দারেমী পবিত্রতা অধ্যায় ৪র্থ ভাগ হাদিস নং ৮৮১ – ৯৮৮

৮৮১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮১. আমরাহ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা হায়েযের সময় মহিলাদেরকে রাতের বেলায় (রক্তস্রাব) পর্যবেক্ষণ করতে নিষেধ করেছেন। তিনি আরও বলেছেন: তা (স্রাব) হলুদ রংয়ের এবং ঘোলা (মেটে) রংয়ের হতে পারে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩; বাইহাকী ১/৩৩৬।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا ابْنُ عُلَيَّةَ عَنْ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ إِسْحَقَ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ أَبِي بَكْرٍ عَنْ عَمْرَةَ قَالَتْ كَانَتْ عَائِشَةُ تَنْهَى النِّسَاءَ أَنْ يَنْظُرْنَ لَيْلًا فِي الْمَحِيضِ وَتَقُولُ إِنَّهُ قَدْ يَكُونُ الصُّفْرَةَ وَالْكُدْرَةَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا ابن علية عن عبد الرحمن بن إسحق عن عبد الله بن أبي بكر عن عمرة قالت كانت عائشة تنهى النساء أن ينظرن ليلا في المحيض وتقول إنه قد يكون الصفرة والكدرة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আমরাহ বিনতু আবদুর রহমান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮২. ইয়াহইয়া ইবনু সাঈদ দাসী আমরাহ হতে বর্ণনা করেছেন, তিনি বলেন: আমরাহ মহিলাদেরকে গোসল করতে নিষেধ করতেন যতক্ষণ তুলা সাদা বর্ণ অবস্থায় না বের হয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। এতে অজ্ঞাতনামা রাবী রয়েছে।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪ এ সনদটি উল্লিখিত সনদের চেয়েও অধিক যয়ীফ।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ يَحْيَى بْنِ سَعِيدٍ عَنْ مَوْلَاةِ عَمْرَةَ قَالَتْ كَانَتْ عَمْرَةُ تَأْمُرُ النِّسَاءَ أَنْ لَا يَغْتَسِلْنَ حَتَّى تَخْرُجَ الْقُطْنَةُ بَيْضَاءَ

إسناده ضعيف فيه جهالة

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا حماد بن زيد عن يحيى بن سعيد عن مولاة عمرة قالت كانت عمرة تأمر النساء أن لا يغتسلن حتى تخرج القطنة بيضاء إسناده ضعيف فيه جهالة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইয়াহ্ইয়া ইবনু সা‘ঈদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৩. সুফিয়ান রাহি. বলেন, হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলিতে ঘোলা (মেটে) ও হলুদ বর্ণের যা-ই নির্গত হোক, তা হায়েয বলে গণ্য হবে। আর হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলি অতিক্রান্ত হওয়ার পরে রক্তবর্ণ, ঘোলা (মেটে) বর্ণ, কিংবা হলুদ বর্ণের কিছু দেখলে সে ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা বলে গণ্য হবে।[1] আব্দুল্লাহকে জিজ্ঞাসা করা হলো, আপনি কি সুফিয়ানের এ মত গ্রহণ করেছেন? তিনি বললেন: হাঁ।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২০৩।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ قَالَ قَالَ سُفْيَانُ الْكُدْرَةُ وَالصُّفْرَةُ فِي أَيَّامِ الْحَيْضِ حَيْضٌ وَكُلُّ شَيْءٍ رَأَتْهُ بَعْدَ أَيَّامِ الْحَيْضِ مِنْ دَمٍ أَوْ كُدْرَةٍ أَوْ صُفْرَةٍ فَهِيَ مُسْتَحَاضَةٌ سُئِلَ تَأْخُذُ بِقَوْلِ سُفْيَانَ قَالَ نَعَمْ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف قال قال سفيان الكدرة والصفرة في أيام الحيض حيض وكل شيء رأته بعد أيام الحيض من دم أو كدرة أو صفرة فهي مستحاضة سئل تأخذ بقول سفيان قال نعم إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সুফিয়ান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৪. আব্দুল্লাহ ইবনু আবী বাকর থেকে বর্ণিত, তিনি তার স্ত্রী ফাতিমাহ বিনতে মুহাম্মদ হতে বর্ণনা করেন। আর ফাতিমা আমরাহ’র কোলে প্রতিপালিত হয়েছিলেন। তিনি বলেন, আমি কুরাইশদের এক মহিলাকে আমরাহ’র নিকট তুলার পুটলি পাঠিয়েছিলাম- যা হলুদ রং ধারণ করেছিল। সে তাকে জিজ্ঞেস করতো: যখন কোনো মহিলা হায়িযের রক্তস্রাব না দেখে কেবল এটা (হলুদ বর্ণ) দেখে, তাহলে কি সে পবিত্র হয়ে গেছে বলে আপনি মনে করেন? তিনি বলেন: না, যতক্ষণ সে পুরোপুরি সাদা বর্ণ না দেখবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। মুহাম্মদ ইবনু ইসহাক মুদাল্লিস, তিনি এটি ‘আন‘আন পদ্ধতিতে বর্ণনা করেছেন। ফাতিমাহ বিনতে মুহাম্মদ ইবনু ইসহাকর স্ত্রী ছিলেন, যিনি আয়িশার গৃহে লালিত পালিত হয়েছিলেন- আমরা যতদূর জানতে পেরেছি।

তাখরীজ: বাইহাকী ১/৩৩৬; পরবর্তী হাদীসটি দেখুন।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا يَعْلَى عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ إِسْحَقَ عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ أَبِي بَكْرٍ عَنْ صَاحِبَتِهِ فَاطِمَةَ بِنْتِ مُحَمَّدٍ وَكَانَتْ فِي حِجْرِ عَمْرَةَ قَالَتْ أَرْسَلَتْ امْرَأَةٌ مِنْ قُرَيْشٍ إِلَى عَمْرَةَ بِكُرْسُفَةِ قُطْنٍ فِيهَا كَالصُّفْرَةِ تَسْأَلُهَا هَلْ تَرَى إِذَا لَمْ تَرَ الْمَرْأَةُ مِنْ الْحِيضَةِ إِلَّا هَذَا أَنْ قَدْ طَهُرَتْ فَقَالَتْ لَا حَتَّى تَرَى الْبَيَاضَ خَالِصًا

إسناده ضعيف محمد بن إسحاق قد عنعن وهو مدلس

أخبرنا يعلى عن محمد بن إسحق عن عبد الله بن أبي بكر عن صاحبته فاطمة بنت محمد وكانت في حجر عمرة قالت أرسلت امرأة من قريش إلى عمرة بكرسفة قطن فيها كالصفرة تسألها هل ترى إذا لم تر المرأة من الحيضة إلا هذا أن قد طهرت فقالت لا حتى ترى البياض خالصا إسناده ضعيف محمد بن إسحاق قد عنعن وهو مدلس

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল্লাহ ইবনু আবী বাকর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৫. ফাতিমা আসমা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণনা করেন। তিনি (ফাতিমা) বলেন, আমরা আসমা রা: এর গৃহে প্রতিপালিত হয়েছি। যখন আমাদের কারো হায়েয হতো, এরপর সে পবিত্র হলে গোসল করতো এবং সালাত আদায় করতো। তারপর পুনরায় হালকা হলুদ বর্ণের স্রাব হতো। তখন তিনি (আসমা রা:) আমাদেরকে নির্দেশ দিতেন যে, যতক্ষণ পুরোপুরি সাদা রং না দেখা যায়, ততক্ষণ পর্যন্ত সালাত পরিত্যাগ করি।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ। মুহাম্মদ ইবনু ইসহাক যদিও মুদাল্লিস কিন্তু তিনি এখানে ‘হাদ্দাসানা’ তথা সরাসরি ‘আমার নিকট হাদীস বর্ণনা করেন’ বলে উল্লেখ করেছেন, যা তাদলীসের সন্দেহ দূরীভূত করে দেয়।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪; বাইহাকী ১/৩৩৬।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ الرَّقَاشِيُّ عَنْ يَزِيدَ بْنِ زُرَيْعٍ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ إِسْحَقَ قَالَ حَدَّثَتْنِي فَاطِمَةُ عَنْ أَسْمَاءَ قَالَتْ كُنَّا نَكُونُ فِي حِجْرِهَا فَكَانَتْ إِحْدَانَا تَحِيضُ ثُمَّ تَطْهُرُ فَتَغْتَسِلُ وَتُصَلِّي ثُمَّ تَنْكُسُهَا الصُّفْرَةُ الْيَسِيرَةُ فَتَأْمُرُنَا أَنْ نَعْتَزِلَ الصَّلَاةَ حَتَّى لَا نَرَى إِلَّا الْبَيَاضَ خَالِصًا

أخبرنا محمد بن عبد الله الرقاشي عن يزيد بن زريع حدثنا محمد بن إسحق قال حدثتني فاطمة عن أسماء قالت كنا نكون في حجرها فكانت إحدانا تحيض ثم تطهر فتغتسل وتصلي ثم تنكسها الصفرة اليسيرة فتأمرنا أن نعتزل الصلاة حتى لا نرى إلا البياض خالصا

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ফাতিমা বিনতে আল মুনযির (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৬. ইবনু জুরাইজ হতে বর্ণিত, আতা রাহি. বলেন: হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলিতে ঘোলা (মেটে) ও হলুদ বর্ণের- যা-ই নির্গত হোক, তা সবই হায়েযের (রক্তস্রাবের) স্থলাভিষিক্ত বলে গণ্য হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। ইবনু জুরাইজ (মুদাল্লিস) ‘আন’আন’ পদ্ধতিতে এটি বর্ণনা করেছেন।

তাখরীজ: দেখুন, আব্দুর রাযযাক নং ১১৫৮, ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا عُبَيْدُ اللَّهِ بْنُ مُوسَى عَنْ سُفْيَانَ عَنْ ابْنِ جُرَيْجٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ الْكُدْرَةُ وَالصُّفْرَةُ وَالدَّمُ فِي أَيَّامِ الْحَيْضِ بِمَنْزِلَةِ الْحَيْضِ

إسناده ضعيف ابن جريج قد عنعن

أخبرنا عبيد الله بن موسى عن سفيان عن ابن جريج عن عطاء قال الكدرة والصفرة والدم في أيام الحيض بمنزلة الحيض إسناده ضعيف ابن جريج قد عنعن

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু জুরায়জ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৭. আতা ইবনু আবী রাবাহ হতে বর্ণিত, আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা বলেন, যদি কোন মহিলা রক্তস্রাব দেখে তবে সে সালাত আদায় হতে বিরত থাকবে, যতক্ষণ সে ধবধবে কাপড়ের মতো পুরোপুরি সাদা পবিত্রাবস্থা না দেখবে। অতঃপর সে গোসল করবে এবং সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান, সুলাইমান ইবনু মূসার কারণে।

তাখরীজ: বাইহাকী ১/৩৩৬, ৩৩৭; মা’রিফাতুস সুনান ২/১৫৫ নং ২১৮৪ আয়িশার দাসী, আলকামাহ’র মাতা হতে সহীহ সনদে; মালিক ৯৯; আব্দুর রাযযাক নং ১১৫৫৯; দেখুন ফাতহুল বারী ১/৪২০।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا زَيْدُ بْنُ يَحْيَى بْنِ عُبَيْدٍ الدِّمَشْقِيُّ عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ رَاشِدٍ عَنْ سُلَيْمَانَ بْنِ مُوسَى عَنْ عَطَاءِ بْنِ أَبِي رَبَاحٍ عَنْ عَائِشَةَ أَنَّهَا قَالَتْ إِذَا رَأَتْ الدَّمَ فَلْتُمْسِكْ عَنْ الصَّلَاةِ حَتَّى تَرَى الطُّهْرَ أَبْيَضَ كَالْقَصَّةِ ثُمَّ لِتَغْتَسِلْ وَتُصَلِّي

إسناده حسن من أجل سليمان بن موسى

أخبرنا زيد بن يحيى بن عبيد الدمشقي عن محمد بن راشد عن سليمان بن موسى عن عطاء بن أبي رباح عن عائشة أنها قالت إذا رأت الدم فلتمسك عن الصلاة حتى ترى الطهر أبيض كالقصة ثم لتغتسل وتصلي إسناده حسن من أجل سليمان بن موسى

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু আবী রাবাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৮. হাম্মাদ ইবনু যাইদ হতে বর্ণিত, আমির আল আহওয়াল বলেন, হাসান রাহি. হলুদ ও ঘোলা (মেটে) রং (এর স্রাব)কে কিছুই গণ্য করতেন না, আর গোশত ধোয়া পানির মতো (হালকা লালচে রংকেও) নয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এ আছারটি (হাদীসটি) আমি এখানে ব্যতীত আর কোথাও পাইনি। দেখুন, সামনের ৮৯৪ (অনুবাদে ৮৯০) নং হাদীসটি।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ عَامِرٍ الْأَحْوَلِ قَالَ كَانَ الْحَسَنُ لَا يَعُدُّ الصُّفْرَةَ وَالْكُدْرَةَ وَلَا مِثْلَ غُسَالَةِ اللَّحْمِ شَيْئًا

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد عن عامر الأحول قال كان الحسن لا يعد الصفرة والكدرة ولا مثل غسالة اللحم شيئا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাম্মাদ ইবনু যাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৮৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৩. কিভাবে পবিত্র হবে

৮৮৯. মুহাম্মদ হতে বর্ণিত, উম্মু আতিয়াহ বলতেন, আমরা হলুদ ও ঘোলা (মেটে) রং (এর স্রাব)কে কোনো কিছুই গণ্য করতাম না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: সহীহ বুখারী ৩২৬; আবু দাউদ ৩০৭, ৩০৮; নাসাঈ ৩৬৮; ইবনু মাজাহ ৬৪৭; ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩; হাকিম, আল মুসতাদরাক ১/১৭৪, ১৭৫; বাইহাকী ১/৩৩৭; ইবনু হাযম, আল মুহাল্লা ২/১৬৭। দেখুন, মা’রিফাতুস সুনান ২/১৫৬; নাইলুল আওতার ১/৩৪৫-৩৪৬ এবং পরবর্তী ৯০০ (অনুবাদের ৮৯৬) নং হাদীসটি।

بَابُ: الطُّهْرِ كَيْفَ هُوَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا ابْنُ عُلَيَّةَ عَنْ أَيُّوبَ عَنْ مُحَمَّدٍ عَنْ أُمِّ عَطِيَّةَ قَالَتْ كُنَّا لَا نَعُدُّ الصُّفْرَةَ وَالْكُدْرَةَ شَيْئًا

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا ابن علية عن أيوب عن محمد عن أم عطية قالت كنا لا نعد الصفرة والكدرة شيئا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু সীরীন (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯০. মু’তামির তার পিতা হতে বর্ণনা করেন, যে মহিলা তার পবিত্রাবস্থার দিনগুলিতে রক্ত দেখতে পায়- তার সম্পর্কে হাসান রাহি. বলেন: আমার মত হলো, সে গোসল করবে ও সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি এ শব্দে আর কোথাও পাইনি। তবে ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪ এ হাসান হতে বর্ণনা করেন, যখন সে গোসলের পরে কিছু নির্গত হতে দেখবে, তখন সে ভালভাবে কাপড় বেঁধে নেবে, ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে। এর সনদ হাসান।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا مُعْتَمِرٌ عَنْ أَبِيهِ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْمَرْأَةِ تَرَى الدَّمَ فِي أَيَّامِ طُهْرِهَا قَالَ أَرَى أَنْ تَغْتَسِلَ وَتُصَلِّيَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا معتمر عن أبيه عن الحسن في المرأة ترى الدم في أيام طهرها قال أرى أن تغتسل وتصلي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মু’তামির (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯১. ইবনু সীরীন বলেন, হলুদ ও ঘোলা (মেটে) রং (এর স্রাব)কে লোকেরা দোষণীয় কিছু মনে করতেন না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদও পূর্বের সনদ একই। (এটিও সহীহ)।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩-৯৪।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

وَقَالَ ابْنُ سِيرِينَ لَمْ يَكُونُوا يَرَوْنَ بِالْكُدْرَةِ وَالصُّفْرَةِ بَأْسًا

وقال ابن سيرين لم يكونوا يرون بالكدرة والصفرة بأسا

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু সীরীন (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯২. আব্দুল আ’লা হতে বর্ণিত, ’যে মহিলা পবিত্র হওয়ার পর হলুদ রং (এর স্রাব) দেখতে পেল, তার সম্পর্কে মুহাম্মদ ইবনুল হানাফিয়্যাহ বলেন: এটা যতসামান্য (হলুদ বা ঘোলা রং) মাত্র। ফলে সে তা ধুয়ে ফেলবে এবং ওযু করে সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩; এর শব্দগুলো হলো: ‘‘এটি কিছুই নয়।” অর্থাৎ যতসামান্য হলুদ বা মেটে রং মাত্র।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا إِسْرَائِيلُ عَنْ عَبْدِ الْأَعْلَى عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ الْحَنَفِيَّةِ فِي الْمَرْأَةِ تَرَى الصُّفْرَةَ بَعْدَ الطُّهْرِ قَالَ تِلْكَ التَّرِيَّةُ تَغْسِلُهُ وَتَوَضَّأُ وَتُصَلِّي

إسناده ضعيف

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا إسرائيل عن عبد الأعلى عن محمد بن الحنفية في المرأة ترى الصفرة بعد الطهر قال تلك الترية تغسله وتوضأ وتصلي إسناده ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল আ’লা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৩. ইউনুস ও হামীদ হতে বর্ণিত, হাসান রাহিমাহুল্লাহ বলেন: গোসলের পরে যতসামান্য স্রাব দেখলেও তা পবিত্রতাবস্থা ব্যতীত অন্য কিছু নয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ; দেখুন, ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪; কিন্তু বাইহাকী যয়ীফ সনদে হাসান রাহি. হতে বর্ণনা করেছেন: কোনো মহিলা সামান্য স্রাব দেখলে সে সালাত থেকে বিরত থাকবে কেননা, তা হায়েয।’ এর সনদ যয়ীফ। (সুতরাং এটি প্রমাণিত নয়।-অনুবাদক)

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا أَبُو نُعَيْمٍ وَحَجَّاجٌ عَنْ حَمَّادِ بْنِ سَلَمَةَ عَنْ يُونُسَ وَحُمَيْدٍ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ لَيْسَ فِي التَّرِيَّةِ شَيْءٌ بَعْدَ الْغُسْلِ إِلَّا الطُّهُورُ قَالَ عَبْد اللَّهِ التَّرِيَّةُ الصُّفْرَةُ وَالْكُدْرَةُ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو نعيم وحجاج عن حماد بن سلمة عن يونس وحميد عن الحسن قال ليس في الترية شيء بعد الغسل إلا الطهور قال عبد الله الترية الصفرة والكدرة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৪. হারিছ হতে বর্ণিত, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু্ আনহু বলেন: যদি কোনো মহিলা গোসলের পরে দু’-একদিন যতসামান্য স্রাব দেখে, তবুও তা পবিত্রতাবস্থা বলে গণ্য হবে। আর সে সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ আবী ইসহাক থেকে কোনো কিছু শ্রবণ করা হতে পিছিয়ে রয়েছেন।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক, নং ১১৬১ অতি লম্বা আকারে, হাসান সনদে; ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩ যয়ীফ সনদে।

