن

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৭. আবু সালামাহ বলেন: আমি যদি ইবনু আব্বাসের সাথী হতে পারতাম, তবে অবশ্যই আমি তার নিকট হতে অনেক ইলম লাভ করতে পারতাম।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাতু ওয়াত তারীখ ১/৫৫৯; খতীব, আল জামি’ নং ৩৮৫ সহীহ সনদে।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا أَبُو مَعْمَرٍ إِسْمَعِيلُ بْنُ إِبْرَاهِيمَ عَنْ سُفْيَانَ بْنِ عُيَيْنَةَ عَنْ الزُّهْرِيِّ عَنْ أَبِي سَلَمَةَ قَالَ لَوْ رَفَقْتُ بِابْنِ عَبَّاسٍ لَأَصَبْتُ مِنْهُ عِلْمًا كَثِيرًا

إسناده صحيح

أخبرنا أبو معمر إسمعيل بن إبراهيم عن سفيان بن عيينة عن الزهري عن أبي سلمة قال لو رفقت بابن عباس لأصبت منه علما كثيرا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবূ সালামাহ্ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৮. যুহরী হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: আমি উরওয়াহ’ (রাহিমাহুল্লাহ) এর দরজায় আসতাম। তারপর তার দরজায় বসে যেতাম। আমি (তার নিকট) প্রবেশ করতে চাইলে প্রবেশ করতে পারতাম, কিন্তু তার সম্মানার্থে (আমি প্রবেশ করতাম না)।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: খতীব, আল জামি’ নং ২২২; ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাহ ১/৬৩৪; আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৩/৩৬২।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا بِشْرُ بْنُ الْحَكَمِ حَدَّثَنَا عَبْدُ الرَّزَّاقِ حَدَّثَنَا مَعْمَرٌ عَنْ الزُّهْرِيِّ قَالَ كُنْتُ آتِي بَابَ عُرْوَةَ فَأَجْلِسُ بِالْبَابِ وَلَوْ شِئْتُ أَنْ أَدْخُلَ لَدَخَلْتُ وَلَكِنْ إِجْلَالًا لَهُ

إسناده صحيح

أخبرنا بشر بن الحكم حدثنا عبد الرزاق حدثنا معمر عن الزهري قال كنت آتي باب عروة فأجلس بالباب ولو شئت أن أدخل لدخلت ولكن إجلالا له إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ যুহরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৮৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৮৯. ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: যখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মৃত্যুবরণ করলেন, তখন আমি আনসারদের এক লোককে বললাম, হে অমুক! চলুন, আমরা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাহাবীগণের নিকট (হাদীস সম্পর্কে) প্রশ্ন করি। তখন তিনি বললেন: ‍হে ইবনু আব্বাস! তুমি কী আশ্চর্যজনক কথা বলছো! তুমি কি মনে করো লোকেরা তোমার মুখাপেক্ষী হবে? যেখানে লোকদের মাঝে এখনও নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনেক সাহাবী বিদ্যমান রয়েছেন, যাদেরকে তুমি দেখতে পাচ্ছো। এ কথা বলে তিনি ছেড়ে দিলেন। কিন্তু আমি আমার প্রশ্ন নিয়ে এগিয়ে চললাম। এরপর যদি আমার নিকট সংবাদ পৌঁছতো কোনো লোকের নিকট হাদীস রয়েছে, তবে আমি তার নিকট যেতাম। আর তিনি (অনেক সময়) ঘুমিয়ে থাকতেন। ফলে আমি আমার চাদরকে বালিশ বানিয়ে তার দরজায় শুয়ে পড়তাম। বাতাস আমার মুখের উপর ধুলো-বালি উড়িয়ে নিয়ে এসে ফেলতো। পরে তিনি বাইরে বের হতেন এবং আমাকে দেখতে পেতেন। তখন তিনি বলতেন: হে আল্লাহর রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর চাচাতো ভাই ইবনু আব্বাস! তুমি কি কাজে এসেছো? আমাকে ডেকে পাঠালেই তো পারতে, আমি তোমার নিকট যেতাম। তখন আমি বলতাম: না, বরং আমার আপনার নিকট আসাটাই অধিক যুক্তিযুক্ত। তারপর আমি তাকে হাদীস সম্পর্কে জিজ্ঞেস করতাম। তিনি বলেন: তিনি আমাকে দেখতে পাওয়ার আগেই আমার নিকট লোকজন জড়ো হয়ে যেতো। তখন তিনি বলেন: এ যুবকটি আমার চেয়েও অধিক জ্ঞানী।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ফাসাওয়ী, আল মা’রিফাহ ১/৫৪২; হাকিম, ১/১০৬; খতীব, আল জামি’ লি আখলাকির রাবী নং ২১৫; ৫৮৫, ৫৮৬ আছার ‍দু’টি দেখুন।

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ حَدَّثَنَا جَرِيرُ بْنُ حَازِمٍ عَنْ يَعْلَى بْنِ حَكِيمٍ عَنْ عِكْرِمَةَ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ قَالَ لَمَّا تُوُفِّيَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قُلْتُ لِرَجُلٍ مِنْ الْأَنْصَارِ يَا فُلَانُ هَلُمَّ فَلْنَسْأَلْ أَصْحَابَ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَإِنَّهُمْ الْيَوْمَ كَثِيرٌ فَقَالَ وَا عَجَبًا لَكَ يَا ابْنَ عَبَّاسٍ أَتَرَى النَّاسَ يَحْتَاجُونَ إِلَيْكَ وَفِي النَّاسِ مِنْ أَصْحَابِ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مَنْ تَرَى فَتَرَكَ ذَلِكَ وَأَقْبَلْتُ عَلَى الْمَسْأَلَةِ فَإِنْ كَانَ لَيَبْلُغُنِي الْحَدِيثُ عَنْ الرَّجُلِ فَآتِيهِ وَهُوَ قَائِلٌ فَأَتَوَسَّدُ رِدَائِي عَلَى بَابِهِ فَتَسْفِي الرِّيحُ عَلَى وَجْهِي التُّرَابَ فَيَخْرُجُ فَيَرَانِي فَيَقُولُ يَا ابْنَ عَمِّ رَسُولِ اللَّهِ مَا جَاءَ بِكَ أَلَا أَرْسَلْتَ إِلَيَّ فَآتِيَكَ فَأَقُولُ لَا أَنَا أَحَقُّ أَنْ آتِيَكَ فَأَسْأَلُهُ عَنْ الْحَدِيثِ قَالَ فَبَقِيَ الرَّجُلُ حَتَّى رَآنِي وَقَدْ اجْتَمَعَ النَّاسُ عَلَيَّ فَقَالَ كَانَ هَذَا الْفَتَى أَعْقَلَ مِنِّي