কিন্তু পরবর্তী হাদীস দেখুন, যা এটাকে শক্তিশালী করে।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

حَدَّثَنَا حَجَّاجٌ وَعَفَّانُ قَالَا حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ الْحَجَّاجِ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ عَنْ الْحَارِثِ عَنْ عَلِيٍّ أَنَّهُ قَالَ إِذَا رَأَتْ الْمَرْأَةُ التَّرِيَّةَ بَعْدَ الْغُسْلِ بِيَوْمٍ أَوْ يَوْمَيْنِ فَإِنَّهَا تَطَهَّرُ وَتُصَلِّي

إسناده ضعيف حجاج هو: ابن أرطاة وهو ضعيف

حدثنا حجاج وعفان قالا حدثنا حماد عن الحجاج عن أبي إسحق عن الحارث عن علي أنه قال إذا رأت المرأة الترية بعد الغسل بيوم أو يومين فإنها تطهر وتصلي إسناده ضعيف حجاج هو: ابن أرطاة وهو ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হারিছ আল-আ’ওয়ার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৫. কাইস হতে বর্ণিত, আতা রাহি. বলেন: গোসলের পরে যতসামান্য স্রাব দেখলেও তা পবিত্রতাবস্থা ব্যতীত অন্য কিছু নয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪ এর ভাষা: “সে ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে।” সনদ হাসান । আরও দেখুন, নিচের ৯০৫, ৯০৭ (অনুবাদে ৯০১, ৯০৩) নং হাদীস দু’টি।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ عَنْ قَيْسٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ لَيْسَ فِي التَّرِيَّةِ بَعْدَ الْغُسْلِ إِلَّا الطُّهُورُ

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد بن سلمة عن قيس عن عطاء قال ليس في الترية بعد الغسل إلا الطهور إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ কাইস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৬. উম্মু আতিয়্যাহ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত, যিনি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের হাতে বাইয়াত হয়েছিলেন। তিনি বলেন, আমরা গোসলের পর ঘোলা (মেটে) ও হলুদ রং (এর স্রাব)কে কিছুই গণ্য করতাম না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: হাকিম ১/১৭৪; আবু দাউদ ৩০৭; আর সেটি বুখারীতেও রয়েছে, যা ৮৯৩ (৮৮৯) নং এ গত হয়েছৈ। সেখানে আমরা পূর্ণ তাখরীজ দিয়েছি।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ قَتَادَةَ عَنْ أُمِّ الْهُذَيْلِ عَنْ أُمِّ عَطِيَّةَ وَكَانَتْ قَدْ بَايَعَتْ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنَّهَا قَالَتْ كُنَّا لَا نَعْتَدُّ بِالْكُدْرَةِ وَالصُّفْرَةِ بَعْدَ الْغُسْلِ شَيْئًا

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن قتادة عن أم الهذيل عن أم عطية وكانت قد بايعت النبي صلى الله عليه وسلم أنها قالت كنا لا نعتد بالكدرة والصفرة بعد الغسل شيئا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উম্মু আতিয়্যাহ (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৭. ইউনূস রাহি. হতে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন, যখন হায়িযগ্রস্ত মহিলা গোসলের পরে দু’-একদিন তাজা রক্ত দেখে, তবে সে অবশ্যই একদিন সালাত হতে বিরত থাকবে। আর এরপর (রক্তস্রাব চলতে থাকলে) সে তখন ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা বলে গণ্য হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ يُونُسَ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ إِذَا رَأَتْ الْحَائِضُ دَمًا عَبِيطًا بَعْدَ الْغُسْلِ بِيَوْمٍ أَوْ يَوْمَيْنِ فَإِنَّهَا تُمْسِكُ عَنْ الصَّلَاةِ يَوْمًا ثُمَّ هِيَ بَعْدَ ذَلِكَ مُسْتَحَاضَةٌ

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن يونس عن الحسن قال إذا رأت الحائض دما عبيطا بعد الغسل بيوم أو يومين فإنها تمسك عن الصلاة يوما ثم هي بعد ذلك مستحاضة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনুস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৮. হারিছ হতে বর্ণিত, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেন: যখন কোনো মহিলা হায়েয থেকে পবিত্র হয়, তারপর পবিত্রতার পরে (রক্তস্রাব) দেখে, যা তাকে সন্দেহে নিপতিত করে, এটা জরায়ুতে শয়তানের চলাচলের (বা পদাঘাতের) ফলে সৃষ্ট। ফলে যখন সে এরূপ প্রবাহমান রক্ত, রক্তের ফোঁটা কিংবা গোশত ধোয়া পানির মতো রং দেখে, তখন সে সালাতের ওযুর ন্যায় ওযু করবে, এরপর সালাত আদায় করবে। আর তা যদি তাজা রক্ত হয় যা গোপন থাকে না, তবে সে যেন সালাত পরিত্যাগ করে।[1]

আবু মুহাম্মদ বলেন: আমি ইয়াযীদ ইবনু হারুন রাহি. কে বলতে শুনেছি, যদি কোনো মহিলার (হায়েযের) সাতদিন অতিক্রান্ত হয়, আর সে পবিত্র অবস্থার সাদা রং দেখে, ফলে সে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়, অতঃপর সে দশদিনের মধ্যেই আবার রক্ত দেখে, তবে তার বিবাহ বৈধ ও সঠিক হবে। আর যদি সে সাত দিনের কমে নিজেকে পবিত্র অবস্থায় দেখে, ফলে সে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এরপর রক্তস্রাব দেখে, তবে তা (তার বিবাহ) বৈধ হবে না, কারণ এটা হায়েয। আব্দুল্লাহকে জিজ্ঞেস করা হলো: আপনিও কি একথা বলেন? তিনি বললেন: হাঁ।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান, হারিছ আল আউর এর কারণে।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৩ যয়ীফ সনদে।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا عُبَيْدُ اللَّهِ بْنُ مُوسَى عَنْ إِسْرَائِيلَ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ عَنْ الْحَارِثِ عَنْ عَلِيٍّ قَالَ إِذَا تَطَهَّرَتْ الْمَرْأَةُ مِنْ الْمَحِيضِ ثُمَّ رَأَتْ بَعْدَ الطُّهْرِ مَا يَرِيبُهَا فَإِنَّمَا هِيَ رَكْضَةٌ مِنْ الشَّيْطَانِ فِي الرَّحِمِ فَإِذَا رَأَتْ مِثْلَ الرُّعَافِ أَوْ قَطْرَةِ الدَّمِ أَوْ غُسَالَةِ اللَّحْمِ تَوَضَّأَتْ وُضُوءَهَا لِلصَّلَاةِ ثُمَّ تُصَلِّي فَإِنْ كَانَ دَمًا عَبِيطًا الَّذِي لَا خَفَاءَ بِهِ فَلْتَدَعْ الصَّلَاةَ

قَالَ أَبُو مُحَمَّد سَمِعْتُ يَزِيدَ بْنَ هَارُونَ يَقُولُ إِذَا كَانَ أَيَّامُ الْمَرْأَةِ سَبْعَةً فَرَأَتْ الطُّهْرَ بَيَاضًا فَتَزَوَّجَتْ ثُمَّ رَأَتْ الدَّمَ مَا بَيْنَهَا وَبَيْنَ الْعَشْرِ فَالنِّكَاحُ جَائِزٌ صَحِيحٌ فَإِنْ رَأَتْ الطُّهْرَ دُونَ السَّبْعِ فَتَزَوَّجَتْ ثُمَّ رَأَتْ الدَّمَ فَلَا يَجُوزُ وَهُوَ حَيْضٌ وَسُئِلَ عَبْد اللَّهِ تَقُولُ بِهِ قَالَ نَعَمْ

إسناده حسن من أجل الحارث الأعور

أخبرنا عبيد الله بن موسى عن إسرائيل عن أبي إسحق عن الحارث عن علي قال إذا تطهرت المرأة من المحيض ثم رأت بعد الطهر ما يريبها فإنما هي ركضة من الشيطان في الرحم فإذا رأت مثل الرعاف أو قطرة الدم أو غسالة اللحم توضأت وضوءها للصلاة ثم تصلي فإن كان دما عبيطا الذي لا خفاء به فلتدع الصلاة قال أبو محمد سمعت يزيد بن هارون يقول إذا كان أيام المرأة سبعة فرأت الطهر بياضا فتزوجت ثم رأت الدم ما بينها وبين العشر فالنكاح جائز صحيح فإن رأت الطهر دون السبع فتزوجت ثم رأت الدم فلا يجوز وهو حيض وسئل عبد الله تقول به قال نعم إسناده حسن من أجل الحارث الأعور

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ হারিছ আল-আ’ওয়ার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৮৯৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৮৯৯. হারিছ হতে বর্ণিত, যে মহিলার ছয় দিন কিংবা সাত দিন হায়েয হয়, অতঃপর সে ঘোলা বর্ণ কিংবা হলুদ বর্ণের স্রাব অথবা দু’-এক ফোঁটা রক্ত দেখতে পায়, আলী রা: এ ধরনের মহিলা সম্পর্কে বলেন: এমতাবস্থায় সেটি অকার্যকর; তা তার (পবিত্রাবস্থার) কোনো ক্ষতি করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। শারীক আবী ইসহাক থেকে কোনো কিছু শ্রবণ করা থেকে পিছিয়ে রয়েছে।

তাখরীজ: দেখুন, বিগত ৮৯৮ (অনুবাদে ৮৯৪) নং হাদীসটি।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ عَنْ شَرِيكٍ عَنْ أَبِي إِسْحَقَ عَنْ الْحَارِثِ عَنْ عَلِيٍّ فِي الْمَرْأَةِ يَكُونُ حَيْضُهَا سِتَّةَ أَيَّامٍ أَوْ سَبْعَةَ أَيَّامٍ ثُمَّ تَرَى كُدْرَةً أَوْ صُفْرَةً أَوْ تَرَى الْقَطْرَةَ أَوْ الْقَطْرَتَيْنِ مِنْ الدَّمِ أَنَّ ذَلِكَ بَاطِلٌ وَلَا يَضُرُّهَا شَيْءٌ

إسناده ضعيف شريك متأخر السماع من أبي إسحاق

أخبرنا يزيد بن هارون عن شريك عن أبي إسحق عن الحارث عن علي في المرأة يكون حيضها ستة أيام أو سبعة أيام ثم ترى كدرة أو صفرة أو ترى القطرة أو القطرتين من الدم أن ذلك باطل ولا يضرها شيء إسناده ضعيف شريك متأخر السماع من أبي إسحاق

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হারিছ আল-আ’ওয়ার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৯০০. আব্দুল কারীম হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি আতা’কে এমন মহিলা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলাম যে তার হায়েয হতে পবিত্রতার গোসল করে, অতঃপর হলুদ বর্ণের স্রাব দেখতে পায়, (সে কি করবে)? তিনি বললেন, সে ওযু করবে এবং পানি ছিটিয়ে দেবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান, শারীক এর কারণে।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/৯৪; আরও দেখুন, আব্দুর রাযযাক নং ১১৬৩।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

حَدَّثَنَا أَبُو نُعَيْمٍ حَدَّثَنَا شَرِيكٌ عَنْ عَبْدِ الْكَرِيمِ قَالَ سَأَلْتُ عَطَاءً عَنْ الْمَرْأَةِ تَغْتَسِلُ مِنْ الْحَيْضِ فَتَرَى الصُّفْرَةَ قَالَ تَوَضَّأُ وَتَنْضَحُ

إسناده حسن من أجل شريك

حدثنا أبو نعيم حدثنا شريك عن عبد الكريم قال سألت عطاء عن المرأة تغتسل من الحيض فترى الصفرة قال توضأ وتنضح إسناده حسن من أجل شريك

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল কারীম (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৯০১. আব্দুল মালিক হতে বর্ণিত, আতা রাহি. ইসতিহাযাহগ্রস্ত মহিলা সম্পর্কে বলেন: সে তার হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলিতে সালাত পরিত্যাগ করবে; তবে এতে দু’একদিন (কম-বেশি) হতে পারে। তারপর সে গোসল করবে। এটি যদি (হায়েযের) প্রথম দিকে হয়, তবে সে ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করবে। যদি সে সামান্য কোনো (হলুদ বা মেটে রং এর) স্রাব দেখতে পায়, তবে ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে। আর যদি সে রক্ত দেখতে পায়, তবে যোহরকে পিছিয়ে এবং আসর সালাতকে (এর প্রথম সময়ে) এগিয়ে নিবে। এরপর এ দু’টি সালাতকে এক গোসলে (একত্রিত করে) আদায় করবে। যদি এরপর রক্ত দেখে, মাগরিবকে পিছিয়ে দেবে এবং ঈশা’র সালাতকে এগিয়ে নিবে তারপর এ দু’টি সালাত এক গোসলে (একত্রিত করে) আদায় করবে। এরপর যদি ফজর উদিত হয়, সে পুনরায় ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করবে, যদি সামান্য স্রাব লক্ষ্য করে তবে ওযু করে সালাত আদায় করবে, আর যদি রক্ত দেখে, তবে গোসল করে ফজরের সালাত আদায় করবে। এভাবে প্রতি দিনে রাতে সে তিনবার (গোসল) করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক, নং ১১৬১ হাসান সনদে; নং ১১৭১ এ অপর একটি যয়ীফ সনদে। আরও দেখুন, বিগত ৮৯৯ (অনুবাদে ৮৯৫) নং ও পরবর্তী ৯০৭ (অনুবাদে ৯০৩) নং হাদীস দু’টি।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا يَعْلَى حَدَّثَنَا عَبْدُ الْمَلِكِ عَنْ عَطَاءٍ فِي الْمُسْتَحَاضَةِ قَالَ تَدَعُ الصَّلَاةَ فِي قُرُوئِهَا ذَلِكَ يَوْمًا أَوْ يَوْمَيْنِ ثُمَّ تَغْتَسِلُ فَإِذَا كَانَ عِنْدَ الْأُولَى نَظَرَتْ فَإِنْ كَانَتْ تَرِيَّةً تَوَضَّأَتْ وَصَلَّتْ وَإِنْ كَانَ دَمًا أَخَّرَتْ الظُّهْرَ وَعَجَّلَتْ الْعَصْرَ ثُمَّ صَلَّتْهُمَا بِغُسْلٍ وَاحِدٍ فَإِذَا غَابَتْ الشَّمْسُ نَظَرَتْ فَإِنْ كَانَتْ تَرِيَّةً تَوَضَّأَتْ وَصَلَّتْ وَإِنْ كَانَ دَمًا أَخَّرَتْ الْمَغْرِبَ وَعَجَّلَتْ الْعِشَاءَ ثُمَّ صَلَّتْهُمَا بِغُسْلٍ وَاحِدٍ فَإِذَا طَلَعَ الْفَجْرُ نَظَرَتْ فَإِنْ كَانَتْ تَرِيَّةً تَوَضَّأَتْ وَصَلَّتْ وَإِنْ كَانَ دَمًا اغْتَسَلَتْ وَصَلَّتْ الْغَدَاةَ فِي كُلِّ يَوْمٍ وَلَيْلَةٍ ثَلَاثَ مَرَّاتٍ قَالَ أَبُو مُحَمَّد الْأَقْرَاءُ عِنْدِي الْحَيْضُ

إسناده صحيح

أخبرنا يعلى حدثنا عبد الملك عن عطاء في المستحاضة قال تدع الصلاة في قروئها ذلك يوما أو يومين ثم تغتسل فإذا كان عند الأولى نظرت فإن كانت ترية توضأت وصلت وإن كان دما أخرت الظهر وعجلت العصر ثم صلتهما بغسل واحد فإذا غابت الشمس نظرت فإن كانت ترية توضأت وصلت وإن كان دما أخرت المغرب وعجلت العشاء ثم صلتهما بغسل واحد فإذا طلع الفجر نظرت فإن كانت ترية توضأت وصلت وإن كان دما اغتسلت وصلت الغداة في كل يوم وليلة ثلاث مرات قال أبو محمد الأقراء عندي الحيض إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল মালিক (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৯০২. আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (রমযান মাসে) ই’তিকাফ করলেন, তার কোনো স্ত্রীও তাঁর সাথে ই’তিকাফ করেছিলেন। আর তিনি ছিলেন ইসতিহাযাগ্রস্ত। ফলে তিনি রক্ত দেখতে পেতেন। তিনি রক্তস্রাবের কারণে প্রায়ই তার নিচে একটি পাত্র বসিয়ে রাখতেন এবং তার (বর্ণনাকারী ইকরিমার) ধারণা, আয়িশা রা: হলুদ রংয়ের পানি দেখে বললেন: এ তো সেই বস্তু যা অমুক (আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কোনো স্ত্রী’) দেখতে পেয়েছিল।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: সহীহ বুখারী, ৩০৯, ৩১০; আহমাদ ৬/১৩১; আবু দাউদ ২৪৭৬; ইবনু মাজাহ ১৭৮০; বাইহাকী ১/৩২৯।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا يَحْيَى بْنُ يَحْيَى حَدَّثَنَا خَالِدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ عَنْ خَالِدٍ الْحَذَّاءِ عَنْ عِكْرِمَةَ عَنْ عَائِشَةَ أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ اعْتَكَفَ وَاعْتَكَفَ مَعَهُ بَعْضُ نِسَائِهِ وَهِيَ مُسْتَحَاضَةٌ تَرَى الدَّمَ فَرُبَّمَا وَضَعَتْ الطَّسْتَ تَحْتَهَا مِنْ الدَّمِ وَزَعَمَ أَنَّ عَائِشَةَ رَأَتْ مَاءَ الْعُصْفُرِ فَقَالَتْ كَانَ هَذَا شَيْئًا كَانَتْ فُلَانَةُ تَجِدُهُ

إسناده صحيح

أخبرنا يحيى بن يحيى حدثنا خالد بن عبد الله عن خالد الحذاء عن عكرمة عن عائشة أن النبي صلى الله عليه وسلم اعتكف واعتكف معه بعض نسائه وهي مستحاضة ترى الدم فربما وضعت الطست تحتها من الدم وزعم أن عائشة رأت ماء العصفر فقالت كان هذا شيئا كانت فلانة تجده إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আয়িশা বিনত আবূ বাকর সিদ্দীক (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৯০৩. হাজ্জাজ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি আতা’ রাহি. কে এমন মহিলা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, যে হায়েয থেকে পবিত্র হয়, অতঃপর হলুদ রং (এর স্রাব) দেখতে পায়। তিনি বলেন, সে ওযু করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। কারণ হাজ্জ্বাজ ইবনু আরতাহ যয়ীফ।

তাখরীজ: দেখুন, বিগত ৮৯৯, ৯০৫ (অনুবাদে ৮৯৬, ৯০১) হাদীস দু’টি।

আবু দাউদ বলেন: ‘এটি বর্ণিত হয়েছে সাঈদ ইবনু জুবাইর, আলী, ইবনু আব্বাস… ও আয়িশা রা: থেকে যে, ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা তার হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলিতে সালাত পরিত্যাগ করবে।

এটি হাসান, সাঈদ ইবনুল মুসাইয়্যেব, আতা, মাকহুল, ইবরাহীম, সালিম ও কাসিম রাহি. এরও মত।’

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا عَبْدُ الْوَاحِدِ عَنْ الْحَجَّاجِ قَالَ سَأَلْتُ عَطَاءً عَنْ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ مِنْ الْمَحِيضِ ثُمَّ تَرَى الصُّفْرَةَ قَالَ تَوَضَّأُ

أخبرنا أبو النعمان حدثنا عبد الواحد عن الحجاج قال سألت عطاء عن المرأة تطهر من المحيض ثم ترى الصفرة قال توضأ

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৪. হায়েযের পরে যদি ঘোলা (মেটে) বর্ণ দেখা দেয়

৯০৪. আবু মুহাম্মদ (দারিমী) বলেন: আমি যাইদ ইবনু ইয়াহইয়ার নিকট মালিক ইবনু আনাস থেকে (এ হাদীসটি) পাঠ করলাম যে, তিনি বলেছেন: আমি এমন মহিলা সম্পর্কে তাকে জিজ্ঞেস করলাম যার সাত দিন যাবত হায়েয হলো, এরপর তা আরো বৃদ্ধি পেলো। তিনি বলেন: সে তিনদিনেই পবিত্র হয়ে যাবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ করেননি।-অনুবাদক) দেখুন, আত তামহীদ ১৬/৭৬।

بَابُ الْكُدْرَةِ إِذَا كَانَتْ بَعْدَ الْحَيْضِ

قَالَ أَبُو مُحَمَّد قَرَأْتُ عَلَى زَيْدِ بْنِ يَحْيَى عَنْ مَالِكٍ هُوَ ابْنُ أَنَسٍ قَالَ سَأَلْتُهُ عَنْ الْمَرْأَةِ كَانَ حَيْضُهَا سَبْعَةَ أَيَّامٍ فَزَادَتْ حَيْضَتُهَا قَالَ تَسْتَظْهِرُ بِثَلَاثَةِ أَيَّامٍ

قال أبو محمد قرأت على زيد بن يحيى عن مالك هو ابن أنس قال سألته عن المرأة كان حيضها سبعة أيام فزادت حيضتها قال تستظهر بثلاثة أيام

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯০৫. হিশাম হতে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন, কোনো মহিলা সালাতের ওয়াক্তে হায়েয হতে পবিত্র হলো, আর সে তখনও গোসল করেনি, যদিও সে গোসল করতে সক্ষম ছিল, সে এ সালাতের কাযা’ আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান পর্যন্ত সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৭ যয়ীফ সনদে।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا عَبَّادُ بْنُ عَوَّامٍ عَنْ هِشَامٍ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ إِذَا طَهُرَتْ الْمَرْأَةُ فِي وَقْتِ صَلَاةٍ فَلَمْ تَغْتَسِلْ وَهِيَ قَادِرَةٌ عَلَى أَنْ تَغْتَسِلَ قَضَتْ تِلْكَ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح إلى الحسن

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا عباد بن عوام عن هشام عن الحسن قال إذا طهرت المرأة في وقت صلاة فلم تغتسل وهي قادرة على أن تغتسل قضت تلك الصلاة إسناده صحيح إلى الحسن

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম ইবন হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯০৬. আমর হতে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন, যদি কোনো মহিলা ‍দু’রাকাত সালাত আদায় করার পর তার হায়েয শুরু হয়ে যায়, তবে পবিত্র হয়ে সে সেই সালাতের কাযা আদায় করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: আমর ইবনু উবাইদ মু’তাযিলীকে অনেকেই যয়ীফ বলেছেন। কেউ কেউ হাসান হতে তার বর্ণনাকে ‘মিথ্যা হাদীস’ আখ্যা দিয়েছেন।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৯ সহীহ সনদে।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا عَبْدُ الْوَارِثِ عَنْ عَمْرٍو عَنْ الْحَسَنِ قَالَ إِذَا صَلَّتْ الْمَرْأَةُ رَكْعَتَيْنِ ثُمَّ حَاضَتْ فَلَا تَقْضِي إِذَا طَهُرَتْ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا عبد الوارث عن عمرو عن الحسن قال إذا صلت المرأة ركعتين ثم حاضت فلا تقضي إذا طهرت إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯০৭. মা’মার থেকে বর্ণিত। তিনি কাতাদা থেকে….[1]

[1] তাহক্বীক্ব: কাতাদার হাদীসটি সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক ১২৮৮; এটি সুফিয়ান সাওরীরও মত। দেখুন, ৯১৭ (অনুবাদে ৯১৩) নং হাদীসটি দেখুন।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا الْمَعْمَرِيُّ أَبُو سُفْيَانَ مُحَمَّدُ بْنُ حُمَيْدٍ عَنْ مَعْمَرٍ عَنْ قَتَادَةَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا المعمري أبو سفيان محمد بن حميد عن معمر عن قتادة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মা’মার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯০৮. (তার দারিমীর উস্তাদ মুহাম্মদ ইবনু ঈসার সূত্রে) হাজ্জাজ থেকে বর্ণিত, যে মহিলা যুহর সালাতের সময় (হায়েয হতে) পবিত্র হয়, কিন্তু সে গোসলকে পিছিয়ে দেয়, এমনকি আসরের ওয়াক্ত চলে আসে- এমন মহিলা সম্পর্কে আতা (ও কাতাদা) উভয়ে বলেন: তাকে যুহর সালাতের কাযা আদায় করতে হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: আতার হাদীসের এ সনদে হাজ্জাজ বিন আরতাহ রয়েছে, তিনি যয়ীফ। কিন্তু আছার (হাদীস)টি সহীহ, পূর্বের হাদীস দ্বারা।

তাখরীজ: (মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি।- অনুবাদক)

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

قَالَ ح وَحَدَّثَنَا أَبُو مُعَاوِيَةَ حَدَّثَنَا الْحَجَّاجُ عَنْ عَطَاءٍ فِي الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الظُّهْرِ فَتُؤَخِّرُ غُسْلَهَا حَتَّى يَدْخُلَ وَقْتُ الْعَصْرِ قَالَا تَقْضِي الظُّهْرَ

قال ح وحدثنا أبو معاوية حدثنا الحجاج عن عطاء في المرأة تطهر عند الظهر فتؤخر غسلها حتى يدخل وقت العصر قالا تقضي الظهر

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯০৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯০৯. ইউনুস বর্ণনা করেন, তিনি হাসান থেকে….[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান পর্যন্ত সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৭; আব্দুর রাযযাক নং ১২৮৬ সহীহ সনদে। ৯১৬ (অনুবাদে ৯১২) নং হাদীসটিও দেখুন।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا هُشَيْمٌ أَخْبَرَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا هشيم أخبرنا يونس عن الحسن

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনুস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১০. এবং মুগীরাহ বর্ণনা করেন, তিনি আমির হতে ……[1]

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

وَمُغِيرَةُ عَنْ عَامِرٍ

ومغيرة عن عامر

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১১. উবাইদাহ ইবরাহীম হতে বর্ণিত, যে মহিলা সালাত আদায়ের ব্যাপারে শৈথিল্য প্রদর্শন করে, এমনকি তার হায়েয শুরু হয়ে যায়, তার সম্পর্কে ইবরাহীম বলেন: (হায়েযমুক্ত হওয়ার পর) সে (কাযা হিসেবে) এ সালাত পুনরায় আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদটিও আগের সনদগুলোর সাথে ধারাবাহিক সূত্রে বর্ণিত (অর্থ: উপরের তিনটি হাদীসেরই শেষের দিকের রাবী একই-অনুবাদক)। আর আগেরগুলির মতোই এটির সনদও সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৯ যয়ীফ সনদে; আগের টীকাটি দেখুন।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

وَعُبَيْدَةُ عَنْ إِبْرَاهِيمَ فِي الْمَرْأَةِ تُفَرِّطُ فِي الصَّلَاةِ حَتَّى يُدْرِكَهَا الْحَيْضُ قَالُوا تُعِيدُ تِلْكَ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح

وعبيدة عن إبراهيم في المرأة تفرط في الصلاة حتى يدركها الحيض قالوا تعيد تلك الصلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইব্রাহীম আন-নাখঈ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১২. হাম্মাদ ইবনু আবী সুলাইমান ও ইউনুস থেকে বর্ণিত, সালাতের সময় হওয়ার পর যে মহিলা তা আদায়ে শৈথিল্য করতে থাকে, এমনকি তার হায়েয এসে যায়-এমন মহিলা সম্পর্কে হাসান রাহি. হতে তারা উভয়ে বর্ণনা করেন: যখন সে পবিত্রতার গোসল করবে, তখন সে এ সালাতের কাযা আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি ৯১৩ (অনুবাদে ৯০৯) নং এ গত হয়েছে। পরবর্তী হাদীসটিও দেখুন।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ حَمَّادِ بْنِ أَبِي سُلَيْمَانَ وَيُونُسَ عَنْ الْحَسَنِ فِي امْرَأَةٍ حَضَرَتْ الصَّلَاةُ فَفَرَّطَتْ حَتَّى حَاضَتْ قَالَا تَقْضِي تِلْكَ الصَّلَاةَ إِذَا اغْتَسَلَتْ

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن حماد بن أبي سليمان ويونس عن الحسن في امرأة حضرت الصلاة ففرطت حتى حاضت قالا تقضي تلك الصلاة إذا اغتسلت

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনুস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৩. হিশাম থেকে বর্ণিত, হাসান ও কাতাদা উভয়ে বলেন: যখন কোনো মহিলা সালাতকে নষ্ট করে (অলসতা করে সালাতের ওয়াক্তে তা আদায় না করে), এমনকি তার হায়েয এসে যায়, তবে পবিত্র হওয়ার পর তার উপর এ সালাতের কাযা আদায় করা জরুরী।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: হাসানের হাদীসটি গত হয়েছে ৯১৩, ৯১৬ (অনুবাদে ৯০৯, ৯১২) নং এ। আর কাতাদার হাদীসটিও গত হয়েছে ৯১১ (অনুবাদে ৯০৭) নং এ।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا سُلَيْمَانُ بْنُ دَاوُدَ الزَّهْرَانِيُّ حَدَّثَنَا أَبُو شِهَابٍ عَنْ هِشَامٍ عَنْ الْحَسَنِ وَقَتَادَةَ قَالَا إِذَا ضَيَّعَتْ الْمَرْأَةُ الصَّلَاةَ حَتَّى تَحِيضَ فَعَلَيْهَا الْقَضَاءُ إِذَا طَهُرَتْ

أخبرنا سليمان بن داود الزهراني حدثنا أبو شهاب عن هشام عن الحسن وقتادة قالا إذا ضيعت المرأة الصلاة حتى تحيض فعليها القضاء إذا طهرت

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম ইবন হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৪. মুগীরাহ হতে বর্ণিত, শা’বী বলেন: যখন কোনো মহিলা (সালাতের ওয়াক্ত হওয়ার পর সালাত আদায়ে) শৈথিল্য প্রদর্শন করতে থাকে, এরপর তার হায়েয এসে যায়, তবে (পবিত্র হওয়ার পর) তাকে তা কাযা আদায় করতে হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৯১৪ (অনুবাদে ৯১০) নং এ।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا أَبُو نُعَيْمٍ حَدَّثَنَا الْحَسَنُ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ الشَّعْبِيِّ قَالَ إِذَا فَرَّطَتْ ثُمَّ حَاضَتْ قَضَتْ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو نعيم حدثنا الحسن عن مغيرة عن الشعبي قال إذا فرطت ثم حاضت قضت إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৪. আবী ইউসুফ হতে বর্ণিত, সাঈদ ইবনু জুবাইর রাহি. বলেন, সালাতের ওয়াক্তের মধ্যে যদি কোনো মহিলার হায়েযে এসে যায়, তবে তার উপর সেই সালাতের কাযা আদায় করা ওয়াযিব নয়।[1] আবু মুহাম্মদ বলেন: ইয়া’কুব হলেন কা’কা’র ছেলে কাযী হাদীস বর্ণনাকারী। আর আবু ইউসুফ হচ্ছেন মক্কার শাইখ।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ জাইয়্যেদ।

তাখরীজ: এটি আমি অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

حَدَّثَنَا سَعِيدُ بْنُ الْمُغِيرَةِ قَالَ ابْنُ الْمُبَارَكِ حَدَّثَنَا عَنْ يَعْقُوبَ عَنْ أَبِي يُوسُفَ عَنْ سَعِيدِ بْنِ جُبَيْرٍ قَالَ إِذَا حَاضَتْ الْمَرْأَةُ فِي وَقْتِ الصَّلَاةِ فَلَيْسَ عَلَيْهَا الْقَضَاءُ قَالَ أَبُو مُحَمَّد يَعْقُوبُ هُوَ ابْنُ الْقَعْقَاعِ قَاضِي مَرْوٍ وَأَبُو يُوسُفَ شَيْخٌ مَكِّيٌّ

إسناده جيد

حدثنا سعيد بن المغيرة قال ابن المبارك حدثنا عن يعقوب عن أبي يوسف عن سعيد بن جبير قال إذا حاضت المرأة في وقت الصلاة فليس عليها القضاء قال أبو محمد يعقوب هو ابن القعقاع قاضي مرو وأبو يوسف شيخ مكي إسناده جيد

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আবী ইউসুফ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৬. হাজ্জাজ ও কায়িস হতে বর্ণিত, আতা রাহি. বলেন, যদি কোন মহিলা মাগরিবের পূর্বে (হায়েয হতে) পবিত্রতা লাভ করে, তবে সে যুহর ও আসরের সালাত আদায় করবে। আর যদি ফজরের সালাতের পূর্বে পবিত্র হয়, তবে সে মাগরিব ও ঈশার সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ। যদিও হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ যয়ীফ, কিন্তু তার অনুসরণে কায়িস বর্ণনা করেছেন, যিনি নির্ভরযোগ্য।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ২/৩৩৬, ৩৩৭; সামনের ৯২৪ (অনুবাদে ৯২০) নং হাদীসটিও দেখুন।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ حَجَّاجٍ وَقَيْسٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ إِذَا طَهُرَتْ قَبْلَ الْمَغْرِبِ صَلَّتْ الظُّهْرَ وَالْعَصْرَ وَإِذَا طَهُرَتْ قَبْلَ الْفَجْرِ صَلَّتْ الْمَغْرِبَ وَالْعِشَاءَ

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن حجاج وقيس عن عطاء قال إذا طهرت قبل المغرب صلت الظهر والعصر وإذا طهرت قبل الفجر صلت المغرب والعشاء إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৭. আলী ইবনু যাইদ হতে বর্ণিত, সাঈদ ইবনুল মুসাইয়্যেব থেকেও অনুরূপ (বর্ণিত আছে)।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, আলী ইবনু যাইদ যয়ীফ হওয়ার কারণে। তবে এর পূর্বে যা বর্ণিত হয়েছে, তা একে শক্তিশালী করে।

তাখরীজ: আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও এ সনদে পাইনি।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ عَلِيِّ بْنِ زَيْدٍ عَنْ سَعِيدِ بْنِ الْمُسَيَّبِ مِثْلَهُ

إسناده ضعيف لضعف علي بن زيد

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن علي بن زيد عن سعيد بن المسيب مثله إسناده ضعيف لضعف علي بن زيد

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আলী ইবনু যাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৮. মুক্বসিম হতে বর্ণিত, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা হতেও অনুরূপ (বর্ণিত আছে)।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ২/৩৩৭ যয়ীফ সনদে; তবে এটি সহীহ সনদে ৮৩১ (অনুবাদে ৮২৭) নং এ গত হয়েছে। দেখুন, সামনে ৯৪০ (অনুবাদে ৯৩৬) নং ।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مُحَمَّدٍ عَنْ أَبِي بَكْرِ بْنِ عَيَّاشٍ عَنْ يَزِيدَ بْنِ أَبِي زِيَادٍ عَنْ مِقْسَمٍ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ مِثْلَهُ

إسناده ضعيف

أخبرنا عبد الله بن محمد عن أبي بكر بن عياش عن يزيد بن أبي زياد عن مقسم عن ابن عباس مثله إسناده ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ মুক্বসিম (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯১৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯১৯. ইউনুস থেকে বর্ণিত, হাসান রহি. বলেন, হায়েযগ্রস্ত মহিলা যে ওয়াক্তে (হায়েয হতে) পবিত্রতা লাভ করবে, সেই ওয়াক্তের সালাত সে আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২৮৬ সহীহ সনদে, যে, যদি আসরের ওয়াক্তে পবিত্র হয়, তবে সে আসরের সালাত আদায় করবে, যুহর আদায় করবে না।”

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا هُشَيْمٌ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْحَائِضِ تُصَلِّي الصَّلَاةَ الَّتِي طَهُرَتْ فِي وَقْتِهَا

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا هشيم حدثنا يونس عن الحسن في الحائض تصلي الصلاة التي طهرت في وقتها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২০. আবু নাজিহ হতে বর্ণিত, আতা’, তাউস ও মুজাহিদ বলেন, যখন হায়েযগ্রস্ত মহিলা ফজরের পূর্বে পবিত্রতা লাভ করবে, সে মাগরিব ও ঈশা’র সালাত আদায় করবে। আর যদি সূর্য ডোবার পূর্বে পবিত্র হয়, তবে যুহর ও আসরের সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৭ সহীহ সনদে; আব্দুর রাযযাক নং ১২৮১, আতা ও মা’মার ইবনু তাউস হতে, তিনি তার পিতা তাউস হতে; আতার হাদীসটির সনদ যয়ীফ, কিন্তু তাউসের হাদীসটির সনদ সহীহ। ইবনু আবী শাইবাতে বিভিন্ন সনদে এটি বর্ণিত। আবার আতার হাদীসটি ৯২০ (অনুবাদে ৯১৬) নং এ গত হয়েছে।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا ابْنُ عُيَيْنَةَ عَنْ ابْنِ أَبِي نَجِيحٍ عَنْ عَطَاءٍ وَطَاوُسٍ وَمُجَاهِدٍ قَالُوا إِذَا طَهُرَتْ الْحَائِضُ قَبْلَ الْفَجْرِ صَلَّتْ الْمَغْرِبَ وَالْعِشَاءَ وَإِذَا طَهُرَتْ قَبْلَ غُرُوبِ الشَّمْسِ صَلَّتْ الظُّهْرَ وَالْعَصْرَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا ابن عيينة عن ابن أبي نجيح عن عطاء وطاوس ومجاهد قالوا إذا طهرت الحائض قبل الفجر صلت المغرب والعشاء وإذا طهرت قبل غروب الشمس صلت الظهر والعصر إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবদুল্লাহ ইবনু আবু নাজিহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২১. মানসূর হতে বর্ণিত, হাকাম রাহি. হায়েযগ্রস্ত মহিলা সম্পর্কে বলেন: দিনের শেষভাগে যদি সে পবিত্রাবস্থা লক্ষ্য করে, তবে সে যুহর ও আসর সালাত আদায় করবে। আর সে যদি রাতের শেষভাবে পবিত্রতা লাভ করে, তবে মাগরিব ও ঈশা’ সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২৮২; ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৭ সহীহ সনদে।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ مَنْصُورٍ عَنْ الْحَكَمِ فِي الْحَائِضِ إِذَا رَأَتْ الطُّهْرَ آخِرَ النَّهَارِ صَلَّتْ الظُّهْرَ وَالْعَصْرَ وَإِذَا طَهُرَتْ آخِرَ اللَّيْلِ صَلَّتْ الْمَغْرِبَ وَالْعِشَاءَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن منصور عن الحكم في الحائض إذا رأت الطهر آخر النهار صلت الظهر والعصر وإذا طهرت آخر الليل صلت المغرب والعشاء إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মানসূর ইবন মু’তামির (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২২. লাইছ হতে বর্ণিত, তাউস রাহি. হতেও অনুরূপ বণির্ত হয়েছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, লাইছ যয়ীফ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৭; দেখুন, আব্দুর রাযযাক নং ১২৮২।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ عَنْ سُفْيَانَ عَنْ لَيْثٍ عَنْ طَاوُسٍ مِثْلَهُ