إسناده صحيح

أخبرنا يزيد بن هارون حدثنا جرير بن حازم عن يعلى بن حكيم عن عكرمة عن ابن عباس قال لما توفي رسول الله صلى الله عليه وسلم قلت لرجل من الأنصار يا فلان هلم فلنسأل أصحاب النبي صلى الله عليه وسلم فإنهم اليوم كثير فقال وا عجبا لك يا ابن عباس أترى الناس يحتاجون إليك وفي الناس من أصحاب النبي صلى الله عليه وسلم من ترى فترك ذلك وأقبلت على المسألة فإن كان ليبلغني الحديث عن الرجل فآتيه وهو قائل فأتوسد ردائي على بابه فتسفي الريح على وجهي التراب فيخرج فيراني فيقول يا ابن عم رسول الله ما جاء بك ألا أرسلت إلي فآتيك فأقول لا أنا أحق أن آتيك فأسأله عن الحديث قال فبقي الرجل حتى رآني وقد اجتمع الناس علي فقال كان هذا الفتى أعقل مني إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৭. ইলম অন্বেষণের জন্য সফর করা এবং এতে পরিশ্রম-কষ্ট সহ্য করা

৫৯০.[1] আব্দুল্লাহ ইবনু বুরাইদাহ হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের একজন সাহাবী ফাদালাহ ইবনু উবাইদ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুর নিকট সফর করে গেলেন, তিনি মিসরে অবস্থান করছিলেন। সেই সাহাবী তার নিকট উপস্থিত হলেন যখন তিনি তার উটের জন্য খাবার যোগাড় করছিলেন। (তাকে দেখে) তিনি বলে উঠলেন: মারহাবা! স্বাগতম! এ সাহাবী তাকে বললেন: জেনে রাখুন, আমি আপনার সাথে শুধু সাক্ষাতের জন্য আসিনি। বরং আমি শুনেছি যে, আপনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হাদীস বর্ণনা করছেন। আমি প্রত্যাশা করলাম যে, আপনার নিকট তাঁর থেকে (হাদীস বিষয়ক) কোনো ইলম রয়ে গেছে। তখন তিনি বললেন: সেটা আবার কী? তিনি জবাব দিলেন: এই এই (ইলম)।[2]

[1] এ সংস্করণে ৫৮৯ নং ক্রমটি বাদ পড়েছে। ৫৮৮ নং এর পরেই ৫৯০ ক্রমিক নং লেখা হয়েছে, যা স্পষ্টত ভুল।

[2] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি-অনুবাদক।)

بَابُ الرِّحْلَةِ فِي طَلَبِ الْعِلْمِ، وَاحْتِمَالِ الْعَنَاءِ فِيهِ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ حَدَّثَنَا الْجُرَيْرِيُّ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ بُرَيْدَةَ أَنَّ رَجُلًا مَنْ أَصْحَابِ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَحَلَ إِلَى فَضَالَةَ بْنِ عُبَيْدٍ وَهُوَ بِمِصْرَ فَقَدِمَ عَلَيْهِ وَهُوَ يَمُدُّ لِنَاقَةٍ لَهُ فَقَالَ مَرْحَبًا قَالَ أَمَا إِنِّي لَمْ آتِكَ زَائِرًا وَلَكِنْ سَمِعْتُ أَنَا وَأَنْتَ حَدِيثًا مِنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَجَوْتُ أَنْ يَكُونَ عِنْدَكَ مِنْهُ عِلْمٌ قَالَ مَا هُوَ قَالَ كَذَا وَكَذَا

إسناده صحيح

أخبرنا يزيد بن هارون حدثنا الجريري عن عبد الله بن بريدة أن رجلا من أصحاب النبي صلى الله عليه وسلم رحل إلى فضالة بن عبيد وهو بمصر فقدم عليه وهو يمد لناقة له فقال مرحبا قال أما إني لم آتك زائرا ولكن سمعت أنا وأنت حديثا من رسول الله صلى الله عليه وسلم رجوت أن يكون عندك منه علم قال ما هو قال كذا وكذا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবন বুরায়দা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯১. হাসান রাহিমাহুল্লাহ হতে বর্ণিত: একদা তিনি বাজারে প্রবেশ করে একটি কাপড়ের দরদাম করছিলেন। তখন লোকটি বলল: এর (দাম) আপনার জন্য এত এত। আল্লাহর কসম! যদি আপনি না হয়ে অন্য কেউ হতো, তবে (এই দামে) এটি আমি তাকে দিতাম না। তখন তিনি বললেন: তোমরা কি একাজ করে থাকো? এরপর থেকে আল্লাহর সাথে সাক্ষাৎ লাভের আগ পর্যন্ত আর তাকে কখনো ক্রয় বা বিক্রয়ের জন্য বাজারে দেখা যায়নি।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: (মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি- অনুবাদক)

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ سَعِيدٍ حَدَّثَنَا عَبْدُ السَّلَامِ بْنُ حَرْبٍ عَنْ عَبْدِ الْأَعْلَى عَنْ الْحَسَنِ أَنَّهُ دَخَلَ السُّوقَ فَسَاوَمَ رَجُلًا بِثَوْبٍ فَقَالَ هُوَ لَكَ بِكَذَا وَكَذَا وَاللَّهِ لَوْ كَانَ غَيْرَكَ مَا أَعْطَيْتُهُ فَقَالَ فَعَلْتُمُوهَا فَمَا رُئِيَ بَعْدَهَا مُشْتَرِيًا مِنْ السُّوقِ وَلَا بَائِعًا حَتَّى لَحِقَ بِاللَّهِ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن سعيد حدثنا عبد السلام بن حرب عن عبد الأعلى عن الحسن أنه دخل السوق فساوم رجلا بثوب فقال هو لك بكذا وكذا والله لو كان غيرك ما أعطيته فقال فعلتموها فما رئي بعدها مشتريا من السوق ولا بائعا حتى لحق بالله إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯২. ইবরাহীম রাহিমাহুল্লাহ হতে বর্ণিত, যে ব্যক্তি তাকে চিনতো, তার নিকট হতে তিনি কোনো কিছু ক্রয় করতেন না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ অত্যন্ত যয়ীফ, হিশাম ইবনু মিসক সম্ভবত মাতরুক।

তাখরীজ: আমি এটি অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا الْهَيْثَمُ بْنُ جَمِيلٍ عَنْ حُسَامٍ عَنْ أَبِي مَعْشَرٍ عَنْ إِبْرَاهِيمَ أَنَّهُ كَانَ لَا يَشْتَرِي مِمَّنْ يَعْرِفُهُ