إسناده ضعيف لضعف ليث وهو: ابن أبي سليم

أخبرنا محمد بن يوسف عن سفيان عن ليث عن طاوس مثله إسناده ضعيف لضعف ليث وهو: ابن أبي سليم

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ লাইস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২৩. শু’বাহ হতে বর্ণিত, মুগীরাহ বলেন, ইবরাহীম রাহি. বলতেন: যদি আসরের সময় সে (হায়েযগ্রস্ত মহিলা) পবিত্রতা লাভ করে, তবে সে যুহর এবং আসরের সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/৩৩৬-৩৩৭ যয়ীফ সনদে।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا أَبُو زَيْدٍ سَعِيدُ بْنُ الرَّبِيعِ حَدَّثَنَا شُعْبَةُ عَنْ مُغِيرَةَ قَالَ كَانَ إِبْرَاهِيمُ يَقُولُ إِذَا طَهُرَتْ عِنْدَ الْعَصْرِ صَلَّتْ الظُّهْرَ وَالْعَصْرَ

أخبرنا أبو زيد سعيد بن الربيع حدثنا شعبة عن مغيرة قال كان إبراهيم يقول إذا طهرت عند العصر صلت الظهر والعصر

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ শু’বা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২৪. আবু যাইদ বর্ণনা করেন, শু’বাহ বলেন, আমি হাম্মাদকে প্রশ্ন করেছিলাম। জবাবে তিনি বললেন: যখন সে (হায়েযগ্রস্ত মহিলা) সালাতের ওয়াক্তের মধ্যে পবিত্রতা লাভ করবে, তখন সে (সেই সালাত) আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا أَبُو زَيْدٍ قَالَ قَالَ شُعْبَةُ سَأَلْتُ حَمَّادًا قَالَ إِذَا طَهُرَتْ فِي وَقْتِ صَلَاةٍ صَلَّتْ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو زيد قال قال شعبة سألت حمادا قال إذا طهرت في وقت صلاة صلت إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবু যাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২৫. ইউনুস ও হামীদ হাসান রাহি. হতে, তিনি আনাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণনা করেন, তিনি বলেন: ’যখন সে (হায়েযগ্রস্ত মহিলা) সালাতের ওয়াক্তের মধ্যে পবিত্রতা লাভ করবে, তখন সে সেই সালাত আদায় করবে। আর এ সালাত ব্যতীত অন্য কোনো সালাত সে আদায় করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ। হাসান আনাস রা: হতে শ্রবণ করেছেন, ফলে এ সনদে কোনো ইনকিতা’ নেই। আল্লাহই ভাল জানেন।

তাখরীজ: আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ يُونُسَ وَحُمَيْدٍ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ إِذَا طَهُرَتْ فِي وَقْتِ صَلَاةٍ صَلَّتْ تِلْكَ الصَّلَاةَ وَلَا تُصَلِّي غَيْرَهَا

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن يونس وحميد عن الحسن قال إذا طهرت في وقت صلاة صلت تلك الصلاة ولا تصلي غيرها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৫. সালাতের সময় যদি মহিলার হায়েয হয় কিংবা পবিত্র হয়

৯২৬. আবু মুহাম্মদ (দারিমী) বলেন: আমি যাইদ ইবনু ইয়াহইয়ার নিকট মালিক থেকে (এ হাদীসটি) পাঠ করলাম, তিনি বললেন: আমি এমন মহিলা সম্পর্কে তাকে জিজ্ঞেস করলাম যে আসরের পরে পবিত্র হলো। তিনি বললেন: সে যুহর ও আসরের সালাত আদায় করবে। আমি বললাম: যদি সূর্যাস্তের নিকটবর্তী সময়ে সে পবিত্রতা লাভ করে? তিনি বললেন, সে আসরের সালাত আদায় করবে, তবে তাকে যুহর সালাত আদায় করতে হবে না। আর যদি সে সূর্য অস্ত যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত পবিত্র না হয়, তবে তাকে কিছুই করতে হবে না।[1] আব্দুল্লাহ (দারিমী)কে জিজ্ঞাসা করা হলো: আপনি কি এমত গ্রহণ করেছেন? তিনি বললেন: না।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ عِنْدَ الصَّلَاةِ أَوْ تَحِيضُ

قَالَ أَبُو مُحَمَّد قَرَأْتُ عَلَى زَيْدِ بْنِ يَحْيَى عَنْ مَالِكٍ قَالَ سَأَلْتُهُ عَنْ الْمَرْأَةِ تَطْهُرُ بَعْدَ الْعَصْرِ قَالَ تُصَلِّي الظُّهْرَ وَالْعَصْرَ قُلْتُ فَإِنْ كَانَ طُهْرُهَا قَرِيبًا مِنْ مَغِيبِ الشَّمْسِ قَالَ تُصَلِّي الْعَصْرَ وَلَا تُصَلِّي الظُّهْرَ وَلَوْ أَنَّهَا لَمْ تَطْهُرْ حَتَّى تَغِيبَ الشَّمْسُ لَمْ يَكُنْ عَلَيْهَا شَيْءٌ سُئِلَ عَبْد اللَّهِ تَأْخُذُ بِهِ قَالَ لَا

إسناده صحيح

قال أبو محمد قرأت على زيد بن يحيى عن مالك قال سألته عن المرأة تطهر بعد العصر قال تصلي الظهر والعصر قلت فإن كان طهرها قريبا من مغيب الشمس قال تصلي العصر ولا تصلي الظهر ولو أنها لم تطهر حتى تغيب الشمس لم يكن عليها شيء سئل عبد الله تأخذ به قال لا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯২৭. সাঈদ্ ইবনু জুবাইর হতে বর্ণিত, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা বলেন: একদা তাঁর নিকট এক মহিলা লিখে পাঠাল: ’এত এত সময় পর্যন্ত আমার ইসতিহাযা হয়েছে। তারপর আমার নিকট এ খবর পৌঁছল যে, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলেছেন: সে প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করবে।’ (একথা শুনে) ইবনু আব্বাস বললেন: আলী যা বলেছেন, তা ব্যতীত তার ব্যাপারে আমরা অন্য কিছু জানতে পারিনি।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১১৭৩, ১১৭৮; ইবনু আবী শাইবা ১/১২৭ সহীহ সনদে; তাহাবী, শারহু মা’আনিল আছার ১/৯৯-১০০, ১০১ সহীহ সনদে; ইবনু হাযম, আল মুহাল্লা ২/২১৩।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ أَشْعَثَ بْنِ أَبِي الشَّعْثَاءِ الْمُحَارِبِيِّ عَنْ سَعِيدِ بْنِ جُبَيْرٍ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ قَالَ كَتَبَتْ إِلَيْهِ امْرَأَةٌ إِنِّي قَدْ اسْتُحِضْتُ مُنْذُ كَذَا وَكَذَا فَبَلَغَنِي أَنَّ عَلِيًّا قَالَ تَغْتَسِلُ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ قَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ مَا نَجِدُ لَهَا غَيْرَ مَا قَالَ عَلِيٌّ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن أشعث بن أبي الشعثاء المحاربي عن سعيد بن جبير عن ابن عباس قال كتبت إليه امرأة إني قد استحضت منذ كذا وكذا فبلغني أن عليا قال تغتسل عند كل صلاة قال ابن عباس ما نجد لها غير ما قال علي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সা‘ঈদ ইবনু যুবায়র (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯২৮. ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাছীর থেকে বর্ণিত, আবু সালামাহ কিংবা ইকরিমাহ বলেন, যায়নাব নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাথে ই’তিকাফ করছিলেন, এমতাবস্থায় তার রক্ত প্রবাহিত হচ্ছিল। তখন তিনি তাকে প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করার নির্দেশ দিয়েছিলেন।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ মুনকাতি’ (বিচ্ছিন্ন)।

তাখরীজ: বাইহাকী ১/৩৫১। এখানে আবু সালামাহ ‘ও’ ইকরিমাহ রয়েছে; আব্দুর রাযযাক নং ১১৭ (এ নম্বরটি ভুল, আসলে এটি ১১৭৫, যা প্রিন্টিংয়ে ১১৭ হয়ে গেছে হয়তো। আর এখানে যায়নাব’ এর পরিবর্তে ‘উম্মু সালামাহ’র কথা রয়েছে। আর মুহাক্কিক্বের টীকার বর্ণনানুযায়ী হাদীসটি ১১৭৭ নং যাতে আবী সালামাহ’র মতামত উল্লেখ করা হয়েছে, এখানে যায়নাবের ই’তিকাফ বা ইসতিহাযাগ্রস্ত হওয়ার কোনো উল্লেখ নেই ।- অনুবাদক।)

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ عَنْ يَحْيَى بْنِ أَبِي كَثِيرٍ حَدَّثَنِي أَبُو سَلَمَةَ أَوْ عِكْرِمَةُ قَالَ كَانَتْ زَيْنَبُ تَعْتَكِفُ مَعَ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَهِيَ تُرِيقُ الدَّمَ فَأَمَرَهَا أَنْ تَغْتَسِلَ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ

إسناده منقطع

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا الأوزاعي عن يحيى بن أبي كثير حدثني أبو سلمة أو عكرمة قال كانت زينب تعتكف مع النبي صلى الله عليه وسلم وهي تريق الدم فأمرها أن تغتسل عند كل صلاة إسناده منقطع

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাসীর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯২৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯২৯. ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাছীর থেকে বর্ণিত, আলি ও ইবনু মাসউদ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা উভয়ে বলেন: ’ইসতিহাযাগ্রস্ত নারী প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করবে।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ মুনকাতি’ (বিচ্ছিন্ন)।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/১২৭ আলী ও ইবনু আব্বাস রা: হতে… মুনকাতি’ সনদে; অপর সনদে ১/১২৭ আলী ও ইবনু আব্বাস রা: থেকে… এটিও ‘ইনকিতা’র কারণে যয়ীফ। আর আলী রা: এর হাদীসটি ৯০২ (অনুবাদে ৮৯৮) নং এ গত হয়েছে। আর ইবনু মাসউদ রা: এর হাদীসটি আমি কোথাও পাইনি।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ عَنْ يَحْيَى بْنِ أَبِي كَثِيرٍ أَنَّ عَلِيًّا وَابْنَ مَسْعُودٍ كَانَا يَقُولَانِ الْمُسْتَحَاضَةُ تَغْتَسِلُ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ

إسناده منقطع

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا الأوزاعي عن يحيى بن أبي كثير أن عليا وابن مسعود كانا يقولان المستحاضة تغتسل عند كل صلاة إسناده منقطع

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাসীর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩০. আওযাঈ বলেন, আমি আতা’ ইবনু আবী রাবাহ রাহি. কে বলতে শুনেছি, ’সে (ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা) প্রতি দু’ সালাতের জন্য একবার করে গোসল করবে। আর ফজরের সালাতের জন্য একবার গোসল করবে।[1] আওযাঈ আরও বলেন, যুহরী ও মাকহুল উভয়ে বলতেন: প্রত্যেক সালাতের সময় সে গোসল করবে।’

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৮৩১, ৮৩৩, ৯২০ (অনুবাদে ৮২৭, ৮২৯, ৯১৬) নং এ। আরও দেখুন, আব্দুর রাযযাক নং ১১৭১ দীর্ঘাকারে (যয়ীফ সনদে)।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ قَالَ سَمِعْتُ عَطَاءَ بْنَ أَبِي رَبَاحٍ يَقُولُ تَغْتَسِلُ بَيْنَ كُلِّ صَلَاتَيْنِ غُسْلًا وَاحِدًا وَتَغْتَسِلُ لِلْفَجْرِ غُسْلًا وَاحِدًا قَالَ الْأَوْزَاعِيُّ وَكَانَ الزُّهْرِيُّ وَمَكْحُولٌ يَقُولَانِ تَغْتَسِلُ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا الأوزاعي قال سمعت عطاء بن أبي رباح يقول تغتسل بين كل صلاتين غسلا واحدا وتغتسل للفجر غسلا واحدا قال الأوزاعي وكان الزهري ومكحول يقولان تغتسل عند كل صلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩১. আবু সালামাহ থেকে বর্ণিত, উম্মু হাবীবাহ বিনতে জাহশ রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা’র রক্ত প্রবাহিত হতে শুরু করলে তিনি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলেন। তখন তিনি তাকে প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করতে এবং সালাত আদায় করতে আদেশ করলেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ ইনকিতা’ বা বিচ্ছিন্নতার কারণে যয়ীফ। (তবে হাদীসটি সহীহ যা আবু দাউদ অন্য সনদে বর্ণনা করেছেন; এছাড়া এর শাহিদ হাদীস সহীহ সনদে আয়েশা রা: হতে গত হয়েছে। দেখুন ৭৯৮-৮০৬ নং হাদীসগুলি।-অনুবাদক)

তাখরীজ: বাইহাকী ১/৩৫১।

আবু দাউদ ২৯৩, অপর সনদে মহিলার নামোল্লেখ ছাড়াই উম্মু সালামাহ হতে বর্ণনা করেছেন যার সনদ সহীহ ।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ وَوَهْبُ بْنُ جَرِيرٍ عَنْ هِشَامٍ صَاحِبِ الدَّسْتَوَائِيِّ عَنْ يَحْيَى بْنِ أَبِي كَثِيرٍ عَنْ أَبِي سَلَمَةَ أَنَّ أُمَّ حَبِيبَةَ قَالَ وَهْبٌ أُمَّ حَبِيبَةَ بِنْتَ جَحْشٍ كَانَتْ تُهَرَاقُ الدَّمَ وَأَنَّهَا سَأَلَتْ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنْ ذَاكَ فَأَمَرَهَا أَنْ تَغْتَسِلَ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ وَتُصَلِّيَ

أخبرنا يزيد بن هارون ووهب بن جرير عن هشام صاحب الدستوائي عن يحيى بن أبي كثير عن أبي سلمة أن أم حبيبة قال وهب أم حبيبة بنت جحش كانت تهراق الدم وأنها سألت النبي صلى الله عليه وسلم عن ذاك فأمرها أن تغتسل عند كل صلاة وتصلي

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আবূ সালামাহ্ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩২. আবু বাশার বলেন, আমি সাঈদ ইবনু জুবাইর রাহি. কে বলতে শুনেছি, এক মহিলা ইবনু আব্বাস ও ইবনু যুবাইর রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা’র নিকট লিখে পাঠালেন: আমি ইসতিহাযায় আক্রান্ত হয়েছি, ফলে আমি কখনো পবিত্র হই না। আমি আপনাদের উভয়কে আল্লাহর কথা স্মরণ করিয়ে দিচ্ছি (আল্লাহর কসম দিয়ে বলছি) যে, আপনারা উভয়ে আমাকে ফতোয়া দিবেন। আর আমি আপনাদেরকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করছি।’ তখন তারা (লোকেরা) বলল, আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু বলতেন: সে প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করবে।’ আমি (বর্ণনাকারী সাঈদ ইবনু জুবাইর) একথা (ইবনু আব্বাসের নিকট) উল্লেখ করলাম। আর আমি নিজের হাতে উত্তর লিখে দিলাম আলী রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু যা বলেছেন, তা ব্যতীত তার জন্য আর কিছুই আমি পেলাম না। তখন তাকে বলা হলো, কুফা’ হলো শীতল ঠাণ্ডা এলাকা। তখন তিনি বললেন: আল্লাহ যদি ইচ্ছা করেন, তবে একে এর চেয়েও কঠিন পরীক্ষায় ফেলবেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১১৭৩,১১৭৯; অপর সনদে তাহাবী, শারহু মা’আনিল আছার ১/১০০ সনদ সহীহ।

দ্রষ্টব্য: ইবনু জুবাইরের মুরসালটি বর্ণনা করেছেন আব্দুর রাযযাক, আর তাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনু উমার, আব্দুল্লাহ ইবনু আব্বাস এবং আব্দুল্লাহ ইবনু জুবাইরের মুরসালসমূহ বর্ণনা করেছেন।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا عَبْدُ الصَّمَدِ بْنُ عَبْدِ الْوَارِثِ حَدَّثَنَا شُعْبَةُ حَدَّثَنَا أَبُو بِشْرٍ قَالَ سَمِعْتُ سَعِيدَ بْنَ جُبَيْرٍ يَقُولُ كَتَبَتْ امْرَأَةٌ إِلَى ابْنِ عَبَّاسٍ وَابْنِ الزُّبَيْرِ إِنِّي أُسْتَحَاضُ فَلَا أَطْهُرُ وَإِنِّي أُذَكِّرُكُمَا اللَّهَ إِلَّا أَفْتَيْتُمَانِي وَإِنِّي سَأَلْتُ عَنْ ذَلِكَ فَقَالُوا كَانَ عَلِيٌّ يَقُولُ تَغْتَسِلُ لِكُلِّ صَلَاةٍ فَقَرَأْتُ وَكَتَبْتُ الْجَوَابَ بِيَدِي مَا أَجِدُ لَهَا إِلَّا مَا قَالَ عَلِيٌّ فَقِيلَ إِنَّ الْكُوفَةَ أَرْضٌ بَارِدَةٌ فَقَالَ لَوْ شَاءَ اللَّهُ لَابْتَلَاهَا بِأَشَدَّ مِنْ ذَلِكَ

إسناده صحيح

أخبرنا عبد الصمد بن عبد الوارث حدثنا شعبة حدثنا أبو بشر قال سمعت سعيد بن جبير يقول كتبت امرأة إلى ابن عباس وابن الزبير إني أستحاض فلا أطهر وإني أذكركما الله إلا أفتيتماني وإني سألت عن ذلك فقالوا كان علي يقول تغتسل لكل صلاة فقرأت وكتبت الجواب بيدي ما أجد لها إلا ما قال علي فقيل إن الكوفة أرض باردة فقال لو شاء الله لابتلاها بأشد من ذلك إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবু বাশার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৩. মুজাহিদ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমাকে বলা হলো: সে মহিলার দেশ (কুফা) খুব ঠাণ্ডার দেশ। তখন তিনি বললেন: সে যুহর সালাতকে পিছিয়ে দেবে এবং আসর সালাতকে আগে আগে আদায় করবে, আর (এ দু’টি সালাতের জন্য) একবার গোসল করবে; অনুরূপভাবে মাগরিবকে পিছিয়ে দেবে এবং ঈশাকে আগে আগে আদায় করবে, আর (এ দু’টি সালাতের জন্য) আরেকবার গোসল করবে। আর ফজর সালাতের জন্য একবার গোসল করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাহাবী, শারহু মা’আনিল আছার ১/১০১-১০২।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا حَجَّاجُ بْنُ مِنْهَالٍ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ قَيْسٍ عَنْ مُجَاهِدٍ قَالَ قِيلَ لِابْنِ عَبَّاسٍ إِنَّ أَرْضَهَا أَرْضٌ بَارِدَةٌ فَقَالَ تُؤَخِّرُ الظُّهْرَ وَتُعَجِّلُ الْعَصْرَ وَتَغْتَسِلُ غُسْلًا وَتُؤَخِّرُ الْمَغْرِبَ وَتُعَجِّلُ الْعِشَاءَ وَتَغْتَسِلُ غُسْلًا وَتَغْتَسِلُ لِلْفَجْرِ غُسْلًا

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج بن منهال حدثنا حماد عن قيس عن مجاهد قال قيل لابن عباس إن أرضها أرض باردة فقال تؤخر الظهر وتعجل العصر وتغتسل غسلا وتؤخر المغرب وتعجل العشاء وتغتسل غسلا وتغتسل للفجر غسلا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুজাহিদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৪. যায়নাব বিনতে উম্ম সালামাহ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, জাহশের কন্যা যিনি আব্দুর রহমান ইবনু আউফের স্ত্রী ছিলেন, তিনি ইসতিহাযাগ্রস্ত ছিলেন। ফলে তিনি (যে পানিভরা পাত্রে বসে থাকতেন, সেই) পাত্র হতে যখন উঠে আসতেন, তখন পাত্রের উপরিভাগ পর্যন্ত রক্তে লাল হয়ে যেতো। এমতাবস্থায়ই তিনি সালাত আদায় করতেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/১২৮ …। আরও দেখুন, উসদুল গাবাহ ৭/৬৯-৭১, ৩১৪-৩১৫; আল ইসাবাহ ১২/১৯১-১৯২, ২৮২-২৮৩, ১৩/১৯২; ইসতিযকার ৩/২২৮।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ هِشَامِ بْنِ عُرْوَةَ عَنْ أَبِيهِ عَنْ زَيْنَبَ بِنْتِ أُمِّ سَلَمَةَ أَنَّ ابْنَةَ جَحْشٍ كَانَتْ تَحْتَ عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ عَوْفٍ وَكَانَتْ تُسْتَحَاضُ فَكَانَتْ تَخْرُجُ مِنْ مِرْكَنِهَا وَإِنَّهُ لَعَالِيهِ الدَّمُ فَتُصَلِّي

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن هشام بن عروة عن أبيه عن زينب بنت أم سلمة أن ابنة جحش كانت تحت عبد الرحمن بن عوف وكانت تستحاض فكانت تخرج من مركنها وإنه لعاليه الدم فتصلي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ যায়নাব বিনত আবূ সালামাহ (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৫. আওযাঈ বলেন, আমি যুহরী ও ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাছীরকে বলতে শুনেছি, তারা উভয়ে বলেন: “সে প্রত্যেক সালাতের জন্য এককভাবে গোসল করবে।” আওযাঈ বলেন: মাকহুল থেকে এটার অনুরূপ বক্তব্য আমার নিকট পৌছেছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি এটি আর কোথাও পাইনি। মাকহুল হতে আওযাঈ’র বর্ণনাটি যয়ীফ। আর পূর্বে বর্ণিত, আয়িশা রা: এর হাদীস দেখুন নং ৭৯৫ (অনুবাদে ৭৯১)।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا وَهْبُ بْنُ سَعِيدٍ الدِّمَشْقِيُّ عَنْ شُعَيْبِ بْنِ إِسْحَقَ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ قَالَ سَمِعْتُ الزُّهْرِيَّ وَيَحْيَى بْنَ أَبِي كَثِيرٍ يَقُولَانِ تُفْرِدُ لِكُلِّ صَلَاةٍ اغْتِسَالَةً قَالَ الْأَوْزَاعِيُّ وَبَلَغَنِي عَنْ مَكْحُولٍ مِثْلُ ذَلِكَ

إسناده صحيح

أخبرنا وهب بن سعيد الدمشقي عن شعيب بن إسحق حدثنا الأوزاعي قال سمعت الزهري ويحيى بن أبي كثير يقولان تفرد لكل صلاة اغتسالة قال الأوزاعي وبلغني عن مكحول مثل ذلك إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৬. আতা রাহি. হতে বর্ণিত, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা বলতেন: প্রতি দু’সালাতের জন্য একবার গোসল করবে এবং ফজর সালাতের জন্য এককভাবে গোসল করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি ৮৩১, ৯২২ (অনুবাদে ৮২৭, ৯১৮) নং এ গত হয়েছে। আরও দেখুন, সুনানে বাইহাকী ১/৮৯।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا وَهْبُ بْنُ سَعِيدٍ عَنْ شُعَيْبٍ حَدَّثَنَا الْأَوْزَاعِيُّ أَخْبَرَنِي عَطَاءٌ أَنَّ ابْنَ عَبَّاسٍ كَانَ يَقُولُ لِكُلِّ صَلَاتَيْنِ اغْتِسَالَةٌ وَتُفْرِدُ لِصَلَاةِ الصُّبْحِ اغْتِسَالَةً

أخبرنا وهب بن سعيد عن شعيب حدثنا الأوزاعي أخبرني عطاء أن ابن عباس كان يقول لكل صلاتين اغتسالة وتفرد لصلاة الصبح اغتسالة

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু আবী রাবাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৭. হাম্মাদ আল কুফী থেকে বর্ণিত, এক মহিলা ইবরাহীমকে জিজ্ঞেস করল। সে বললো, আমি ইসতিহাযায় আক্রান্ত। তখন তিনি বললেন: তোমার উপর পানি ব্যবহার ওয়াজিব। তুমি পানি ছিটিয়ে দেবে। ফলে পানি তোমার (শরীর) থেকে রক্ত মুছে দেবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: (মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি। -অনুবাদক)

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ حَمَّادٍ الْكُوفِيِّ أَنَّ امْرَأَةً سَأَلَتْ إِبْرَاهِيمَ فَقَالَتْ إِنِّي أُسْتَحَاضُ فَقَالَ عَلَيْكِ بِالْمَاءِ فَانْضَحِيهِ فَإِنَّهُ يَقْطَعُ الدَّمَ عَنْكِ

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن حماد الكوفي أن امرأة سألت إبراهيم فقالت إني أستحاض فقال عليك بالماء فانضحيه فإنه يقطع الدم عنك إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাম্মাদ ইবনু আবী সুলাইমান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৮. ইউনুস থেকে বর্ণিত, তালাকপ্রাপ্তা মহিলা, যে তার ব্যাপারে সন্দিহান, তার সম্পর্কে হাসান রাহি. বলেন, সে এক বছর সময় প্রতীক্ষা করবে। এরপর যদি তার হায়েয হয়, (তবে তার ইদ্দত শেষ হবে), তা না হলে একবছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর আরও তিনমাস অপেক্ষা করবে। এরপর যদি তার হায়েয হয়, তবে তার ইদ্দত শেষ হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান।

তাখরীজ: দেখুন, আব্দুর রাযযাক ১১০৯৮।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا عَفَّانُ بْنُ مُسْلِمٍ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ دِينَارٍ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْمُطَلَّقَةِ الَّتِي ارْتِيبَ بِهَا تَرَبَّصُ سَنَةً فَإِنْ حَاضَتْ وَإِلَّا تَرَبَّصَتْ بَعْدَ انْقِضَاءِ السَّنَةِ ثَلَاثَةَ أَشْهُرٍ فَإِنْ حَاضَتْ وَإِلَّا فَقَدْ انْقَضَتْ عِدَّتُهَا

إسناده حسن

أخبرنا عفان بن مسلم حدثنا محمد بن دينار حدثنا يونس عن الحسن في المطلقة التي ارتيب بها تربص سنة فإن حاضت وإلا تربصت بعد انقضاء السنة ثلاثة أشهر فإن حاضت وإلا فقد انقضت عدتها إسناده حسن

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৩৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৩৯. আব্দুল্লাহ ইবনু মাসলামাহ বলেন, মালিককে ’ইসতিহাযাগ্রস্ত তালাকপ্রাপ্তা মহিলা’ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি ইবনু শিহাব হতে, তিনি সাঈদ ইবনুল মুসাইয়্যিব হতে বর্ণনা করেন। তিনি বলেছেন: ’সেই মহিলার ইদ্দতকাল একবছর।’[1] আবু মুহাম্মদ বলেন: এটি মালিকের মত।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: মালিক, তালাক অধ্যায় ৭১; ইবনু আবী শাইবা ৫/১৫৮; এটি সামনে ৯৪৮ (অনুবাদে ৯৪৪) নং এ আসছে। আব্দুর রাযযাক নং ১১১২৪।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مَسْلَمَةَ قَالَ سُئِلَ مَالِكٌ عَنْ عِدَّةِ الْمُسْتَحَاضَةِ إِذَا طُلِّقَتْ فَحَدَّثَنَا مَالِكٌ عَنْ ابْنِ شِهَابٍ عَنْ سَعِيدِ بْنِ الْمُسَيَّبِ أَنَّهُ قَالَ عِدَّتُهَا سَنَةٌ قَالَ أَبُو مُحَمَّد هُوَ قَوْلُ مَالِكٍ

إسناده صحيح

أخبرنا عبد الله بن مسلمة قال سئل مالك عن عدة المستحاضة إذا طلقت فحدثنا مالك عن ابن شهاب عن سعيد بن المسيب أنه قال عدتها سنة قال أبو محمد هو قول مالك إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আব্দুল্লাহ ইবনু মাসলামাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪০. আমর ইবনু দীনার বলেন, জাবির ইবনু যাইদ রাহি. কে ’তালাকপ্রাপ্তা যুবতী নারী সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলো বার্ধক্য ছাড়াই যার হায়েয বন্ধ হয়ে হয়ে আছে। তিনি বলেন: হায়িয বন্ধ থাকা অবস্থা থেকে তার হায়েয হওয়া (-ই তার ইদ্দতকাল)। আর তাউস বলেন: (তার ইদ্দতকাল) তিনমাস।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আমি জাবিরের হাদীসটি আর কোথাও পাইনি। আর তাওসের বক্তব্যটি বর্ণনা করেছেন, আব্দুর রাযযাক নং ১১১২২।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ حَدَّثَنَا عَمْرُو بْنُ دِينَارٍ قَالَ سُئِلَ جَابِرُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ الْمَرْأَةِ تُطَلَّقُ وَهِيَ شَابَّةٌ فَتَرْتَفِعُ حِيضَتُهَا مِنْ غَيْرِ كِبَرٍ قَالَ مِنْ غَيْرِ حَيْضٍ تَحَيَّضُ وَقَالَ طَاوُسٌ ثَلَاثَةَ أَشْهُرٍ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد حدثنا عمرو بن دينار قال سئل جابر بن زيد عن المرأة تطلق وهي شابة فترتفع حيضتها من غير كبر قال من غير حيض تحيض وقال طاوس ثلاثة أشهر إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আমর ইবনু দীনার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪১. মা’মার হতে বর্ণিত, যুহরী রাহি. বলেন: যদি কোনো লোক তার স্ত্রীকে তালাক দেয়, তারপর তার একবার বা দু’বার হায়েয অতিক্রান্ত হয়, এরপর তার হায়েয বন্ধ হয়ে যায়, আর যদি তা বার্ধক্যজনিত কারণে হয়, তবে সে তিনমাস ইদ্দত গণনা করবে। আর যদি সে যুবতী হয় এবং হায়েযশুন্য অবস্থা হয়ে থাকে (তার ধারণা হয় যে তার হায়েয বন্ধ হয়ে গেছে), সে হায়েয শুন্য হওয়ার পর থেকে একবছর ইদ্দত গণনা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১১০৯৭; তাবারী ২৮/১৪০-১৪১।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا نَصْرُ بْنُ عَلِيٍّ حَدَّثَنَا عَبْدُ الْأَعْلَى عَنْ مَعْمَرٍ عَنْ الزُّهْرِيِّ قَالَ إِذَا طَلَّقَ الرَّجُلُ امْرَأَتَهُ فَحَاضَتْ حَيْضَةً أَوْ حَيْضَتَيْنِ ثُمَّ ارْتَفَعَتْ حَيْضَتُهَا إِنْ كَانَ ذَلِكَ مِنْ كِبَرٍ اعْتَدَّتْ ثَلَاثَةَ أَشْهُرٍ وَإِنْ كَانَتْ شَابَّةً وَارْتَابَتْ اعْتَدَّتْ سَنَةً بَعْدَ الرِّيبَةِ

إسناده صحيح

أخبرنا نصر بن علي حدثنا عبد الأعلى عن معمر عن الزهري قال إذا طلق الرجل امرأته فحاضت حيضة أو حيضتين ثم ارتفعت حيضتها إن كان ذلك من كبر اعتدت ثلاثة أشهر وإن كانت شابة وارتابت اعتدت سنة بعد الريبة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মা’মার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪২. কাতাদা থেকে বর্ণিত, ইকরিমাহ বলেন: যে মহিলার হায়েয সুনির্ধারিত (নিয়মিত) নয়, কোনো মাসে একবার হয়, আবার কোনো মাসে দু’বারও হয়, তার ইদ্দতকাল তিনমাস।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

আব্দুর রাযযাক নং ১১১২৩ সহীহ সনদে; তাবারী ২৮/১৪১; ইবনু আবী শাইবা ৫/১৫৮-১৫৯ সহীহ সনদে।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا خَلِيفَةُ بْنُ خَيَّاطٍ حَدَّثَنَا غُنْدَرٌ حَدَّثَنَا شُعْبَةُ عَنْ قَتَادَةَ عَنْ عِكْرِمَةَ قَالَ الْمُسْتَحَاضَةُ وَالَّتِي لَا يَسْتَقِيمُ لَهَا حَيْضٌ فَتَحِيضُ فِي شَهْرٍ مَرَّةً وَفِي الشَّهْرِ مَرَّتَيْنِ عِدَّتُهَا ثَلَاثَةُ أَشْهُرٍ

إسناده صحيح

أخبرنا خليفة بن خياط حدثنا غندر حدثنا شعبة عن قتادة عن عكرمة قال المستحاضة والتي لا يستقيم لها حيض فتحيض في شهر مرة وفي الشهر مرتين عدتها ثلاثة أشهر إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ কাতাদাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৩. হিশাম থেকে বর্ণিত, হাম্মাদ রাহি. বলেন, ’কুরূ’সমূহের (হায়েয) দ্বারা সে ইদ্দত গণনা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: দেখুন, ইবনু আবী শাইবা ৫/১৫৮, এখানে এর শাহিদ হাদীস বর্ণিত হয়েছে।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا خَلِيفَةُ بْنُ خَيَّاطٍ حَدَّثَنَا أَبُو دَاوُدَ عَنْ هِشَامٍ عَنْ حَمَّادٍ قَالَ تَعْتَدُّ بِالْأَقْرَاءِ

إسناده صحيح

أخبرنا خليفة بن خياط حدثنا أبو داود عن هشام عن حماد قال تعتد بالأقراء إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম আদ-দাসতুয়ানী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৪. ইবনু শিহাব (যুহুরী) হতে বর্ণিত, সাঈদ ইবনুল মুসাইয়্যিব রাহি. বলেন: ইসতিহাযাগ্রস্ত নারীর ইদ্দতকাল এক বছর।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: হাদীসটি সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৯৪৩ (অনুবাদে ৯৩৯) নং এ।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

حَدَّثَنَا خَالِدُ بْنُ مَخْلَدٍ حَدَّثَنَا مَالِكٌ عَنْ ابْنِ شِهَابٍ عَنْ سَعِيدِ بْنِ الْمُسَيَّبِ قَالَ عِدَّةُ الْمُسْتَحَاضَةِ سَنَةٌ

أثر صحيح

حدثنا خالد بن مخلد حدثنا مالك عن ابن شهاب عن سعيد بن المسيب قال عدة المستحاضة سنة أثر صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু শিহাব আয-যুহরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৫. (ইসহাক ইবনু ঈসার সূত্রে) ইউনুস হতে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন: ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা ’কুরূ’সমূহের (হায়েযের) দ্বারা তার ইদ্দত গণনা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। এ সনদে হুশাইম রয়েছে, যে এটি ‘আন‘আন পদ্ধতিতে বর্ণনা করেছেন (আর তিনি মুদাল্লিস)।

তাখরীজ: একাধিক সনদে ইবনু আবী শাইবা ৫/১৫৮ সহীহ এবং অপর একটি হাসান সনদে। এটি সম্মুখে আসছে ৯৫১ (৯৪৭) নং এ।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا إِسْحَقُ بْنُ عِيسَى أَخْبَرَنَا هُشَيْمٌ عَنْ يُونُسَ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ الْمُسْتَحَاضَةُ تَعْتَدُّ بِالْأَقْرَاءِ

إسناده ضعيف فيه هشيم وقد عنعن

أخبرنا إسحق بن عيسى أخبرنا هشيم عن يونس عن الحسن قال المستحاضة تعتد بالأقراء إسناده ضعيف فيه هشيم وقد عنعن

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৬. মা’মার হতে বর্ণিত, যুহরী রাহি. বলেন: ’কুরূ’সমূহের (হায়েয) দ্বারা (সে ইদ্দত গণনা করবে)।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৫/১২৮।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا خَلِيفَةُ حَدَّثَنَا عَبْدُ الْأَعْلَى عَنْ مَعْمَرٍ عَنْ الزُّهْرِيِّ قَالَ بِالْأَقْرَاءِ قَالَ أَبُو مُحَمَّد أَهْلُ الْحِجَازِ يَقُولُونَ الْأَقْرَاءُ الْأَطْهَارُ وَقَالَ أَهْلُ الْعِرَاقِ هُوَ الْحَيْضُ قَالَ عَبْد اللَّهِ وَأَنَا أَقُولُ هُوَ الْحَيْضُ