إسناده ضعيف جدا حسام بن مصك كاد أن يترك

أخبرنا الهيثم بن جميل عن حسام عن أبي معشر عن إبراهيم أنه كان لا يشتري ممن يعرفه إسناده ضعيف جدا حسام بن مصك كاد أن يترك

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইব্রাহীম আন-নাখঈ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৩. উবাইদ ইবনুল হাসান হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: একদা যখন রমযান মাস শুরু হলো তখন মুস’আব ইবনু যুবাইর কিছু মাল-সম্পদ কুফা’র কারীদের মাঝে দান করলেন। তারপর তিনি আব্দুর রহমান ইবনু মা’কিল-এর নিকট দু’হাজার দিরহাম পাঠিয়ে দিলেন। আর তাকে বলে পাঠালেন: এ মাসে এগুলো দ্বারা উপকৃত হোন। কিন্তু, আব্দুর রহমান বিন মা’কিল তা ফেরত পাঠিয়ে বললেন: আমরা এর জন্য কুরআন পাঠ করি না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: (মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি- অনুবাদক)

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ سَعِيدٍ أَخْبَرَنَا عَبْدُ السَّلَامِ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ الْوَلِيدِ الْمُزَنِيِّ عَنْ عُبَيْدِ بْنِ الْحَسَنِ قَالَ قَسَمَ مُصْعَبُ بْنُ الزُّبَيْرِ مَالًا فِي قُرَّاءِ أَهْلِ الْكُوفَةِ حِينَ دَخَلَ شَهْرُ رَمَضَانَ فَبَعَثَ إِلَى عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ مَعْقِلٍ بِأَلْفَيْ دِرْهَمٍ فَقَالَ لَهُ اسْتَعِنْ بِهَا فِي شَهْرِكَ هَذَا فَرَدَّهَا عَبْدُ الرَّحْمَنِ بْنُ مَعْقِلٍ وَقَالَ لَمْ نَقْرَأْ الْقُرْآنَ لِهَذَا

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن سعيد أخبرنا عبد السلام عن عبد الله بن الوليد المزني عن عبيد بن الحسن قال قسم مصعب بن الزبير مالا في قراء أهل الكوفة حين دخل شهر رمضان فبعث إلى عبد الرحمن بن معقل بألفي درهم فقال له استعن بها في شهرك هذا فردها عبد الرحمن بن معقل وقال لم نقرأ القرآن لهذا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উবাইদ ইবনুল হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৪. উবাইদুল্লাহ ইবনু উমার বর্ণনা করেন: উমার ইবনুল খাত্ত্বাব রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু আব্দুল্লাহ ইবনু সালাম রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুকে বললেন: ইলমের অধিকারী কারা? তিনি জবাবে বলেন: যারা তাদের ইলম অনুযায়ী আমল করে। তিনি বললেন: আর কোন্ জিনিস মানুষের অন্তর থেকে ইলমকে বের করে দেয়? উত্তরে তিনি বলেন: লোভ-লালসা।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ, রাবীগণ সকলেই বিশ্বস্ত।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি। দেখুন পরবর্তী হাদীস নং ৬০৪ (যা আমাদের ক্রমে ৬০৩- অনুবাদক)।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ أَحْمَدَ بْنِ أَبِي خَلَفٍ حَدَّثَنَا أَنَسُ بْنُ عِيَاضٍ حَدَّثَنِي عُبَيْدُ اللَّهِ بْنُ عُمَرَ أَنَّ عُمَرَ بْنَ الْخَطَّابِ قَالَ لِعَبْدِ اللَّهِ بْنِ سَلَامٍ مَنْ أَرْبَابُ الْعِلْمِ قَالَ الَّذِينَ يَعْمَلُونَ بِمَا يَعْلَمُونَ قَالَ فَمَا يَنْفِي الْعِلْمَ مِنْ صُدُورِ الرِّجَالِ قَالَ الطَّمَعُ

رجاله ثقات وإسناده صحيح

أخبرنا محمد بن أحمد بن أبي خلف حدثنا أنس بن عياض حدثني عبيد الله بن عمر أن عمر بن الخطاب قال لعبد الله بن سلام من أرباب العلم قال الذين يعملون بما يعلمون قال فما ينفي العلم من صدور الرجال قال الطمع رجاله ثقات وإسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উবাইদুল্লাহ ইবনু উমার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৫. আতা রাহি. বলেন: কোনো বিষয়কে অপর বিষয়ের নিকট স্থান দেওয়ার ক্ষেত্রে সহনশীলতা (অথবা বিচক্ষণতা)কে ইলমের নিকট স্থান দেওয়ার চেয়ে অধিক সুন্দর আর কিছুই নেই।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আবু খায়ছামা, আল ইলম নং ৮১; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ৮০৬-৮০৭।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ أَحْمَدَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ زَيْدٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ مَا أَوَى شَيْءٌ إِلَى شَيْءٍ أَزْيَنَ مِنْ حِلْمٍ إِلَى عِلْمٍ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن أحمد حدثنا سفيان بن عيينة عن زيد عن عطاء قال ما أوى شيء إلى شيء أزين من حلم إلى علم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু ইয়াসার (রহ.)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৬. আমির আশ-শা’বী রাহি. বলেন: ইলমের সৌন্দর্যই হলো ইলমের ধারকের সহিষ্ণুতা।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ৮/৫৯৬ নং ৫৬৭৩; আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৪/৩১৮; বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান নং ৮৫৩০।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا عَفَّانُ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ أَخْبَرَنَا عَاصِمٌ الْأَحْوَلُ عَنْ عَامِرٍ الشَّعْبِيِّ قَالَ زَيْنُ الْعِلْمِ حِلْمُ أَهْلِهِ

إسناده صحيح

أخبرنا عفان حدثنا حماد بن سلمة أخبرنا عاصم الأحول عن عامر الشعبي قال زين العلم حلم أهله إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ শা‘বী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৭. তাউস রাহি. বলেন: ইলমকে বহন করার ক্ষেত্রে ধৈয্যের থলের কোনো জুড়ি নেই।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ যাম’আহ ইবনু সালিহ’র কারণে।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৮/৫৯৭ নং ৫৬৭৫; আবু নুযাইম, হিলইয়া ৯/২৪; বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান নং ৮৫৩১; আর এর শাহিদ রয়েছে ইবনু আবী শাইবা নং ৫৬৭৬-এ যা একে শক্তিশালী করে।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا يَعْقُوبُ بْنُ إِبْرَاهِيمَ حَدَّثَنَا عَبْدُ الرَّحْمَنِ حَدَّثَنَا زَمْعَةُ بْنُ صَالِحٍ عَنْ سَلَمَةَ بْنِ وَهْرَامٍ عَنْ طَاوُسٍ قَالَ مَا حُمِلَ الْعِلْمُ فِي مِثْلِ جِرَابِ حِلْمٍ