إسناده صحيح

أخبرنا خليفة حدثنا عبد الأعلى عن معمر عن الزهري قال بالأقراء قال أبو محمد أهل الحجاز يقولون الأقراء الأطهار وقال أهل العراق هو الحيض قال عبد الله وأنا أقول هو الحيض إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মা’মার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৭. (মুসা ইবনু খালিদ সূত্রে) ইউনুস থেকে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন: ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা ’কুরূ’সমূহের (হায়েযের) দ্বারা তার ইদ্দত গণনা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا وُهَيْبٌ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ الْمُسْتَحَاضَةُ تَعْتَدُّ بِالْأَقْرَاءِ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا وهيب حدثنا يونس عن الحسن قال المستحاضة تعتد بالأقراء إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৮. আওযাঈ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, কোনো লোক তার স্ত্রীকে তালাক দেয়, আর তার স্ত্রী হায়েযসম্পন্না যুবতী নারী। কিন্তু তালাক দেওয়ার পর থেকে তার হায়েয বন্ধ হয়ে যায়। তারপর সে আর রক্ত দেখতে পায়নি। -এ ধরণের নারী সম্পর্কে আমি যুহরী রাহি. কে জিজ্ঞেস করলাম, সে কতদিন ইদ্দত গণনা করবে? জবাবে তিনি বললেন: তিন মাস।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ জাইয়্যিদ।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি।-অনুবাদক)

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

حَدَّثَنَا مُوسَى بْنُ خَالِدٍ عَنْ الْهِقْلِ بْنِ زِيَادٍ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ قَالَ سَأَلْتُ الزُّهْرِيَّ عَنْ رَجُلٍ طَلَّقَ امْرَأَتَهُ وَهِيَ شَابَّةٌ تَحِيضُ فَانْقَطَعَ عَنْهَا الْمَحِيضُ حِينَ طَلَّقَهَا فَلَمْ تَرَ دَمًا كَمْ تَعْتَدُّ قَالَ ثَلَاثَةَ أَشْهُرٍ

حدثنا موسى بن خالد عن الهقل بن زياد عن الأوزاعي قال سألت الزهري عن رجل طلق امرأته وهي شابة تحيض فانقطع عنها المحيض حين طلقها فلم تر دما كم تعتد قال ثلاثة أشهر

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৪৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৪৯. তিনি (আওযাঈ) বলেন, আমি যুহরী রাহি. কে আরও জিজ্ঞেস করলাম, কোনো লোক তার স্ত্রীকে তালাক দেয়, এরপর তার দু’বার হায়েয হয়। তারপর তার হায়েয বন্ধ হয়ে যায়। এমতাবস্থায় সে কতদিন অপেক্ষা করবে? তিনি বলেন: ’তার ইদ্দত এক বছর।’[1]

তিনি (আওযাঈ) বলেন, কোনো লোক তার স্ত্রীকে তালাক দেয়, যার হায়েয হয়। সে মহিলা তিনমাস অপেক্ষা করা (তার হায়েয বন্ধ থাকা)-এর পর তার আরেকবার হায়েয হয়। তারপর তার হায়েয আসতে দেরি হয়। তারপর সে সাত-আট মাস অপেক্ষা করে। তারপর (এভাবে) তার একবার তাড়াতাড়ি হায়েয হয়, আরেকবার দেরিতে হায়েয হতে থাকে। এমন স্ত্রীলোক সম্পর্কে আমি যুহরী রাহি. কে জিজ্ঞেস করলাম: এমতাবস্থায়, সে কতদিন হায়েয গণনা করবে? তিনি বলেন: যদি তার হায়েয তার নির্ধারিত সময় হতে বিভিন্ন রকম হয়, তবে তার ইদ্দত এক বছর।[2]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ আগের হাদীসের সনদ একই তথা জাইয়্যিদ।

তাখরীজ: দেখুন, বিগত ৯৪১ (অনুবাদে ৯৩৭) নং হাদীসটি।

[2] তাহক্বীক্ব: এটিও আগের হাদীসের সনদই। আর সেটি জাইয়্যিদ (উত্তম)।

তাখরীজ: ((মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি।-অনুবাদক))

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

قَالَ وَسَأَلْتُ الزُّهْرِيَّ عَنْ رَجُلٍ طَلَّقَ امْرَأَتَهُ فَحَاضَتْ حَيْضَتَيْنِ ثُمَّ ارْتَفَعَتْ حَيْضَتُهَا كَمْ تَرَبَّصُ قَالَ عِدَّتُهَا سَنَةٌ قَالَ وَسَأَلْتُ الزُّهْرِيَّ عَنْ رَجُلٍ طَلَّقَ امْرَأَتَهُ وَهِيَ تَحِيضُ تَمْكُثُ ثَلَاثَةَ أَشْهُرٍ ثُمَّ تَحِيضُ حَيْضَةً ثُمَّ يَتَأَخَّرُ عَنْهَا الْحَيْضُ ثُمَّ تَمْكُثُ السَّبْعَةَ الْأَشْهُرَ وَالثَّمَانِيَةَ ثُمَّ تَحِيضُ أُخْرَى تَسْتَعْجِلُ إِلَيْهَا مَرَّةً وَتَسْتَأْخِرُ أُخْرَى كَيْفَ تَعْتَدُّ قَالَ إِذَا اخْتَلَفَتْ حِيضَتُهَا عَنْ أَقْرَائِهَا فَعِدَّتُهَا سَنَةٌ

قال وسألت الزهري عن رجل طلق امرأته فحاضت حيضتين ثم ارتفعت حيضتها كم تربص قال عدتها سنة قال وسألت الزهري عن رجل طلق امرأته وهي تحيض تمكث ثلاثة أشهر ثم تحيض حيضة ثم يتأخر عنها الحيض ثم تمكث السبعة الأشهر والثمانية ثم تحيض أخرى تستعجل إليها مرة وتستأخر أخرى كيف تعتد قال إذا اختلفت حيضتها عن أقرائها فعدتها سنة

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৫০. (আওযাঈ বলেন) আমি বললাম: যদি এমন মহিলাকে তালাক দেয়া হয়, যার প্রতি বছরে মাত্র একবার করে হায়েয হয়, তবে সে কিভাবে ইদ্দত গণনা করবে? তিনি বললেন: যদি তার হায়েয হয়, আর তার হায়েযের নির্ধারিত দিনগুলি (কুরূ’সমূহ) জানা থাকে, তবে সেটাই তার হায়েযের নির্ধারিত দিন (কুরূ’) হিসেবে ধরতে হবে। আর আমার মতে, সে তার কুরূ’সমূহ (হায়েয) অনুযায়ী ইদ্দত গণনা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদও আগের সনদটিই। ফলে এটিও জাইয়্যেদ।

তাখরীজ: (মুহাক্কিক্ব এর কোন তাখরীজ করেননি।-অনুবাদক)

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

قُلْتُ وَكَيْفَ إِنْ كَانَ طَلَّقَ وَهِيَ تَحِيضُ فِي كُلِّ سَنَةٍ مَرَّةً كَمْ تَعْتَدُّ قَالَ إِنْ كَانَتْ تَحِيضُ أَقْرَاؤُهَا مَعْلُومَةٌ هِيَ أَقْرَاؤُهَا فَإِنَّا نُرَى أَنْ تَعْتَدَّ أَقْرَاءَهَا

قلت وكيف إن كان طلق وهي تحيض في كل سنة مرة كم تعتد قال إن كانت تحيض أقراؤها معلومة هي أقراؤها فإنا نرى أن تعتد أقراءها

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৫১. আওযাঈ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি যুহরী রাহি. কে একটি লোক সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলাম যে একটি দাসী ক্রয় করলো যে এখনো হায়েযে উপনীত হয়নি আর গর্ভধারণের মতো (বয়সও তার) হয়নি। এমতাবস্থায় সেই লোকটি কতদিন তার থেকে সম্পর্কহীন থাকবে? তিনি বললেন: তিন মাস।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি সামনে ১২১৭ নং এ আসছে।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ الْمُبَارَكِ حَدَّثَنَا عُمَرُ بْنُ عَبْدِ الْوَاحِدِ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ قَالَ سَأَلْتُ الزُّهْرِيَّ عَنْ الرَّجُلِ يَبْتَاعُ الْجَارِيَةَ لَمْ تَبْلُغْ الْمَحِيضَ وَلَا تَحْمِلُ مِثْلُهَا بِكَمْ يَسْتَبْرِئُهَا قَالَ بِثَلَاثَةِ أَشْهُرٍ

أخبرنا محمد بن المبارك حدثنا عمر بن عبد الواحد عن الأوزاعي قال سألت الزهري عن الرجل يبتاع الجارية لم تبلغ المحيض ولا تحمل مثلها بكم يستبرئها قال بثلاثة أشهر

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আওযায়ী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৫২. এবং ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাছীর বলেন, পঁয়তাল্লিশ দিন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: আগের হাদীসটির সনদই এ সনদ। (তথা সহীহ।)

তাখরীজ: এটি সামনে ১২১৮ নং এ আসছে।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

وَقَالَ يَحْيَى بْنُ أَبِي كَثِيرٍ بِخَمْسَةٍ وَأَرْبَعِينَ يَوْمًا

وقال يحيى بن أبي كثير بخمسة وأربعين يوما

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইয়াহইয়া ইবনু আবী কাসীর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৫৩. সাঈদ ইবনু জুবাইর রাহি. থেকে বর্ণিত, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা সম্পর্কে বলেন, সে প্রত্যেক সালাতের সময় গোসল করবে এবং সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ১/১২৭ আলী ও ইবনু আব্বাস হতে… মুনকাতি’ বা বিচ্ছিন্ন সনদে।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ عَنْ هِشَامٍ الدَّسْتَوَائِيِّ عَنْ حَمَّادٍ عَنْ سَعِيدِ بْنِ جُبَيْرٍ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ أَنَّهُ كَانَ يَقُولُ فِي الْمُسْتَحَاضَةِ تَغْتَسِلُ عِنْدَ كُلِّ صَلَاةٍ وَتُصَلِّي

أخبرنا يزيد بن هارون عن هشام الدستوائي عن حماد عن سعيد بن جبير عن ابن عباس أنه كان يقول في المستحاضة تغتسل عند كل صلاة وتصلي

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ সা‘ঈদ ইবনু যুবায়র (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৬. যখন কোনো মহিলার হায়েযের দিনগুলি ইসতিহাযার দিনগুলি সাথে মিশ্রিত হয়ে যায়

৯৫৪.[1] এবং হাম্মাদ রাহি. বলেন, যদি ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা (ইসতিহাযার হুকুম) না জানার কারণে কয়েক মাস যাবত সালাত পরিত্যাগ করে, তবে সে এ সালাতসমূহের কাযা আদায় করবে। তাকে জিজ্ঞেস করা হলো, সে কিভাবে এগুলোর কাযা আদায় করবে? তিনি জবাবে বললেন, যদি সম্ভব হয় তবে, সে এগুলো একদিনের মধ্যেই আদায় করে নেবে।[2] আব্দুল্লাহকে বলা হলো: আপনিও কি তাই বলেন? তিনি বললেন, অবশ্যই, আল্লাহর কসম।

[1] (এখানেও ৯৫৮ নং এর পরে ৯৬০ নং প্রদান করা হয়েছে, মাঝের ৯৫৯ নং বাদ পড়েছে। আমরা আগের মতোই সেটি বাদ না দিয়ে সঠিকভাবেই নম্বর প্রদান করলাম। ফলে মুহাক্বিক্বের প্রদত্ত হাদীস নং এর সাথে আমাদের প্রদত্ত নং এর পার্থক্য এখন গিয়ে দাঁড়ালো ৬ এ। এ হাদীসটির আমাদের নং ৯৫৪ কিন্তু মুহাক্ক্বিক্বের নং ৯৬০।- অনুবাদক)

[2] তাহক্বীক্ব: এ হাদীসের সনদ সহীহ। আর পূর্বের হাদীসের সনদই এর সনদ।

তাখরীজ: আমি এটি অন্য কোথাও পাইনি।

بَابُ إِذَا اخْتَلَطَتْ عَلَى الْمَرْأَةِ أَيَّامُ حَيْضِهَا فِي أيَّامِ اسْتِحَاضَتِهَا

وَقَالَ حَمَّادٌ لَوْ أَنَّ مُسْتَحَاضَةً جَهِلَتْ فَتَرَكَتْ الصَّلَاةَ أَشْهُرًا فَإِنَّهَا تَقْضِي تِلْكَ الصَّلَوَاتِ قِيلَ لَهُ وَكَيْفَ تَقْضِيهَا قَالَ تَقْضِيهَا فِي يَوْمٍ وَاحِدٍ إِنْ اسْتَطَاعَتْ قِيلَ لِعَبْدِ اللَّهِ تَقُولُ بِهِ قَالَ إِي وَاللَّهِ

وقال حماد لو أن مستحاضة جهلت فتركت الصلاة أشهرا فإنها تقضي تلك الصلوات قيل له وكيف تقضيها قال تقضيها في يوم واحد إن استطاعت قيل لعبد الله تقول به قال إي والله

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাম্মাদ ইবনু আবী সুলাইমান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৫৫. মালিক ইবনু আনাস রাহি. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি যুহুরী রাহি. কে এমন গর্ভবতী মহিলা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলাম, যে রক্ত (আসতে) দেখে। জবাবে তিনি বলেন, সে সালাত পরিত্যাগ করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: মালিক, মু’আত্তা, ১০৩; আব্দুর রাযযাক ১২০৯; আমাদের পরিপূর্ণ বক্তব্য হলো, এর সনদ সহীহ। দেখুন আল ইসতিযকার, ৩/১৯৮, ১৯৯।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا خَالِدُ بْنُ مَخْلَدٍ حَدَّثَنَا مَالِكُ بْنُ أَنَسٍ قَالَ سَأَلْتُ الزُّهْرِيَّ عَنْ الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ فَقَالَ تَدَعُ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح

أخبرنا خالد بن مخلد حدثنا مالك بن أنس قال سألت الزهري عن الحامل ترى الدم فقال تدع الصلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মালিক ইবনু আনাস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৫৬. উসমান ইবনুল আসওয়াদ হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমার স্ত্রী, যে রক্ত দেখতে পায়, তার সম্পর্কে আমি মুজাহিদ রাহি.কে প্রশ্ন করলাম। আর আমার ধারণা, সে গর্ভবতী। তিনি বললেন, এটি হলো গর্ভেরই সামান্য পরিমাণ (রক্ত)। (আল্লাহ তা’আলা বলেন:)( (اللَّهُ يَعْلَمُ مَا تَحْمِلُ كُلُّ أُنْثَى وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ وَمَا تَزْدَادُ) অর্থ: “প্রত্যেক নারী যা গর্ভে ধারণ করে এবং জরায়ুতে যা কিছু কমে ও বাড়ে আল্লাহ তা জানেন।” (সূরা রা’দ: ৮)

তিনি বললেন: ফলে (রক্ত বের হওয়ার মাধ্যমে গর্ভের মধ্যে) যে পরিমাণই কমে যায়, তার গর্ভের মধ্যে ঠিক সেই পরিমাণে বৃদ্ধি হয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাবারী, আত তাফসীর ১৩/১১০ অধিক শব্দে সহীহ সনদে। তাবারী অপর সনদে মুজাহিদ হতে এটি বর্ণনা করেছেন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا عُبَيْدُ اللَّهِ بْنُ مُوسَى عَنْ عُثْمَانَ بْنِ الْأَسْوَدِ قَالَ سَأَلْتُ مُجَاهِدًا عَنْ امْرَأَتِي رَأَتْ دَمًا وَأَنَا أُرَاهَا حَامِلًا قَالَ ذَلِكَ غَيْضُ الْأَرْحَامِ اللَّهُ يَعْلَمُ مَا تَحْمِلُ كُلُّ أُنْثَى وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ وَمَا تَزْدَادُ فَمَا غَاضَتْ مِنْ شَيْءٍ رَأَتْ مِثْلَهُ فِي الْحَمْلِ

أخبرنا عبيد الله بن موسى عن عثمان بن الأسود قال سألت مجاهدا عن امرأتي رأت دما وأنا أراها حاملا قال ذلك غيض الأرحام الله يعلم ما تحمل كل أنثى وما تغيض الأرحام وما تزداد فما غاضت من شيء رأت مثله في الحمل

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ উসমান ইবনুল আসওয়াদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৫৭. আসিম আল আহওয়াল থেকে বর্ণিত, (اللَّهُ يَعْلَمُ مَا تَحْمِلُ كُلُّ أُنْثَى وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ وَمَا تَزْدَادُ وَكُلُّ شَيْءٍ عِنْدَهُ بِمِقْدَارٍ) অর্থ: “প্রত্যেক নারী যা গর্ভে ধারণ করে এবং জরায়ুতে যা কিছু কমে ও বাড়ে আল্লাহ তা জানেন এবং তাঁর বিধানে প্রত্যেক বস্তুরই এক নির্দিষ্ট পরিমাণ আছে।” (সূরা রা’দ: ৮)- এ আয়াত সম্পর্কে ইকরিমাহ রাহি. বলেন, এ হায়েয হলো গর্ভের জন্য। গর্ভাবস্থায় একদিনের হায়েযও গর্ভাবস্থায় তার পবিত্রতা বাড়িয়ে দেয়।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাবারী, আত তাফসীর ১৩/১১১, ইকরিমাহ হতে সহীহ সনদে। তিনি অপর সনদেও ইকরিমাহ হতে এটি বর্ণনা করেছেন।… দেখুন, সামনের ৯৬৫ নং হাদীসটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ عَنْ عَاصِمٍ الْأَحْوَلِ عَنْ عِكْرِمَةَ فِي هَذِهِ الْآيَةِ اللَّهُ يَعْلَمُ مَا تَحْمِلُ كُلُّ أُنْثَى وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ وَمَا تَزْدَادُ وَكُلُّ شَيْءٍ عِنْدَهُ بِمِقْدَارٍ قَالَ ذَلِكَ الْحَيْضُ عَلَى الْحَبَلِ لَا تَحِيضُ يَوْمًا فِي الْحَبَلِ إِلَّا زَادَتْهُ طَاهِرًا فِي حَبَلِهَا

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد بن سلمة عن عاصم الأحول عن عكرمة في هذه الآية الله يعلم ما تحمل كل أنثى وما تغيض الأرحام وما تزداد وكل شيء عنده بمقدار قال ذلك الحيض على الحبل لا تحيض يوما في الحبل إلا زادته طاهرا في حبلها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আসিম আল আহওয়াল (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৫৮. হাম্মাদ ইবনু যাইদ থেকে বর্ণিত, ইয়াহইয়া ইবনু সাঈদ রাহি. বলেন, আমাদের মাঝে একটি বিষয়ে কোনো মতভেদ নেই। (সেটি হলো), আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত, গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখতে পায়, সে পবিত্র না হওয়া পর্যন্ত সালাত আদায় করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ ‘ইনকিতা’ বা বিচ্ছিন্নতার কারণে যয়ীফ। সম্ভবত এটি মু’দালও বটে।

তাখরীজ: এটি সামনে ৯৬৮ নং এও আসছে। আমি এটি এখানে ব্যতীত অন্য কোথাও পাইনি। কিন্তু পরবর্তী ৯৭৩ ও৯৭৪ নং হাদীস দু’টি দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ زَيْدٍ عَنْ يَحْيَى بْنِ سَعِيدٍ قَالَ أَمْرٌ لَا يُخْتَلَفُ فِيهِ عِنْدَنَا عَنْ عَائِشَةَ الْمَرْأَةُ الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ أَنَّهَا لَا تُصَلِّي حَتَّى تَطْهُرَ

إسناده ضعيف لانقطاعه وربما كان معضلا

أخبرنا أبو النعمان حدثنا حماد بن زيد عن يحيى بن سعيد قال أمر لا يختلف فيه عندنا عن عائشة المرأة الحبلى إذا رأت الدم أنها لا تصلي حتى تطهر إسناده ضعيف لانقطاعه وربما كان معضلا

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাম্মাদ ইবনু যাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৫৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৫৯. আসিম আল আহওয়াল থেকে বর্ণিত, (وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ) (অর্থ: “জরায়ুতে যা কিছু কমে”..। সূরা রা’দ: ৮) এ সম্পর্কে ইকরিমাহ বলেন: সেটি হলো গর্ভাকালীন হায়েয।

(وَمَا تَزْدَادُ) (অর্থ: “আর যা কিছু বাড়ে….”। সূরা রা’দ: ৮) এ সম্পর্কে তিনি বলেন: তার গর্ভকালীন প্রতি একদিনের হায়েয তার পবিত্রাবস্থাকে এক এক দিন করে বাড়িয়ে দেয়। এমনকি পবিত্রাবস্থায়ই সে নয় মাস পূর্ণ করে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাবারী, আত তাফসীর ১৩/১১১; এটি গত হয়েছে ৯৬৩ (অনুবাদে ৯৫৭) নং এ, পূর্ণ তাখরীজের জন্য সেখানে দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا ثَابِتُ بْنُ يَزِيدَ حَدَّثَنَا عَاصِمٌ عَنْ عِكْرِمَةَ وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ قَالَ هُوَ الْحَيْضُ عَلَى الْحَبَلِ وَمَا تَزْدَادُ قَالَ فَلَهَا بِكُلِّ يَوْمٍ حَاضَتْ فِي حَمْلِهَا يَوْمًا تَزْدَادُ فِي طُهْرِهَا حَتَّى تَسْتَكْمِلَ تِسْعَةَ أَشْهُرٍ طَاهِرًا

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا ثابت بن يزيد حدثنا عاصم عن عكرمة وما تغيض الأرحام قال هو الحيض على الحبل وما تزداد قال فلها بكل يوم حاضت في حملها يوما تزداد في طهرها حتى تستكمل تسعة أشهر طاهرا إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আসিম আল আহওয়াল (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬০. আবু বাশার থেকে বর্ণিত, (وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ) (অর্থ: “জরায়ুতে যা কিছু কমে”..। সূরা রা’দ: ৮) এ আয়াত সম্পর্কে মুজাহিদ রাহি. বলেন, যখন গর্ভবতী নারীর হায়েয হয়, তখন তা হয় গর্ভের সন্তানের ক্ষতি/ঘাটতি থেকে। আর (গর্ভ) যদি নয় মাসের অধিককাল হয়, তবে তা সন্তানের ক্ষতি বা ঘাটতির পূর্ণতা দানকারী হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: তাবারী, আত তাফসীর ১৩/১০৯-১১০; পূর্ণ তাখরীজের জন্য ৯৬৩ ও ৯৬৫ (অনুবাদে ৯৫৭, ৯৫৯) নং হাদীস দু’টি দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو النُّعْمَانِ حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ أَبِي بِشْرٍ عَنْ مُجَاهِدٍ وَمَا تَغِيضُ الْأَرْحَامُ قَالَ إِذَا حَاضَتْ الْمَرْأَةُ وَهِيَ حَامِلٌ قَالَ يَكُونُ ذَلِكَ نُقْصَانًا مِنْ الْوَلَدِ فَإِذَا زَادَتْ عَلَى تِسْعَةِ أَشْهُرٍ كَانَ تَمَامًا لِمَا نَقَصَ مِنْ وَلَدِهَا

إسناده صحيح

أخبرنا أبو النعمان حدثنا أبو عوانة عن أبي بشر عن مجاهد وما تغيض الأرحام قال إذا حاضت المرأة وهي حامل قال يكون ذلك نقصانا من الولد فإذا زادت على تسعة أشهر كان تماما لما نقص من ولدها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আবু বাশার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬১. হাম্মাদ ইবনু সালামাহ হতে বর্ণিত, বাকর ইবনু আব্দুল্লাহ আল মুযানী বলেন, আমার স্ত্রীর গর্ভাবস্থায় হায়েয হয়েছিলো।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি আমি অন্য কোথাও পাইনি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ عَنْ حُمَيْدٍ عَنْ بَكْرِ بْنِ عَبْدِ اللَّهِ الْمُزَنِيِّ أَنَّهُ قَالَ امْرَأَتِي تَحِيضُ وَهِيَ حُبْلَى

إسناده صحيح

أخبرنا حجاج حدثنا حماد بن سلمة عن حميد عن بكر بن عبد الله المزني أنه قال امرأتي تحيض وهي حبلى إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাম্মাদ বিন সালামা (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬২. আবু মুহাম্মদ (দারিমী) বলেন, আমি সুলাইমান ইবনু হারবকে বলতে শুনেছি, তিনি বলেন, আমার স্ত্রীর গর্ভাবস্থায় হায়েয হলো।[1]

৯৬২. সাঈদ ইবনু জুবাইর হতে বর্ণিত, আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা বলেন, যখন গর্ভবতী নারী রক্ত দেখবে, তখন সে যেন সালাত পরিত্যাগ করে, কেননা, তা হায়েয।[2]

[1] তাহক্বীক্ব: আগের হাদীসের সনদই এর সনদ।

তাখরীজ: এটিও আমি আর কোথাও পাইনি।

[2] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ।

তাখরীজ: আর এটি গত হয়েছে ৯৬৪ (অনুবাদ ৯৫৮) নং এ। ইবনু আব্দুল বার, আল ইসতিযকার নং ৩৩৮৭; দেখুন নং ৯৭৩, ৯৭৪, ৯৮৫ (অনুবাদে ৯৬৭, ৯৬৮, ৯৭৯) নং হাদীসগুলি যা সামনে আসছে। এবং সুনানে বাইহাকী ৭/৪২৩।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

قَالَ أَبُو مُحَمَّد سَمِعْتُ سُلَيْمَانَ بْنَ حَرْبٍ يَقُولُ امْرَأَتِي تَحِيضُ وَهِيَ حُبْلَى

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادٌ عَنْ يَحْيَى بْنِ سَعِيدٍ عَنْ عَائِشَةَ أَنَّهَا قَالَتْ إِذَا رَأَتْ الْحُبْلَى الدَّمَ فَلْتُمْسِكْ عَنْ الصَّلَاةِ فَإِنَّهُ حَيْضٌ

قال أبو محمد سمعت سليمان بن حرب يقول امرأتي تحيض وهي حبلى أخبرنا حجاج حدثنا حماد عن يحيى بن سعيد عن عائشة أنها قالت إذا رأت الحبلى الدم فلتمسك عن الصلاة فإنه حيض

 হাদিসের মানঃ সহিহ/যঈফ [মিশ্রিত]  বর্ণনাকারীঃ সা‘ঈদ ইবনু যুবায়র (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৩. মালিক বর্ণনা করেছেন, যে তার নিকট আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা থেকে অনুরূপ বক্তব্য পৌঁছেছে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ মু’দ্বাল। আগের হাদীসটি দেখুন। তার থেকে এর বিপরীত বর্ণিত হয়েছে। দেখুন, ৯৭৩ (অনুবাদে ৯৬৭) নং হাদীসটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مَسْلَمَةَ حَدَّثَنَا مَالِكٌ أَنَّهُ بَلَغَهُ عَنْ عَائِشَةَ مِثْلُ ذَلِكَ

إسناده معضل

أخبرنا عبد الله بن مسلمة حدثنا مالك أنه بلغه عن عائشة مثل ذلك إسناده معضل

 হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ  বর্ণনাকারীঃ মালিক ইবনু আনাস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৪. লাইছ থেকে বর্ণিত, গর্ভবতী মহিলা যে রক্ত দেখে, তার সম্পর্কে শা’বী রাহি. বলেন, রক্ত যদি তাজা রক্ত হয়, তবে সে গোসল করবে এবং সালাত আদায় করবে। আর তা যদি সামান্য কোনো (হলুদ বা মেটে রং এর) স্রাব হয়, তবে সে ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, লাইছ যয়ীফ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/২১২;

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا إِسْمَعِيلُ بْنُ أَبَانَ حَدَّثَنَا ابْنُ إِدْرِيسَ عَنْ لَيْثٍ عَنْ الشَّعْبِيِّ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ إِنْ كَانَ الدَّمُ عَبِيطًا اغْتَسَلَتْ وَصَلَّتْ وَإِنْ كَانَتْ تَرِيَّةً تَوَضَّأَتْ وَصَلَّتْ

إسناده ضعيف لضعف الليث وهو: ابن أبي سليم

أخبرنا إسمعيل بن أبان حدثنا ابن إدريس عن ليث عن الشعبي في الحامل ترى الدم إن كان الدم عبيطا اغتسلت وصلت وإن كانت ترية توضأت وصلت إسناده ضعيف لضعف الليث وهو: ابن أبي سليم

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ লাইস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৫. আবুল মুগীরাহ, আওযাঈ রাহি. হতে অনুরূপ বর্ণনা করেছেন।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর বর্ণনাকারীগণ নির্ভরযোগ্য।

তাখরীজ: এটি আর এখানে ছাড়া আর কোথাও পাইনি। দেখুন, আল ইসতিযকার ৩/১৯৮।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو الْمُغِيرَةِ عَنْ الْأَوْزَاعِيِّ مِثْلَهُ

رجاله ثقات

أخبرنا أبو المغيرة عن الأوزاعي مثله رجاله ثقات

 হাদিসের মানঃ তাহকীক অপেক্ষমাণ  বর্ণনাকারীঃ আবুল মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৬. হিশাম থেকে বর্ণিত, হাসান রাহি. বলেন, সে যদি তেমনি স্রাব দেখে, যেমন সে দেখেছিল এর পূর্বে হায়েযের দিনগুলিতে, তবে সে সালাত পরিত্যাগ করবে। আর যদি তা দু’-একদিন ধরে হয়, তবে সে সালাত পরিত্যাগ করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ২/২১২।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مُحَمَّدٍ حَدَّثَنَا عَبَّادُ هُوَ ابْنُ الْعَوَّامِ عَنْ هِشَامٍ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ إِنْ كَانَتْ تَرَاهُ كَمَا كَانَتْ تَرَاهُ قَبْلَ ذَلِكَ فِي أَقْرَائِهَا تَرَكَتْ الصَّلَاةَ وَإِنْ كَانَ إِنَّمَا هُوَ فِي الْيَوْمِ أَوْ الْيَوْمَيْنِ لَمْ تَدَعْ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح

أخبرنا عبد الله بن محمد حدثنا عباد هو ابن العوام عن هشام عن الحسن قال إن كانت تراه كما كانت تراه قبل ذلك في أقرائها تركت الصلاة وإن كان إنما هو في اليوم أو اليومين لم تدع الصلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম ইবন হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৭. আতা রাহি. হতে বর্ণিত, যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তার সম্পর্কে আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা বলেন: এটি তাকে কোনো সালাত থেকে বিরত রাখতে পারবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: মাতর ইবনু তাহমান আমাদের নিকট ‘হাসানুল হাদীস’ (তার বর্ণিত হাদীস হাসান পর্যায়ের) বলে আমি মুসনাদুল মাউসিলী নং ৩১১১ তে বলেছি। তবে আতা’ হতে তার বর্ণিত হাদীস যয়ীফ। ((আর এটি আতা হতে মাতর বর্ণনা করেছেন, সুতরাং এটিও যয়ীফ-অনুবাদক।))

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ২/২১২; বাইহাকী ৭/৪২৩; আরও দেখুন পরবর্তী হাদীসটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا عَبْدُ اللَّهِ بْنُ مُحَمَّدٍ هُوَ ابْنُ أَبِي شَيْبَةَ حَدَّثَنَا خَالِدُ بْنُ الْحَارِثِ وَعَبْدَةُ بْنُ سُلَيْمَانَ عَنْ سَعِيدٍ عَنْ مَطَرٍ عَنْ عَطَاءٍ عَنْ عَائِشَةَ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَتْ لَا يَمْنَعُهَا ذَلِكَ مِنْ صَلَاةٍ

لم يحكم عليه المحقق

أخبرنا عبد الله بن محمد هو ابن أبي شيبة حدثنا خالد بن الحارث وعبدة بن سليمان عن سعيد عن مطر عن عطاء عن عائشة في الحامل ترى الدم قالت لا يمنعها ذلك من صلاة لم يحكم عليه المحقق

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু আবী রাবাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৮. (অপর সনদে) আতা রাহি. হতে বর্ণিত, যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তার সম্পর্কে আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা বলেন: সে গোসল করবে এবং সালাত আদায় করবে।’[1] ইয়াযীদ বলেন, সে গোসল করবে না। আব্দুল্লাহ বলেন, আমার মত ইয়াযীদের মতই।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। দেখুন, আগের টীকাটি।

তাখরীজ: দারুকুতনী ১/২১৯ নং ৬৩; বাইহাকী ৭/২৩; সামনে ৯৮৫ (অনুবাদে ৯৭৯) হাদীসটিও দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ حَدَّثَنَا هَمَّامٌ عَنْ مَطَرٍ عَنْ عَطَاءٍ عَنْ عَائِشَةَ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَتْ تَغْتَسِلُ وَتُصَلِّي قَالَ يَزِيدُ لَا تَغْتَسِلُ قَالَ عَبْد اللَّهِ أَقُولُ بِقَوْلِ يَزِيدَ

إسناده ضعيف

أخبرنا يزيد بن هارون حدثنا همام عن مطر عن عطاء عن عائشة في الحامل ترى الدم قالت تغتسل وتصلي قال يزيد لا تغتسل قال عبد الله أقول بقول يزيد إسناده ضعيف

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু আবী রাবাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৬৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৬৯. ইউনুস থেকে বর্ণিত, যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তার সম্পর্কে হাসান রাহি. বলেন: সে ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলার স্থলাভিষিক্ত। সে সালাত পরিত্যাগ করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২১০; সামনে ৯৭৯ (অনুবাদে ৯৭৩) এ আসছে। আরও দেখুন, বিগত ৮৩৮, ৮৩৯ (অনুবাদে ৮৩৪, ৮৩৫) নং হাদীস দুটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا يَزِيدُ بْنُ زُرَيْعٍ عَنْ يُونُسَ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَ هِيَ بِمَنْزِلَةِ الْمُسْتَحَاضَةِ غَيْرَ أَنَّهَا لَا تَدَعُ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا يزيد بن زريع عن يونس عن الحسن في الحامل ترى الدم قال هي بمنزلة المستحاضة غير أنها لا تدع الصلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭০. মুগীরাহ হতে বর্ণিত, যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তার সম্পর্কে ইবরাহীম রাহি. বলেন: তার দেহ হতে রক্ত ধুয়ে ফেলবে এবং ওযু করে সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ২/২১২; দেখুন, পরবতী ৯৮২ (অনুবাদে ৯৭৬) নং হাদীসটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ إِبْرَاهِيمَ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَ تَغْسِلُ عَنْهَا الدَّمَ وَتَتَوَضَّأُ وَتُصَلِّي

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا أبو عوانة عن مغيرة عن إبراهيم في الحامل ترى الدم قال تغسل عنها الدم وتتوضأ وتصلي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭১. হাজ্জাজ থেকে বর্ণিত, আতা ও হাকাম উভয়ে বলেন: গর্ভবতী নারী যদি রক্ত দেখে, তবে সে ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। এতে হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ রয়েছে। আমি বলছি, আতার হাদীসটি পরবর্তী আসছে যা সহীহ হাদীস।

তাখরীজ: এটি সামনে ৯৮৩ (অনুবাদের ক্রম ৯৭৭) নং এ আসছে।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا هُشَيْمٌ حَدَّثَنَا حَجَّاجٌ عَنْ عَطَاءٍ وَالْحَكَمِ قَالَا إِذَا رَأَتْ الْحَامِلُ الدَّمَ تَوَضَّأَتْ وَصَلَّتْ

إسناده ضعيف لضعف حجاج وهو: ابن أرطاة

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا هشيم حدثنا حجاج عن عطاء والحكم قالا إذا رأت الحامل الدم توضأت وصلت إسناده ضعيف لضعف حجاج وهو: ابن أرطاة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭২. জামি’ ইবনু আবু রাশিদ হতে বর্ণিত, যে গর্ভবতী নারী রক্ত দেখে, তার সম্পর্কে আতা রাহি. বলেন, সে ওযু করবে এবং সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা, ২/১২ ((সম্ভবত এটি ভুল, কারণ, মুহাক্বিক্ব ২/১২ এর অধীনে যে বাবের নাম উল্লেখ করেছেন, ২/১২ তে এ নামে কোনো বাব নেই, বরং সেটি রয়েছে ২/২১২ তে। সুতরাং সঠিক হওয়া উচিত ২/২১২ – অনুবাদক)); পূর্বের টীকাটি এবং পরবর্তী ৯৮৩, ৯৮৪ নং হাদীস দু’টি দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ جَامِعٍ هُوَ ابْنُ أَبِي رَاشِدٍ عَنْ عَطَاءٍ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَ تَوَضَّأُ وَتُصَلِّي

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن جامع هو ابن أبي راشد عن عطاء في الحامل ترى الدم قال توضأ وتصلي إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ জামি’ ইবনু আবু রাশিদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৩. ইউনুস থেকে বর্ণিত, (যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত নির্গত হতে দেখে, তার সম্পর্কে) হাসান রাহি. বলেন: সে ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলার স্থলাভিষিক্ত।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৯৭৫ (অনুবাদে ৯৬৯) নং এ; এবং সামনের ৯৮১ (অনুবাদে ৯৭৫) নং এ আসছে।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ يُونُسَ عَنْ الْحَسَنِ قَالَ هِيَ بِمَنْزِلَةِ الْمُسْتَحَاضَةِ

أثر صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن يونس عن الحسن قال هي بمنزلة المستحاضة أثر صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৪. মুগীরাহ হতে বর্ণিত, ইবরাহীম রাহি. বলেন, গর্ভকালীন (স্রাব) হায়েয বলে গণ্য হবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আগের ৯৭৬ (অনুবাদে ৯৭০) নং হাদীসটি দেখুন।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

حَدَّثَنَا أَبُو الْوَلِيدِ الطَّيَالِسِيُّ عَنْ جَرِيرٍ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ إِبْرَاهِيمَ قَالَ لَا يَكُونُ حَيْضٌ عَلَى حَمْلٍ

إسناده صحيح

حدثنا أبو الوليد الطيالسي عن جرير عن مغيرة عن إبراهيم قال لا يكون حيض على حمل إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৫. হিশাম হতে বর্ণিত, হাসান রাহি. যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তার সম্পর্কে হাসান রাহি. বলেন: সে ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলার স্থলাভিষিক্ত।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৯৭৫, ৯৭৯ (অনুবাদে ৯৬৯, ৯৭৩) নং এ।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا سَعِيدُ بْنُ عَامِرٍ عَنْ هِشَامٍ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْحَامِلِ تَرَى الدَّمَ قَالَ هِيَ بِمَنْزِلَةِ الْمُسْتَحَاضَةِ