إسناده ضعيف من أجل زمعة بن صالح

أخبرنا يعقوب بن إبراهيم حدثنا عبد الرحمن حدثنا زمعة بن صالح عن سلمة بن وهرام عن طاوس قال ما حمل العلم في مثل جراب حلم إسناده ضعيف من أجل زمعة بن صالح

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ তাঊস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৮. আশ-শা’বী রাহি. বলেন: ইলমের সৌন্দর্যই হলো ইলমের ধারকের সহিষ্ণুতা।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, মুহাম্মদ ইবনু হামীদ যয়ীফ হওয়ায়। তবে আছারটি সহীহ যা ৫৯৭ (৫৯৬) নং এ গত হয়েছে।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি, তবে এর তাখরীজের জন্য ৫৯৬ এর তাখরীজ দেখুন- অনুবাদক।)

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا جَرِيرٌ عَنْ ابْنِ شُبْرُمَةَ عَنْ الشَّعْبِيِّ قَالَ زَيْنُ الْعِلْمِ حِلْمُ أَهْلِهِ

إسناده ضعيف من أجل محمد بن حميد

أخبرنا محمد بن حميد حدثنا جرير عن ابن شبرمة عن الشعبي قال زين العلم حلم أهله إسناده ضعيف من أجل محمد بن حميد

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ শা‘বী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৫৯৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৫৯৯. ওয়াহাব ইবনু মুনাব্বিহ রাহি. বলেন: হিকমত বা তত্ত্বজ্ঞান অন্তর প্রশান্তকারী, ধীর-স্থির ব্যক্তির জন্য প্রশান্তিদায়ক।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, মুতাররিফ ইবনু মাযিন এর কারণে।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا الْحَكَمُ بْنُ الْمُبَارَكِ أَخْبَرَنَا مُطَرِّفُ بْنُ مَازِنٍ عَنْ يَعْلَى بْنِ مِقْسَمٍ عَنْ وَهْبِ بْنِ مُنَبِّهٍ قَالَ إِنَّ الْحِكْمَةَ تَسْكُنُ الْقَلْبَ الْوَادِعَ السَّاكِنَ

إسناده ضعيف من أجل مطرف بن مازن

أخبرنا الحكم بن المبارك أخبرنا مطرف بن مازن عن يعلى بن مقسم عن وهب بن منبه قال إن الحكمة تسكن القلب الوادع الساكن إسناده ضعيف من أجل مطرف بن مازن

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ওয়াহাব ইবনু মুনাব্বিহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৬০০. উবাইদুল্লাহ বলেন: (নিজেদের ত্রুটিসহ ইলম অন্বেষণের দ্বারা) তোমরা তো ইলমকেই ত্রুটিযুক্ত করে দিচ্ছো এবং ইলমের নূর বিদূরিত করে দিচ্ছো । আমাকে এবং তোমাদেরকেও উমার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু যদি ধরতে পারতেন, তবে অবশ্যই তিনি আমাদেরকে শাস্তি দিতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: খতীব, শারফু আসহাবুল হাদীস নং ২৮৪।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ أَحْمَدَ قَالَ سَمِعْتُ سُفْيَانَ يَقُولُ قَالَ عُبَيْدُ اللَّهِ شِنْتُمْ الْعِلْمَ وَأَذْهَبْتُمْ نُورَهُ وَلَوْ أَدْرَكَنِي وَإِيَّاكُمْ عُمَرُ لَأَوْجَعَنَا

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن أحمد قال سمعت سفيان يقول قال عبيد الله شنتم العلم وأذهبتم نوره ولو أدركني وإياكم عمر لأوجعنا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উবাইদুল্লাহ ইবনু উমার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৬০১. উমাই আল মুরাদী বলেন, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: ইলম শিক্ষা কর। আর যখন তোমরা ইলম শিক্ষা লাভ করবে, তখন তা (ভালোভাবে) সংরক্ষণ করবে। আর তোমরা একে হাসি-তামাশা ও খেলা-ধুলা’র সাথে মিশ্রিত করবে না। তাহলে অন্তর একে (সংরক্ষণ না করে) বের করে দেবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৭/৩০০ দুটি সূত্রে যার একটি মু’দাল ও অপরটি ‍মুনকাতি’; খতীব, আল জামি’ নং ২১৩; এবং আগের হাদীসটি দেখুন।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا شِهَابُ بْنُ عَبَّادٍ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ أُمَيٍّ الْمُرَادِيِّ قَالَ قَالَ عَلِيٌّ تَعَلَّمُوا الْعِلْمَ فَإِذَا عَلِمْتُمُوهُ فَاكْظِمُوا عَلَيْهِ وَلَا تَشُوبُوهُ بِضَحِكٍ وَلَا بِلَعِبٍ فَتَمُجَّهُ الْقُلُوبُ

إسناده صحيح

أخبرنا شهاب بن عباد حدثنا سفيان بن عيينة عن أمي المرادي قال قال علي تعلموا العلم فإذا علمتموه فاكظموا عليه ولا تشوبوه بضحك ولا بلعب فتمجه القلوب إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উমাই আল মুরাদী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৬০২. আলী ইবনুল হাসান রাহিমাহুল্লাহ বলেন: যে ব্যক্তি (অধিক পরিমাণে) হাসি-তামাশা করে, সে ইলমকে (বহু দূরে) নিক্ষেপ করে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, মুহাম্মদ ইবনু হামীদের কারণে। (তবে অপর একটি সহীহ সনদে বর্ণিত হয়েছে।)

তাখরীজ: আব্দুল্লাহ ইবনু আহমদ, যাওয়াইদু যুহদ লি আহমদ পৃ: ১৬৬ একই সনদে; কিন্তু আবু নুয়াইম, হিলইয়া ৩/১৩৩-১৩৪; বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান নং ১৮৩০ সহীহ সনদে।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا جَرِيرٌ عَنْ الْفُضَيْلِ بْنِ غَزْوَانَ عَنْ عَلِيِّ بْنِ حُسَيْنٍ قَالَ مَنْ ضَحِكَ ضَحْكَةً مَجَّ مَجَّةً مِنْ الْعِلْمِ

إسناده ضعيف من أجل محمد بن حميد

أخبرنا محمد بن حميد حدثنا جرير عن الفضيل بن غزوان عن علي بن حسين قال من ضحك ضحكة مج مجة من العلم إسناده ضعيف من أجل محمد بن حميد