إسناده صحيح

أخبرنا سعيد بن عامر عن هشام عن الحسن في الحامل ترى الدم قال هي بمنزلة المستحاضة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হিশাম ইবন হাসান (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৬. মুগীরাহ হতে বর্ণিত, ইবরাহীম রাহি. বলেন: যে গর্ভবতী মহিলা রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, সে সালাত পরিত্যাগ করবে না।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: এটি গত হয়েছে ৯৮০ (অনুবাদে ৯৭৪) নং এ। আরও দেখুন, ৯৭৬ (অনুবাদে ৯৭০) নং হাদীসটি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا أَبُو الْوَلِيدِ حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ مُغِيرَةَ عَنْ إِبْرَاهِيمَ إِذَا رَأَتْ الْحَامِلُ الدَّمَ لَمْ تَدَعْ الصَّلَاةَ

إسناده صحيح

أخبرنا أبو الوليد حدثنا أبو عوانة عن مغيرة عن إبراهيم إذا رأت الحامل الدم لم تدع الصلاة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মুগীরাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৭. হাজ্জাজ হতে বর্ণিত, আতা ও হাকাম ইবনু উতাইবাহ রাহি. উভয়ে বলেন: গর্ভবতী মহিলা ও যার হায়েয বন্ধ হয়ে গিয়েছে, এমন মহিলারা যদি রক্ত (নির্গত হতে) দেখে, তবে তারা দু’জন ওযু করবে, সালাত আদায় করবে এবং তারা গোসল করবে না।’[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। এতে হাজ্জাজ বিন আরতাহ রয়েছে। আর সে যযীফ।

তাখরীজ: আর এটি ৯৭৭ (অনুবাদে ৯৭১) নং এ গত হয়েছে।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ حَدَّثَنَا حَمَّادُ بْنُ سَلَمَةَ عَنْ الْحَجَّاجِ عَنْ عَطَاءٍ وَالْحَكَمِ بْنِ عُتَيْبَةَ أَنَّهُمَا قَالَا فِي الْحُبْلَى وَالَّتِي قَعَدَتْ عَنْ الْمَحِيضِ إِذَا رَأَتْ الدَّمَ تَوَضَّأَتَا وَصَلَّتَا وَلَا تَغْتَسِلَانِ

إسناده ضعيف لضعف حجاج بن أرطاة

أخبرنا حجاج حدثنا حماد بن سلمة عن الحجاج عن عطاء والحكم بن عتيبة أنهما قالا في الحبلى والتي قعدت عن المحيض إذا رأت الدم توضأتا وصلتا ولا تغتسلان إسناده ضعيف لضعف حجاج بن أرطاة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাজ্জাজ ইবনু আরতাহ  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৮. মাতর হতে বর্ণিত, আতা রাহি. বলেন, তারা (গর্ভবতী ও হায়েযবন্ধ মহিলারা) উভয়ে গোসল করবে এবং সালাত আদায় করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। আতা হতে মাতর এর বর্ণনা যয়ীফ। আগের (৯৬৭ নং হাদীসের) টীকাটি দেখুন।

তাখরীজ: ((মুহাক্বিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি।–।অনুবাদক))

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا حَجَّاجٌ عَنْ حَمَّادٍ عَنْ مَطَرٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ تَغْتَسِلَانِ وَتُصَلِّيَانِ

إسناده ضعيف رواية مطر عن عطاء ضعيفة

أخبرنا حجاج عن حماد عن مطر عن عطاء قال تغتسلان وتصليان إسناده ضعيف رواية مطر عن عطاء ضعيفة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ মাতর (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৭৯

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৭৯. আতা ইবনু আবু রাবাহ থেকে বর্ণিত, আয়িশা রাদ্বিয়াল্লাহু আনহা বলেন, গর্ভবতী নারীর কখনো হায়েয হয় না। ফলে সে রক্ত দেখলে সে যেন গোসল করে এবং সালাত আদায় করে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ হাসান, সুলাইমান ইবনু মূসার জন্য।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২১৪; দেখুন পুর্বের ৯৬৮, ৯৭৩, ৯৭৪ (অনুবাদে ৯৬২, ৯৭৭, ৯৭৮) নং হাদীসগুলি।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا زَيْدُ بْنُ يَحْيَى الدِّمَشْقِيُّ عَنْ مُحَمَّدِ بْنِ رَاشِدٍ عَنْ سُلَيْمَانَ بْنِ مُوسَى عَنْ عَطَاءِ بْنِ أَبِي رَبَاحٍ عَنْ عَائِشَةَ قَالَتْ إِنَّ الْحُبْلَى لَا تَحِيضُ فَإِذَا رَأَتْ الدَّمَ فَلْتَغْتَسِلْ وَلْتُصَلِّ

إسناده حسن من أجل سليمان بن موسى

أخبرنا زيد بن يحيى الدمشقي عن محمد بن راشد عن سليمان بن موسى عن عطاء بن أبي رباح عن عائشة قالت إن الحبلى لا تحيض فإذا رأت الدم فلتغتسل ولتصل إسناده حسن من أجل سليمان بن موسى

 হাদিসের মানঃ হাসান (Hasan)  বর্ণনাকারীঃ আতা ইবনু আবী রাবাহ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮০

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৮০. হাকাম থেকে বর্ণিত, আসন্ন প্রসবা নারী যদি রক্ত দেখতে পায়, তার সম্পর্কে ইবরাহীম রাহি. বলেন, তা হচ্ছে হায়েয, ফলে সে সালাত পরিত্যাগ করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ শক্তিশালী।

তাখরীজ: ইবনু্ আবী শাইবা ২/২১৩।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا يَحْيَى بْنُ حَسَّانَ حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ الْفُضَيْلِ عَنْ الْحَسَنِ بْنِ الْحَكَمِ عَنْ الْحَكَمِ عَنْ إِبْرَاهِيمَ فِي الْمَرْأَةِ إِذَا رَأَتْ الدَّمَ وَهِيَ تَمَخَّضُ قَالَ هُوَ حَيْضٌ تَتْرُكُ الصَّلَاةَ

إسناده قوي

أخبرنا يحيى بن حسان حدثنا محمد بن الفضيل عن الحسن بن الحكم عن الحكم عن إبراهيم في المرأة إذا رأت الدم وهي تمخض قال هو حيض تترك الصلاة إسناده قوي

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ হাকাম ইবনু সুফইয়ান (রাঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮১

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৭. গর্ভবতী মহিলা যখন রক্ত দেখে

৯৮১. ইউনুস হতে বর্ণিত, গর্ভবতী নারীর সম্পর্কে হাসান রাহি. বলেন, যদি তার প্রসব বেদনা উঠে, আর সে প্রসবকালীন রক্ত দেখে, তবে সে যেন সালাত থেকে বিরত থাকে।[1]

আব্দুল্লাহ বলেন: বাচ্চা প্রসব না করা পর্যন্ত সে সালাত আদায় করবে।

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু্ আবী শাইবা ২/২১৩।

بَاب فِي الْحُبْلَى إِذَا رَأَتْ الدَّمَ

أَخْبَرَنَا يَحْيَى بْنُ حَسَّانَ حَدَّثَنَا هُشَيْمٌ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ فِي الْمَرْأَةِ الْحَامِلِ إِذَا ضَرَبَهَا الطَّلْقُ وَرَأَتْ الدَّمَ عَلَى الْوَلَدِ فَلْتُمْسِكْ عَنْ الصَّلَاةِ وَقَالَ عَبْد اللَّهِ تُصَلِّي مَا لَمْ تَضَعْ

إسناده صحيح

أخبرنا يحيى بن حسان حدثنا هشيم حدثنا يونس عن الحسن في المرأة الحامل إذا ضربها الطلق ورأت الدم على الولد فلتمسك عن الصلاة وقال عبد الله تصلي ما لم تضع إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮২

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮২. মা’মার হতে বর্ণিত, কাতাদা রাহি. (মহিলাদের) নিফাসের (প্রসূতি অবস্থার) সময়সীমা সম্পর্কে বলেন, তা তাদের পরিবারের অন্যান্য নারীদের সময়সীমা অনুসারে হবে, যেমন পবিত্রতার ক্ষেত্রে হয়ে থাকে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২০০।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا أَبُو سُفْيَانَ عَنْ مَعْمَرٍ عَنْ قَتَادَةَ فِي النُّفَسَاءِ كَطُهْرِ امْرَأَةٍ مِنْ نِسَائِهَا

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا أبو سفيان عن معمر عن قتادة في النفساء كطهر امرأة من نسائها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ মা’মার (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৩

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৩. ইউনুস থেকে বর্ণিত, হাসান রাহি. প্রসূতি (নিফাসগ্রস্ত) মহিলা সম্পর্কে বলেন, সে সালাত আদায় করা হতে চল্লিশ দিন বিরত থাকবে। তারপর যদি সে পবিত্রাবস্থা লক্ষ্য করে তো তা (ভালোই)। আর যদি সে পবিত্রাবস্থা দেখতে না পায়, তবে এরপর সে পাঁচ-ছয়দিন যাবত সালাত হতে বিরত থাকবে। যদি সে পবিত্রতা লক্ষ্য করে তো ভালোই। তা না হলে সে এরপর থেকে পঞ্চাশ দিন হওয়া পর্যন্ত যে কয়দিন অবশিষ্ট থাকবে, সে কয়দিনও সে সালাত আদায় হতে বিরত থাকবে। এরপর যদি সে পবিত্র হয়ে যায় তো ভালো, তা না হলে সে ইসতিহাযাগ্রস্ত মহিলা বলে গণ্য হবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ।

তাখরীজ: এটি ৮৫৯ (অনুবাদে ৮৫৫) নং এ গত হয়েছে। আরও দেখুন পরবর্তী টীকাটি।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عِيسَى حَدَّثَنَا هُشَيْمٌ حَدَّثَنَا يُونُسُ عَنْ الْحَسَنِ فِي النُّفَسَاءِ تُمْسِكُ عَنْ الصَّلَاةِ أَرْبَعِينَ يَوْمًا فَإِنْ رَأَتْ الطُّهْرَ فَذَاكَ وَإِنْ لَمْ تَرَ الطُّهْرَ أَمْسَكَتْ عَنْ الصَّلَاةِ أَيَّامًا خَمْسًا سِتًّا فَإِنْ طَهُرَتْ فَذَاكَ وَإِلَّا أَمْسَكَتْ عَنْ الصَّلَاةِ مَا بَيْنَهَا وَبَيْنَ الْخَمْسِينَ فَإِنْ طَهُرَتْ فَذَاكَ وَإِلَّا فَهِيَ مُسْتَحَاضَةٌ

أخبرنا محمد بن عيسى حدثنا هشيم حدثنا يونس عن الحسن في النفساء تمسك عن الصلاة أربعين يوما فإن رأت الطهر فذاك وإن لم تر الطهر أمسكت عن الصلاة أياما خمسا ستا فإن طهرت فذاك وإلا أمسكت عن الصلاة ما بينها وبين الخمسين فإن طهرت فذاك وإلا فهي مستحاضة

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইউনূস বিন উবাইদ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৪

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৪. হাসান রাহি. হতে বর্ণিত, উছমান ইবনু আবিল আ’স চল্লিশ দিন তার (নিফাসগ্রস্ত) প্রসূতি স্ত্রীলোকদের নিকটবর্তী হতেন না। এবং হাসান বলেন, নিফাস (প্রসূতি)-এর মেয়াদকাল পঁয়তাল্লিশ থেকে পঞ্চাশ দিন পর্যন্ত। এরচেয়ে বেশিদিন ধরে (নিফাসকালীন স্রাব) হলে সে মহিলা ইসতিহাযাগ্রস্ত ।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ মুনকাতি’ বা বিচ্ছিন্ন। হাসান উছমান হতে কিছুই শ্রবণ করেননি।

তাখরীজ: আব্দুর রাযযাক নং ১২০১; ইবনুল জারুদ, আল মুনতাক্বা নং ১১৮; পরবর্তী টীকাটি দেখুন।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ يُونُسَ بْنِ عُبَيْدٍ عَنْ الْحَسَنِ عَنْ عُثْمَانَ بْنِ أَبِي الْعَاصِ أَنَّهُ كَانَ لَا يَقْرَبُ النُّفَسَاءَ أَرْبَعِينَ يَوْمًا وَقَالَ الْحَسَنُ النُّفَسَاءُ خَمْسَةٌ وَأَرْبَعُونَ إِلَى خَمْسِينَ فَمَا زَادَ فَهِيَ مُسْتَحَاضَةٌ

إسناده منقطع الحسن لم يسمع من عثمان شيئا

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن يونس بن عبيد عن الحسن عن عثمان بن أبي العاص أنه كان لا يقرب النفساء أربعين يوما وقال الحسن النفساء خمسة وأربعون إلى خمسين فما زاد فهي مستحاضة إسناده منقطع الحسن لم يسمع من عثمان شيئا

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৫

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৫. (অপর সূত্রে) হাসান রাহি. হতে বর্ণিত, উছমান ইবনু আবিল আ’স বলেন: নিফাসগ্রস্ত (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা চল্লিশ দিন। যদি এ সময়ের মধ্যে পবিত্র হয়ে যায়, তো ভালো; আর (পবিত্র) না হলে সে এ সীমা (চল্লিশ দিন) অতিক্রম করবে না। এমনকি সে সালাত আদায় করতে থাকবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ, কেননা, ইসমাঈল ইবনু মুসলিম যয়ীফ। এবং হাসান উছমান হতে কিছুই শোনেননি। আগের টীকাটি দেখুন।

তাখরীজ: বাইহাকী, ১/৩৪১ আগের সনদটির চেয়েও অধিক যয়ীফ।…; আব্দুর রাযযাক নং ১২০২ এ সনদে অজ্ঞাত রাবী রয়েছে; হাফিজ তালখীসুল হাবীর ১/১৭১ এ বলেন, এটি মুনকাতি’ এবং মাশহুর হলো এটি উছমান এর কথা হিসেবে মাওকুফ। আরও দেখুন, দারুকুতনী ১/২২০ নং ৬৭, ৬৮, ৬৯।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا جَعْفَرُ بْنُ عَوْنٍ أَخْبَرَنَا إِسْمَعِيلُ بْنُ مُسْلِمٍ عَنْ الْحَسَنِ عَنْ عُثْمَانَ بْنِ أَبِي الْعَاصِ قَالَ وَقْتُ النُّفَسَاءِ أَرْبَعِينَ يَوْمًا فَإِنْ طَهُرَتْ وَإِلَّا فَلَا تُجَاوِزْهُ حَتَّى تُصَلِّيَ

إسناده ضعيف لضعف إسماعيل بن مسلم والحسن لم يسمع من عثمان شيئا

أخبرنا جعفر بن عون أخبرنا إسمعيل بن مسلم عن الحسن عن عثمان بن أبي العاص قال وقت النفساء أربعين يوما فإن طهرت وإلا فلا تجاوزه حتى تصلي إسناده ضعيف لضعف إسماعيل بن مسلم والحسن لم يسمع من عثمان شيئا

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ হাসান বাসরী (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৬

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৬. আশ’আস হতে বর্ণিত, আতা বলেন, নিফাসগ্রস্ত (প্রসূতি) মহিলার (পূর্ব) অভ্যাস থাকে, (তবে সেটি হবে তার সময়সীমা;) তা নাহলে সে চল্লিশ দিন অপেক্ষা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৪/৩৬৮, সহীহ সনদে।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ أَشْعَثَ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ إِنْ كَانَ لِلنُّفَسَاءِ عَادَةٌ وَإِلَّا جَلَسَتْ أَرْبَعِينَ لَيْلَةً

إسناده صحيح

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن أشعث عن عطاء قال إن كان للنفساء عادة وإلا جلست أربعين ليلة إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ আশ’আস (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৭

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৭. ইবনু জুরাইজ হতে বর্ণিত, আতা রাহি. বলেন, নিফাস হচ্ছে হায়েয।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ যয়ীফ। ইবনু জুরাইজ মুদাল্লিস, তিনি এটি ‘আন’আন পদ্ধতিতে বর্ণনা করেছেন।

তাখরীজ: ((মুহাক্কিক্ব এর কোনো তাখরীজ দেননি।-অনুবাদক।))

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يُوسُفَ حَدَّثَنَا سُفْيَانُ عَنْ ابْنِ جُرَيْجٍ عَنْ عَطَاءٍ قَالَ النِّفَاسُ حَيْضٌ

إسناده ضعيف وابن جريج قد عنعن وهو مدلس

أخبرنا محمد بن يوسف حدثنا سفيان عن ابن جريج عن عطاء قال النفاس حيض إسناده ضعيف وابن جريج قد عنعن وهو مدلس

 হাদিসের মানঃ যঈফ (Dai’f)  বর্ণনাকারীঃ ইবনু জুরায়জ (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

 ৯৮৮

 শেয়ার ও অন্যান্য 

  • বাংলা/ العربية

পরিচ্ছেদঃ ৯৮. নিফাস (প্রসূতি) অবস্থার সময়সীমা এবং এ সম্পর্কে যা বর্ণিত হয়েছে

৯৮৮. ইউসুফ ইবনু মাহাক থেকে বর্ণিত, ইবনু আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু আনহুমা বলেন: নিফাসগ্রস্ত (প্রসূতি) মহিলা চল্লিশ দিন অথবা, অনুরূপ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করবে।[1]

[1] তাহক্বীক্ব: এর সনদ সহীহ।

তাখরীজ: ইবনু আবী শাইবা ৪/৩৬৮; বাইহাকী ১/৩৪১; সামনে ৯৯৭ (অনুবাদে ৯৯১) নং এ আসছে।

بَابُ: وَقْتِ النُّفَسَاءِ وَمَا قِيلَ فِيهِ

أَخْبَرَنَا أَبُو الْوَلِيدِ الطَّيَالِسِيُّ حَدَّثَنَا أَبُو عَوَانَةَ عَنْ أَبِي بِشْرٍ عَنْ يُوسُفَ بْنِ مَاهَكَ عَنْ ابْنِ عَبَّاسٍ قَالَ تَنْتَظِرُ النُّفَسَاءُ أَرْبَعِينَ يَوْمًا أَوْ نَحْوَهَا

إسناده صحيح

أخبرنا أبو الوليد الطيالسي حدثنا أبو عوانة عن أبي بشر عن يوسف بن ماهك عن ابن عباس قال تنتظر النفساء أربعين يوما أو نحوها إسناده صحيح

 হাদিসের মানঃ সহিহ (Sahih)  বর্ণনাকারীঃ ইউসুফ ইবনু মাহাক (রহঃ)  পুনঃনিরীক্ষণঃ   সুনান আদ-দারেমী (হাদিসবিডি)  ১. পবিত্রতা অধ্যায় (كتاب الطهارة)

Leave a Comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।