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আলী ইবনুল হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৬০৩. সুফিয়ান হতে বর্ণিত, উমার রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু কা’ব রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুকে বললেন: ইলমের অধিকারী কারা? তিনি জবাবে বলেন: যারা তাদের ইলম অনুযায়ী আমল করে। তিনি বললেন: আর কোন্ জিনিস আলিমগণের অন্তর থেকে ইলমকে বের করে দেয়? উত্তরে তিনি বলেন: লোভ-লালসা।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ মু’দাল।

তাখরীজ: আমি এ ব্যতীত অন্য কোথাও এটি পাইনি। তবে পূর্বের হাদীস নং ৫৯৪ টি দেখুন। সেটি একে নির্ভরযোগ্য করে।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ أَنَّ عُمَرَ قَالَ لِكَعْبٍ مَنْ أَرْبَابُ الْعِلْمِ قَالَ الَّذِينَ يَعْمَلُونَ بِمَا يَعْلَمُونَ قَالَ فَمَا أَخْرَجَ الْعِلْمَ مِنْ قُلُوبِ الْعُلَمَاءِ قَالَ الطَّمَعُ

إسناده معضل

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان أن عمر قال لكعب من أرباب العلم قال الذين يعملون بما يعلمون قال فما أخرج العلم من قلوب العلماء قال الطمع إسناده معضل

 হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ  বর্ণনাকারীঃ সুফিয়ান সাওরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৮. ইলম সংরক্ষণ করা

৬০৪. আবু ইয়াস বলেন: আমি আমর ইবনু নু’মানের নিকট আগমন করলাম, তখন তার নিকট মুস’আব ইবনু যুবাইরের বার্তাবাহক রমাযান মাসের প্রাক্কালে দু’হাজার দিরহাম নিয়ে হাজির হলো। এরপর সে বলল: আমীর আপনাকে সালাম জানিয়েছেন এবং বলেছেন: আমরা কোনো সম্মানিতকারীকে ডেকে পাঠাইনি, তবে আমাদের পক্ষ থেকে তার নিকট কল্যাণ (দান) পৌঁছেছে। ফলে এ দু’হাজার দিরহাম দিয়ে রমাযানে উপকৃত হোন। তখন তিনি বলেন: আমীরকে আমার সালাম জানিয়ে বলো, আল্লাহর কসম! আমরা দুনিয়া ও এর দিরহাম (অর্থকড়ি)-এর উদ্দেশ্যে কুরআন পাঠ করি না।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এ সনদে মুহাম্মদ ইবনু হামীদ রয়েছে। সে যয়ীফ। অন্যান্য রাবীগণ বিশ্বস্ত।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১০/৪৮১ নং ১০০৫৪ জাইয়্যেদ সনদে।

بَابُ صِيَانَةِ الْعِلْمِ

أَخْبَرَنَا أَحْمَدُ بْنُ حُمَيْدٍ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ بِشْرٍ حَدَّثَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ الْوَلِيدِ عَنْ عُمَرَ بْنِ أَيُّوبَ عَنْ أَبِي إِيَاسٍ قَالَ كُنْتُ نَازِلًا عَلَى عَمْرِو بْنِ النُّعْمَانِ فَأَتَاهُ رَسُولُ مُصْعَبِ بْنِ الزُّبَيْرِ حِينَ حَضَرَهُ رَمَضَانُ بِأَلْفَيْ دِرْهَمٍ فَقَالَ إِنَّ الْأَمِيرَ يُقْرِئُكَ السَّلَامَ وَقَالَ إِنَّا لَمْ نَدَعْ قَارِئًا شَرِيفًا إِلَّا وَقَدْ وَصَلَ إِلَيْهِ مِنَّا مَعْرُوفٌ فَاسْتَعِنْ بِهَذَيْنِ عَلَى نَفَقَةِ شَهْرِكَ هَذَا فَقَالَ أَقْرِئْ الْأَمِيرَ السَّلَامَ وَقُلْ لَهُ إِنَّا وَاللَّهِ مَا قَرَأْنَا الْقُرْآنَ نُرِيدُ بِهِ الدُّنْيَا وَدِرْهَمَهَا

محمد بن حميد ضعيف

أخبرنا أحمد بن حميد حدثنا محمد بن بشر حدثنا عبد الله بن الوليد عن عمر بن أيوب عن أبي إياس قال كنت نازلا على عمرو بن النعمان فأتاه رسول مصعب بن الزبير حين حضره رمضان بألفي درهم فقال إن الأمير يقرئك السلام وقال إنا لم ندع قارئا شريفا إلا وقد وصل إليه منا معروف فاستعن بهذين على نفقة شهرك هذا فقال أقرئ الأمير السلام وقل له إنا والله ما قرأنا القرآن نريد به الدنيا ودرهمها محمد بن حميد ضعيف

 হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ  বর্ণনাকারীঃ মু‘আবিয়াহ্ ইবনু কুররাহ্ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৯. আল্লাহর কিতাবের ব্যাপারে ফায়সালা দানকারী হবে সুন্নাহ।

৬০৫. মিকদাম ইবনু মা’দীকারীব আল কিনদী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম খায়বার যু্দ্ধের দিন গাধা ও অন্য কয়েকটি জিনিস হারাম ঘোষণা করেন। তারপর তিনি বলেন: “অদূর ভবিষ্যতে এক ব্যক্তি তার খাটের উপর আসনে ঠেস দিয়ে বসে থাকবে এবং তার নিকট আমার হাদীস বর্ণনা করা হবে। তখন সে বলবে: আমাদের ও তোমাদের মাঝে আল্লাহর কিতাব রয়েছে। সুতরাং এর মাঝে আমরা যা কিছু হালাল পাব, তাকেই আমরা হালাল মনে করব, আর এর মাঝে যা কিছু হারাম পাব, আমরা তাকেই হারাম বলে গণ্য করব। জেনে রাখ! আল্লাহর রাসূল যা কিছু হারাম করেছেন, তা আল্লাহ কর্তৃক হারামকৃত বস্তুরই অনুরূপ।”[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আহমদ ৪/১৩২; তিরমিযী নং ২৬৬৬; ইবনু মাজাহ মুকাদ্দামা ১২; দারু কুতনী ৪/২৭৬-২৭৭ নং ৫৮; বাইহাকী ৯/৩৩১; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ২৩৪৩; খতীব, ফাকীহ ওয়াল মুতাফাককিহ ১/৮৮-৮৯; হাকিম ১/১০৯; ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ ৬২, ৬৩… সহীহ সনদে।

এ হাদীসের শাহিদ রয়েছে অনেকগুলি (আবী রাফি’, আবু হুরায়রা, ইরবায ইবনু সারিয়াহ ও অন্যান্যদের থেকে এ অর্থে)। এর জন্য দেখুন, হাকিম, মুসতাদরাক ও ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ।

بَابٌ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى كِتَابِ اللَّهِ تَعَالَى

أَخْبَرَنَا أَسَدُ بْنُ مُوسَى حَدَّثَنَا مُعَاوِيَةُ حَدَّثَنَا الْحَسَنُ بْنُ جَابِرٍ عَنْ الْمِقْدَامِ بْنِ مَعْدِي كَرِبَ الْكِنْدِيِّ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ حَرَّمَ أَشْيَاءَ يَوْمَ خَيْبَرَ الْحِمَارَ وَغَيْرَهُ ثُمَّ قَالَ لَيُوشِكُ بِالرَّجُلِ مُتَّكِئًا عَلَى أَرِيكَتِهِ يُحَدَّثُ بِحَدِيثِي فَيَقُولُ بَيْنَنَا وَبَيْنَكُمْ كِتَابُ اللَّهِ مَا وَجَدْنَا فِيهِ مِنْ حَلَالٍ اسْتَحْلَلْنَاهُ وَمَا وَجَدْنَا فِيهِ مِنْ حَرَامٍ حَرَّمْنَاهُ أَلَا وَإِنَّ مَا حَرَّمَ رَسُولُ اللَّهِ هُوَ مِثْلُ مَا حَرَّمَ اللَّهُ

إسناده صحيح

أخبرنا أسد بن موسى حدثنا معاوية حدثنا الحسن بن جابر عن المقدام بن معدي كرب الكندي أن رسول الله صلى الله عليه وسلم حرم أشياء يوم خيبر الحمار وغيره ثم قال ليوشك بالرجل متكئا على أريكته يحدث بحديثي فيقول بيننا وبينكم كتاب الله ما وجدنا فيه من حلال استحللناه وما وجدنا فيه من حرام حرمناه ألا وإن ما حرم رسول الله هو مثل ما حرم الله إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মিকদাম (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৯. আল্লাহর কিতাবের ব্যাপারে ফায়সালা দানকারী হবে সুন্নাহ।

৬০৬. আউযাঈ হতে বর্ণিত, ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাছীর রাহিমাহুল্লাহ বলেন: সুন্নাত কুরআনের উপর ফায়সালাকারী, কিন্তু কুরআন সুন্নাহর উপর ফায়সালাকারী নয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ জাইয়্যেদ (উত্তম)।

তাখরীজ: ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ নং ৮৮, ৮৯; মারওয়াযী, আস সুন্নাহ নং ১০৩; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ২৩৫৩ সহীহ সনদে। দেখুন মিফতাহুল জান্নাহ পৃ: ২৬।

بَابٌ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى كِتَابِ اللَّهِ تَعَالَى

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ الْفَزَارِيِّ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ عَنْ يَحْيَى بْنِ أَبِي كَثِيرٍ قَالَ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى الْقُرْآنِ وَلَيْسَ الْقُرْآنُ بِقَاضٍ عَلَى السُّنَّةِ

إسناده جيد

أخبرنا محمد بن عيينة عن أبي إسحق الفزاري عن الأوزاعي عن يحيى بن أبي كثير قال السنة قاضية على القرآن وليس القرآن بقاض على السنة إسناده جيد

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৯. আল্লাহর কিতাবের ব্যাপারে ফায়সালা দানকারী হবে সুন্নাহ।

৬০৭. আওযাঈ হাসান রাহিমাহুল্লাহ হতে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন: জিবরীল আ: নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের উপর যেভাবে কুরআন নিয়ে অবতীর্ণ হতেন, ঠিক তেমনিভাবেই তিনি তাঁর নিকট সুন্নাহ নিয়েও অবতীর্ণ হতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা মুহাম্মদ ইবনু কাছীর যয়ীফ। (তবে এটি সহীহ সনদেও বর্ণিত আছে যেমন নিম্নে উল্লেখিত হয়েছে।)

তাখরীজ: ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ নং ৯০, ২২০; আবু দাউদ, মারাসীল নং ৫৩৬;

: ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ নং ২১৯; লালিকাঈ, শারহু ই’তিক্বাদ নং ৯৯; মারওয়াযী, আস সুন্নাহ নং ১০২ সহীহ সনদে।

بَابٌ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى كِتَابِ اللَّهِ تَعَالَى

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ كَثِيرٍ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ عَنْ حَسَّانَ قَالَ كَانَ جِبْرِيلُ يَنْزِلُ عَلَى النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ بِالسُّنَّةِ كَمَا يَنْزِلُ عَلَيْهِ بِالْقُرْآنِ

إسناده ضعيف لضعف محمد بن كثير

أخبرنا محمد بن كثير عن الأوزاعي عن حسان قال كان جبريل ينزل على النبي صلى الله عليه وسلم بالسنة كما ينزل عليه بالقرآن إسناده ضعيف لضعف محمد بن كثير

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৯. আল্লাহর কিতাবের ব্যাপারে ফায়সালা দানকারী হবে সুন্নাহ।

৬০৮. আউযাঈ রাহি. হতে বর্ণিত, মাকহুল রাহি. বলেন: সুন্নাহ দুই প্রকার। এক প্রকার সুন্নাহ যার অনুসরণ করা ফরয এবং তা পরিত্যাগ করা কুফরী। আরেক (প্রকার) সুন্নাত যার অনুসরণ করা উত্তম এবং তা পরিত্যাগ করাতে কোনো দোষ নেই।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, মুহাম্মদ ইবনু কাছীর যয়ীফ হওয়ায়। (তবে এটি সহীহ সনদেও বর্ণিত আছে যেমন নিম্নে উল্লেখিত হয়েছে।)

তাখরীজ: মারওয়াযী, আস সুন্নাহ নং ১০৫; ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ নং ১০১ সহীহ সনদে; ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ২৩৫০ নং এর টীকায় এ সনদে। তবে এটি মারফু’ হিসেবে আবু হুরাইরা রা: হতে বর্ণিতে হয়েছে যয়ীফ সনদে। দেখুন আমার তাহক্বীক্বকৃত মাজমাউয যাওয়াইদ নং ৮০৮।

হাফিজ ইবনু হাজার ফাতহুল বারী ১৩/২৯১ এ একে বাইহাকী’তে সহীহ সনদে হিসান ইবনু আতিয়াহ’র বক্তব্য বলে মন্তব্য করেছেন যে, “নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের উপর যেভাবে কুরআন নিয়ে অবতীর্ণ হতেন, ঠিক তেমনিভাবেই তিনি তাঁর নিকট সুন্নাহ নিয়েও অবতীর্ণ হতেন।”

بَابٌ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى كِتَابِ اللَّهِ تَعَالَى

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ كَثِيرٍ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ عَنْ مَكْحُولٍ قَالَ السُّنَّةُ سُنَّتَانِ سُنَّةٌ الْأَخْذُ بِهَا فَرِيضَةٌ وَتَرْكُهَا كُفْرٌ وَسُنَّةٌ الْأَخْذُ بِهَا فَضِيلَةٌ وَتَرْكُهَا إِلَى غَيْرِ حَرَجٍ

إسناده ضعيف لضعف محمد بن كثير الصنعاني

أخبرنا محمد بن كثير عن الأوزاعي عن مكحول قال السنة سنتان سنة الأخذ بها فريضة وتركها كفر وسنة الأخذ بها فضيلة وتركها إلى غير حرج إسناده ضعيف لضعف محمد بن كثير الصنعاني

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬০৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৪৯. আল্লাহর কিতাবের ব্যাপারে ফায়সালা দানকারী হবে সুন্নাহ।

৬০৯. ইয়া’লা ইবনু হাকীম হতে বর্ণিত, সাঈদ ইবনু জুবাইর রাহি. একদিন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে একটি হাদীস বর্ণনা করলেন। তখন এক ব্যক্তি বললো: আল্লাহর কিতাবে (কুরআনে) তো এর বিপরীত কথা রয়েছে। তিনি বললেন: আমাকে দেখতে পাচ্ছো না, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে হাদীস বর্ণনা করছি, আর একে আল্লাহর কিতাবের মুখোমুখি এনে দাঁড় করানো হচ্ছে! আল্লাহ তা’আলার কিতাব সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তোমার চেয়ে ভাল বুঝতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আজুরী, আশ শরীয়াহ পৃ: ৫৮; ইবনু বাত্তাহ, আল ইবানাহ নং ৮১; খতীব, আল জামি লি আখলাকির রাবী, নং ৩৫৩।

بَابٌ السُّنَّةُ قَاضِيَةٌ عَلَى كِتَابِ اللَّهِ تَعَالَى

أَخْبَرَنَا سُلَيْمَانُ بْنُ حَرْبٍ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ عَنْ يَعْلَى بْنِ حَكِيمٍ عَنْ سَعِيدِ بْنِ جُبَيْرٍ أَنَّهُ حَدَّثَ يَوْمًا بِحَدِيثٍ عَنْ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَقَالَ رَجُلٌ فِي كِتَابِ اللَّهِ مَا يُخَالِفُ هَذَا قَالَ أَلَا أُرَانِي أُحَدِّثُكَ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَتُعَرِّضُ فِيهِ بِكِتَابِ اللَّهِ كَانَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَعْلَمَ بِكِتَابِ اللَّهِ مِنْكَ

إسناده صحيح

أخبرنا سليمان بن حرب حدثنا حماد بن سلمة عن يعلى بن حكيم عن سعيد بن جبير أنه حدث يوما بحديث عن النبي صلى الله عليه وسلم فقال رجل في كتاب الله ما يخالف هذا قال ألا أراني أحدثك عن رسول الله صلى الله عليه وسلم وتعرض فيه بكتاب الله كان رسول الله صلى الله عليه وسلم أعلم بكتاب الله منك إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইয়া’লা ইবনু হাকীম (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬১০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৫০. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর হাদীসের ব্যাখ্যা করা

৬১০. আউন ইবনু আব্দুল্লাহ রাহি. হতে বর্ণিত, আব্দুল্লাহ ইবনু মাসউদ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: তোমরা যখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে হাদীস বর্ণনা করবে, তখন তোমরা তাঁর সম্পর্কে মনে (এ ধারণা) রাখবে যে, তিনি হলেন সবচেয়ে সুন্দর, সর্বাধিক সঠিক পথ প্রদর্শনকারী এবং সর্বাধিক আল্লাহভীরু।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর রাবীগণ নির্ভরযোগ্য, তবে এতে ইনকিতা’ বা বিচ্ছিন্নতা রয়েছে। আউন ইবনু আব্দুল্লাহ ইবনু মাসউদের সাক্ষাত পাননি।… বুসীরী ‘মিসবাহুয যুজাজাহ’ ১/৪৭ তেও এ কথাই বলেছেন।… আমরা বলছি: একে সমর্থনকারী হিসেবে পরবর্তী হাদীসটি দেখুন, ফলে সেটি একে সহীহ পর্যায়ে উন্নীত করে।

তাখরীজ: আহমদ ১/৩৮৫, ৪১৫; ইবনু মাজাহ মুকাদ্দমা ১৯; আবী ইয়ালা মাউসিলী, আল মুসনাদ নং ৫২৫৯ সেখানে আমাদের তাহক্বীক্বে পূর্ণাঙ্গ তাখরীজ দেখুন।

بَابُ تَأْوِيلِ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

أَخْبَرَنَا نُعَيْمُ بْنُ حَمَّادٍ حَدَّثَنَا عَبْدُ الْعَزِيزِ بْنُ مُحَمَّدٍ عَنْ ابْنِ عَجْلَانَ عَنْ عَوْنِ بْنِ عَبْدِ اللَّهِ عَنْ ابْنِ مَسْعُودٍ أَنَّهُ قَالَ إِذَا حُدِّثْتُمْ بِالْحَدِيثِ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَظُنُّوا بِهِ الَّذِي هُوَ أَهْيَأُ وَالَّذِي هُوَ أَهْدَى وَالَّذِي هُوَ أَتْقَى

رجاله ثقات غير أنه منقطع عون بن عبد الله لم يدرك ابن مسعود

أخبرنا نعيم بن حماد حدثنا عبد العزيز بن محمد عن ابن عجلان عن عون بن عبد الله عن ابن مسعود أنه قال إذا حدثتم بالحديث عن رسول الله صلى الله عليه وسلم فظنوا به الذي هو أهيأ والذي هو أهدى والذي هو أتقى رجاله ثقات غير أنه منقطع عون بن عبد الله لم يدرك ابن مسعود

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আউন ইবনু আব্দুল্লাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬১১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৫০. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর হাদীসের ব্যাখ্যা করা

৬১১. আবু আব্দুর রহমান আস সুলামী রাহি. হতে বর্ণিত, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: তোমরা যখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে হাদীস বর্ণনা করবে, তখন তোমরা তাঁর সম্পর্কে মনে (এ বিশ্বাস) রাখবে যে, তিনি হলেন সবচেয়ে সুন্দর, সর্বাধিক সঠিক পথ প্রদর্শনকারী এবং সর্বাধিক আল্লাহভীরু।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এর পূর্ণাঙ্গ তাখরীজ ও টীকা দিয়েছি আমাদের তাহক্বীক্বকৃত মুসনাদুল মাউসিলী নং ৫৯১ তে। (আহমদ ১/১২২, ১২৬, ১৩১; ইবনু মাজাহ, মুকাদ্দামা ২০; মুসনাদুল মাউসিলী নং ৫৯১।)

بَابُ تَأْوِيلِ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو نُعَيْمٍ حَدَّثَنَا مِسْعَرٌ عَنْ عَمْرِو بْنِ مُرَّةَ عَنْ أَبِي الْبَخْتَرِيِّ عَنْ أَبِي عَبْدِ الرَّحْمَنِ السُّلَمِيِّ عَنْ عَلِيٍّ قَالَ إِذَا حُدِّثْتُمْ شَيْئًا عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَظُنُّوا بِهِ الَّذِي هُوَ أَهْدَى وَالَّذِي هُوَ أَتْقَى وَالَّذِي هُوَ أَهْيَأُ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو نعيم حدثنا مسعر عن عمرو بن مرة عن أبي البختري عن أبي عبد الرحمن السلمي عن علي قال إذا حدثتم شيئا عن رسول الله صلى الله عليه وسلم فظنوا به الذي هو أهدى والذي هو أتقى والذي هو أهيأ إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবু আব্দুর রহমান আস সুলামী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬১২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৫০. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর হাদীসের ব্যাখ্যা করা

৬১২. আবু হুরায়রা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন: যখন তিনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে হাদীস বর্ণনা করতেন, তখন বলতেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “যে ব্যক্তি স্বেচ্ছায় আমার উপর মিথ্যারোপ করলো, সে জাহান্নামে তার আবাসস্থল বানিয়ে নিলো”।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমরা এটি পূর্ণ তাখরীজ করেছি মুসনাদুল মাউসিলী নং ৬১২৩; সহীহ ইবনু হিব্বান নং ২৮ এবং মুসনাদুল হুমাইদী নং ১২০০ তে। (বুখারী ১১০; মুসলিম, মুকাদ্দামা হা/৪; আহমদ ১/৪১৩ নং ৯৩৩৯। )

بَابُ تَأْوِيلِ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو مَعْمَرٍ إِسْمَعِيلُ بْنُ إِبْرَاهِيمَ عَنْ صَالِحِ بْنِ عُمَرَ عَنْ عَاصِمِ بْنِ كُلَيْبٍ عَنْ أَبِيهِ عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ قَالَ كَانَ إِذَا حَدَّثَ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَقُولُ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مَنْ كَذَبَ عَلَيَّ مُتَعَمِّدًا فَلْيَتَبَوَّأْ مَقْعَدَهُ مِنْ النَّارِ

اسناده منقطع

أخبرنا أبو معمر إسمعيل بن إبراهيم عن صالح بن عمر عن عاصم بن كليب عن أبيه عن أبي هريرة قال كان إذا حدث عن رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول قال رسول الله صلى الله عليه وسلم من كذب علي متعمدا فليتبوأ مقعده من النار اسناده منقطع

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবূ হুরায়রা (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬১৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৫০. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর হাদীসের ব্যাখ্যা করা

৬১৩. ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা যখন হাদীস বর্ণনা করতেন, তখন তিনি বলতেন যখন তোমরা আমাকে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হতে হাদীস বর্ণনা করতে শোনো, আর তোমরা সেটি আল্লাহর কিতাবে না পাও, কিংবা লোকদের নিকট তা ভাল হিসেবে না পাও, তবে জানবে যে, আমি তাঁর উপর মিথ্যারোপ করেছি।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: … এর সনদ মুনকাতি’ বা বিচ্ছিন্ন।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি- অুনবাদক)

بَابُ تَأْوِيلِ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

فَكَانَ ابْنُ عَبَّاسٍ إِذَا حَدَّثَ قَالَ إِذَا سَمِعْتُمُونِي أُحَدِّثُ عَنْ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَلَمْ تَجِدُوهُ فِي كِتَابِ اللَّهِ أَوْ حَسَنًا عِنْدَ النَّاسِ فَاعْلَمُوا أَنِّي قَدْ كَذَبْتُ عَلَيْهِ

اسناده منقطع

فكان ابن عباس إذا حدث قال إذا سمعتموني أحدث عن رسول الله صلى الله عليه وسلم فلم تجدوه في كتاب الله أو حسنا عند الناس فاعلموا أني قد كذبت عليه اسناده منقطع

 হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবনু আব্বাস (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 ৬১৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৫০. রাসূলুল্লাহ (ﷺ) এর হাদীসের ব্যাখ্যা করা

৬১৪. ইকরিমা রাহি. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন: একজন আলিমের ব্যাপারে সর্বাধিক উদাসীন[1] মানুষ হলো তার পরিবার-পরিজন।[2]

[1] (এখানে যাহিদ বলতে উদাসীন বা অনাগ্রহী বুঝানো হয়েছে, অর্থাৎ একজন আলিমের হক, সম্মান ও মর্যাদা প্রতি সবচেয়ে বেশী উদাসীনতা প্রদর্শন করে তার পরিবার, সাথীগণ ও তার প্রতিবেশীগণ।- ফাতহুল মান্নান। – অনুবাদক)

[2] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি অন্য কোথাও পাইনি। (এটি ইকরামা হতে বর্ণনা করেছেন: বাইহাকী, আল মাদখাল /৩৯৫ নং ৭০২। – ফাতহুল মান্নান, হা/৬২৪ এর টীকা দ্র:- অনুবাদক।) কিন্তু এর শাহিদ রয়েছে উরওয়াহ হতে ইবনু আব্দুল বার, জামি’ বায়ানিল ইলম নং ৪৮৭ এ; হাসান হতে খতীব, আল জামি’ নং ১৯৯৩; (বাইহাকী, শুয়াবুল ঈমান ৬/২০৪) আউফ ইবনু আব্দুল্লাহ ইবনু উতবাহ হতে আবু নুয়াইম তার হিলইয়া ৪/২৪৫; (কা’ব হতে বাইহাকী, আল মাদখাল /৩৯৪ ; উরওয়াহ ইবনু যুবাইর হতে আবু খায়ছামা, আল ইলম /১৩০ নং ৯১) এ বর্ণনা করেছেন।

بَابُ تَأْوِيلِ حَدِيثِ رَسُولِ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ عِمْرَانَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ سُلَيْمَانَ الْأَحْوَلِ عَنْ عِكْرِمَةَ قَالَ إِنَّ أَزْهَدَ النَّاسِ فِي عَالِمٍ أَهْلُهُ

إسناده صحيح

أخبرنا عبد الله بن عمران حدثنا سفيان بن عيينة عن سليمان الأحول عن عكرمة قال إن أزهد الناس في عالم أهله إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইকরিমা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ভূমিকা (المقدمة)

 

 

মন্তব্য করুন

Top